এভাবে জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি মানবিক বিপর্যয় আনবে

২৬ বিশিষ্ট নাগরিকের বিবৃতি

| সোমবার , ৮ আগস্ট, ২০২২ at ৬:২২ পূর্বাহ্ণ

‘দাতা সংস্থার নির্দেশনাকে প্রাধান্য দিয়ে’ জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি দেশে ‘মানবিক বিপর্যয় ডেকে আনতে পারে’ বলে হুঁশিয়ার করেছেন ২৬ জন বিশিষ্ট নাগরিক। গতকাল এক বিবৃতিতে তারা বলেছেন, জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি অশুভ শক্তির হাতকে শক্তিশালী করবে। এই মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত জনজীবনে চরম বিপর্যয় ডেকে আনবে। খবর বিডিনিউজের।
মহামারীর মধ্যে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে মানুষ নানা সংকটের মধ্যে আছে মন্তব্য করে বিবৃতিতে বলা হয়, এই সংকটাপন্ন অবস্থায় জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির ন্যূনতম যৌক্তিকতা থাকলেও হঠাৎ করে পেট্রোল-ডিজেল-অকটেন-কেরোসিনের মূল্যবৃদ্ধির অযৌক্তিক ঘোষণা দেশে নৈরাজ্য ডেকে আনবে। এর ফলে সকল প্রকার উৎপাদন, বণ্টন, পরিবহন খাতে নৈরাজ্য বৃদ্ধি পাবে। ফলশ্রুতিতে সকল প্রকার নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পাবে, মানুষ আরও চরম বিপর্যয়ের মুখোমুখি হবে। সমাজে অশুভ শক্তির তৎপরতা বৃদ্ধি পাবে। দেশে অগ্রযাত্রা, স্থিতিশীলতা বিঘ্ন ঘটবে। জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে জনজীবনে ‘স্বস্তি’ ফেরানোর দাবি জানিয়ে বিবৃতিদাতারা।
বিবৃতিদাতাদের মধ্যে আছেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল, ঐক্য ন্যাপ সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের প্রেসিডিয়াম সদস্য রামেন্দু মজুমদার, ইতিহাসবিদ অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি ডা. সারওয়ার আলী, সামপ্রদায়িকতা জঙ্গিবাদবিরোধী মঞ্চের সদস্য সচিব ড. নূর মোহাম্মদ তালুকদার, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এম এম আকাশ প্রমুখ।