পাহাড় কেটে স্থাপনা পরিবেশ অধিদপ্তরের দুটি মামলা

নগরের জালালাবাদ

আজাদী প্রতিবেদন | সোমবার , ৮ আগস্ট, ২০২২ at ৬:২৬ পূর্বাহ্ণ

নগরের জালালাবাদ ওয়ার্ডের মাঝেরঘোনা এলাকায় পাহাড় কেটে স্থাপনা নির্মাণের দায়ে বায়েজিদ বোস্তামী থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। সংস্থাটির চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. আবদুল্লাহ আল মতিন বাদী হয়ে গতকাল রোববার মামলা দুটি দায়ের করেন। এর মধ্যে একটি মামলায় আসামি করা হয় পটিয়ার খলিল উদ্দিন ডিগ্রি কলেজের অধ্যাপক উপানন্দ মহাথেরোকে। অপর মামলায় তাকেসহ দুজনকে আসামি করা হয়। অন্য আসামি হচ্ছেন প্রনয়ন চাকমা।
পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মিয়া মাহমুদুল হক বিষয়টি আজাদীকে নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, ৩১ জুলাই পরিবেশ অধিদপ্তরের একটি টিম জালালাবাদ মৌজার মাঝেরঘোনা এলাকা পরিদর্শন করে। এ সময় পরিদর্শন টিম দেখতে পায়, পাহাড় কেটে একটি বৌদ্ধ বিহারের দুটি পাকা স্থাপনা নির্মাণ করা হয়েছে। এর মধ্যে একটি ভবন তিনতলা ফাউন্ডেশন বিশিষ্ট, যার নির্মাণ কাজ চলমান। এছাড়া পাহাড়টির উপরে বিক্ষিপ্তভাবে বিভিন্ন স্পটে কাটা হয়েছে। সব মিলিয়ে ২৪ হাজার ১২০ ঘনফুট পরিমাণ পাহাড় কাটা হয়।
তিনি জানান, পাহাড়টি সরকারি খাস খতিয়ানভুক্ত। সেখানে পাহাড় কাটার কোনো অনুমতি নেয়া হয়নি। পাহাড় কেটে পরিবেশ ও প্রতিবেশ ব্যবস্থার মারাত্মক ক্ষতিসাধন করায় অভিযুক্ত উপানন্দ মহাথেরোকে শুনানির নোটিশ প্রদান করা হয়। ৪ আগস্ট শুনানির ধার্যকৃত দিনে তিনি উপস্থিত হননি। পরে সার্বিক বিবেচনা করে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের সিদ্ধান্ত হয়।
এদিকে একই মৌজায় আরেকটি বৌদ্ধ বিহারের জন্যও পাহাড় কেটে স্থাপনা নির্মাণের প্রমাণ পায় পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শন টিম। সেখানে ৩০০ ফুট উচ্চতা বিশিষ্ট সরকারি খাস খতিয়ানভুক্ত পাহাড়ের চূড়ায় পাহাড় কেটে স্থাপনা নির্মাণ করা হয়েছে। পরিদর্শনকালে একটি একতলা বিশিষ্ট পাকা স্থাপনা দেখা যায়। এ স্থাপনাটি ছাড়াও এর সামনে সাম্প্রতিক সময়ে পাহাড় কাটা হয়েছে। সব মিলিয়ে ৬০ হাজার ঘনফুট পাহাড় কাটা হয়।
পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মিয়া মাহমুদুল হক আজাদীকে জানান, উপানন্দ মহাথেরোর নির্দেশনায় প্রনয়ন চাকমা পার্বত্য এলাকা হতে শ্রমিক এনে পাহাড় কেটেছে। পাহাড় কাটার জন্য কোনো অনুমতি নেয়া হয়নি। এ বিষয়ে তাদের শুনানির নোটিশ দেয়া হয়। ৪ আগস্ট অনুষ্ঠিত শুনানিতে উপানন্দ মহাথেরো উপস্থিত হননি। তবে প্রনয়ন চাকমার পক্ষে একজন আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন। জানা গেছে, নগর কার্যালয়ের পরিচালক হিল্লোল বিশ্বাস শুনানি শেষে মামলা দায়েরের সিদ্ধান্ত দেন। এর প্রেক্ষিতে গতকাল মামলা হয়েছে।