ডিজিটাল জগতের অজানা শত্রু

দাঊদ আরমান | রবিবার , ১৯ জুন, ২০২২ at ৯:০৬ অপরাহ্ণ

প্রায় সময় আমরা ম্যালওয়্যার এবং ভাইরাসের পার্থক্য বুঝতে পারি না যদিও অনেকে মনে করেন দু’টি বিষয়ই এক তবে বাস্তবতা হলো তাদের মধ্যে অনেক তফাৎ আছে।

ম্যালওয়্যার (Malware) হলো Malicious Software-এর সংক্ষিপ্ত রূপ। ম্যালিসিয়াস সফটওয়্যারের কাজ হলো কোনো সিস্টেম, ওয়েবসাইট বা সার্ভারে প্রবেশ করে তার ক্ষতিসাধন করা বা তথ্য চুরি করা। ম্যালওয়্যার বিভিন্ন ধরনের হয়। সেগুলোর মধ্যে একটা হলো ভাইরাস অর্থাৎ সব ভাইরাসই ম্যালওয়্যার তবে সব ম্যালওয়্যার ভাইরাস নয়।

আজকে আমি ৬ ধরনের ম্যালওয়্যার নিয়ে আলোচনা করব।
১) ভাইরাস (Virus): এটা এক ধরনের ম্যালিসিয়াস কোড যেটা ফাইল বা ফোল্ডারে প্রবেশ করানো হয়। প্রবেশের পর এটি রূপ বদল, অন্যান্য ফোল্ডার/ফাইলে ছড়িয়ে পড়ে ক্ষতিসাধন করে থাকে।

২) ওয়ার্ম (Worm): এই ম্যালওয়্যার ব্যবহৃত হয় কোনো সিস্টেমকে ধ্বংস করে দেওয়ার জন্য। সিস্টেমে প্রবেশ করে এটি সিস্টেমের দুর্বলতার সন্ধান করতে থাকে যাতে করে এটি ধ্বংসযজ্ঞ শুরু করতে পারে।
বিভিন্ন অফিসে নেটওয়ার্ক সার্ভার শেয়ার করে সব সিস্টেমকে কানেক্টেড রাখা হয়। এই ধরনের শেয়ার্ড হোস্টিং এনভায়রনমেন্টে ওয়ার্ম প্রবেশ করলে উক্ত প্রতিষ্ঠানের সব কম্পিউটার সিস্টেম একসাথে একে একে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যাবে। তাই বড় প্রতিষ্ঠানগুলো হাই সিকিউরিটির এন্টিম্যালওয়্যার ব্যবহার করে থাকে।

৩) ট্রোজান (Trojan): ট্রোজান হলো একটা এপ্লিকেশন যেখানে একটা ম্যালিসিয়াস কোড লুকায়িত থাকে যা কোনো সিস্টেমে নন-ম্যালিসিয়াস ফাংশন হিসেবে প্রবেশ করে ছদ্মবেশে ক্ষতিসাধন করে। যেহেতু ট্রোজানকে শনাক্ত করা কঠিন তাই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ইউজার বুঝতেই পারে না, কোনো এপ্লিকেশনটা ট্রোজান।

৪) র‍্যান্সমওয়্যার (Ransomware): এই লেখার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং ভয়াবহ ম্যালওয়্যারটি হলো এই র‍্যান্সমওয়্যার। হ্যাকাররা এটির মাধ্যমে পুরো একটি ওয়েবসাইট সম্পূর্ণ লক করে দিয়ে বিভিন্ন ধরনের দাবি-দাওয়া করে থাকে।

৫) এডওয়্যার (Adware): প্রায় সময় বিভিন্ন জনপ্রিয় ওয়েবসাইটে আমরা চটকদার বিজ্ঞাপন দেখে থাকি যেখানে ক্লিক করলেই তারা ম্যালিসিয়াস লিংকে নিয়ে গিয়ে ভাইরাস ছড়িয়ে দেয় বা তথ্য চুরি করে নেয়। মনের অজান্তেই আমরা সাধারণত এসব ফাঁদে পা দিয়ে থাকি যার ফায়দা তোলে ম্যালওয়্যার ছড়ানো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান।

৬) স্কেয়ারওয়্যার (Scareware): এই ম্যালওয়্যারটি সাধারণত মোবাইল ফোন বা কম্পিউটার ব্যবহারের সময় অনেকেই দেখে থাকি। অজানা একটা সোর্স থেকে একটা মেসেজ আসে যেখানে লেখা থাকে আপনার ডিভাইসটি ঝুকিপূর্ণ এবং এটির মেনটেইন্যান্সের প্রয়োজন আছে। মনের অজান্তেই এ ধরনের মেসেজ দেখে আমরা ঘাবড়ে গিয়ে তাদের দেওয়া লিংকে ক্লিক করে ফেলি এবং বিভিন্ন ক্ষতির সম্মুখীন হই।

লেখক: ক্রিয়েটিভ ডিজাইনার
http://facebook.com/dawood.arman