গাজায় শিশুসহ ৩১ মৃত্যু

অস্ত্রবিরতিতে রাজি ইসরায়েল-ফিলিস্তিন

| সোমবার , ৮ আগস্ট, ২০২২ at ৭:৩৪ পূর্বাহ্ণ

গাজায় গতকাল রোববার সন্ধ্যা থেকেই অস্ত্রবিরতি করতে রাজি হয়েছে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন। কায়রোর মধ্যস্থতায় এ সমঝোতা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মিশরীয় নিরাপত্তা কর্মকর্তারা। গাজায় ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী ইসলামিক জিহাদের সদস্যদের লক্ষ্য করে ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর অভিযান এখন পর্যন্ত ৩১ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে বলে জানিয়েছেন গাজার কর্মকর্তারা। খবর বিডিনিউজের।
গত বছরের মে’র ১১ দিনের সংঘর্ষে দুই শতাধিক ফিলিস্তিনি ও ডজনখানেক ইসরায়েলি নিহতের পর গাজায় এবারের সংঘাতকেই সবচেয়ে তীব্র বলা হচ্ছে।
মিশরের এক নিরাপত্তা কর্মকর্তা বলেছেন, ইসরায়েল অস্ত্রবিরতির প্রস্তাবে রাজি হয়েছে। ওদিকে, মিশরের মধ্যস্থতার চেষ্টার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এক ফিলিস্তিনি কর্মকর্তা বলেছেন, অস্ত্রবিরতি স্থানীয় সময় রাত ৮ টা থেকে কার্যকর হবে। তবে গাজায় গত শুক্রবার থেকে লড়াই করে আসা দুই পক্ষ ইসরায়েল এবং ইসলামিক জিহাদ কেউই এ খবরটি নিশ্চিত করে জানায়নি। তারা কেবল কায়রোর সঙ্গে যোগাযোগ করছে বলে জানিয়েছে।
দুই পক্ষের সাম্প্রতিক এই সংঘাতে বিশ্বের শক্তিধর দেশগুলো উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে। যদিও এই সংঘাত আগের তুলনায় কিছুটা সীমিত এবং নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আছে। কারণ, গাজার ক্ষমতাসীন দল হামাস এই সংঘাত থেকে দূরে রয়েছে। হামাস ইরান-সমর্থিত ইসলামিক জিহাদ গোষ্ঠীর তুলনায় অনেক বেশি প্রভাবশালী।
শনিবার গাজার দক্ষিণে রাফায় একটি বাড়িতে বিমান হামলা চালিয়ে ফিলিস্তিনি ইসলামিক জিহাদের (পিআইজে) জ্যেষ্ঠ নেতা খালেদ মনসুরকে হত্যার কথা জানিয়েছে ইসরায়েল। দ্বিতীয় আরেক জিহাদি নেতা তাসির জাবারিকেও ইসরায়েল হত্যা করেছে।
নেতা হত্যার জবাবে রোববার সকাল থেকেই ইসলামিক জিহাদ আক্রমণের পরিসর বাড়ায়। এক বিবৃতিতে তারা জানায়, শহীদদের রক্ত বৃথা যাবে না।