মাইজভাণ্ডারী তরিকার অন্তর্নিহিত নির্যাস বিশ্বশান্তি নিশ্চিত করতে পারে —শাহসুফি ডা. সৈয়দ দিদারুল হক মাইজভাণ্ডারী

| বুধবার , ২৫ জানুয়ারি, ২০২৩ at ৫:১৯ পূর্বাহ্ণ

গাউসুল আজম মাইজভাণ্ডারি হযরত মওলানা শাহসুফি সৈয়দ আহমদ উল্লাহ (.) এঁর ১১৭তম বার্ষিক ওরশের প্রধান দিবস গতকাল মঙ্গলবার মাইজভাণ্ডার দরবার শরীফে অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিবছরের ন্যায় এবারও এই মহান আউলিয়ার ওরশে বংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল ছাড়াও ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, মিয়ানমনার, ইরাক, সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ বিশ্বের বহু দেশ হতে লাখো ভক্ত আশেকদের সমাগম ঘটেছে। তাদের উদ্দেশ্যে গাউসুল আজম মাইজভাণ্ডারির একমাত্র পৌত্র ওয়ারিশ ও স্থলাভিসিক্ত সাজ্জাদানশীন অছিগাউসুল আজম হযরত শাহসুফি সৈয়দ দেলাওর হোসাইন মাইজভাণ্ডারি মনোনীত মোন্তাজেম, জিম্মাদার ও সাজ্জাদানশীন শাহসুফি ডা. সৈয়দ দিদারুল হক মাইজভাণ্ডারি বলেন, বাংলা সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের সংমিশ্রণে উদ্ভাবিত অসাম্প্রদায়িক আধ্যাতিকতা, সাম্য ও সৌহার্দমণ্ডিত মাইজভাণ্ডারি তরিকার অন্তর্নিহিত নির্যাস বিশ্বশান্তি ও মানবতার কল্যাণ নিশ্চিত করতে পারে। তিনি মহান ১০ মাঘের ওরশে আগত আশেকভক্তদের নিয়ে দেশ, জাতি ও বিশ্বশান্তির জন্য মোনাজাতের মাধ্যমে দোয়া করেন।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন গাউছিয়া আহমদিয়া মঞ্জিলের নায়েব মোন্তাজেম ও ওরশ শরীফ সুপারভিশন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক শাহজাদা সৈয়দ হোসেইন রাইফ নুরুল ইসলাম রুবাব মাইজভাণ্ডারি, আঞ্জুমানে মোত্তাবেয়ীনে গাউসে মাইজভাণ্ডারির সহসভাপতি সৈয়দ মোহাম্মদ জাকারিয়া, মহাসচিব সৈয়দ মাহমুদুল হক, ব্যবসায়ী খালেদ হোসেন খান মাসুক, আঞ্জুমানের যুগ্মসচিব নুরুল আলম চৌধুরী, সহকারি সচিব প্রফেসার ড. কাজী মেজবাহ উল আলম মামুন, এনামুল হক চৌধুরী সেলিম প্রমুখ। এর আগে দিনব্যাপী কোরআন খানি, তাওল্লদে গাউছিয়া, মিলাদ নবী(.) বিশেষ মোনাজাতের মাধ্যমে দোয়া কামনা করা হয়। বাদ মাগরিব থেকে গাউসিয়া আহমদিয়া ওলামা পরিষদের উদ্যোগে অধ্যক্ষ দারুত্তালীম মাওলানা নুরুল আবছারের পরিচালনায় শানে বেলায়ত মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।