রাঙ্গুনিয়ায় নকল সোনার বার দেখিয়ে প্রতারণা, গ্রেপ্তার ১

রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি | রবিবার , ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২ at ১১:০৬ অপরাহ্ণ

রাঙ্গুনিয়ায় নকল সোনার বার দেখিয়ে প্রতারণাকালে এক প্রতারককে ধরে পুলিশে দিল জনতা।

আজ রবিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার রোয়াজারহাট থেকে তাকে ধরা হয়। তার নাম মোহাম্মদ ইয়াকুব আলী (৩৬)। সে উপজেলার বেতাগী ইউনিয়নের চেংখালী এলাকার মীর আহমদের ছেলে। প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত সিএনজিচালিত অটোরিকশাটিও জব্দ করা হয়। তার বিরুদ্ধে প্রতারণা মামলা রুজু করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ভুক্তভোগী গৃহবধূর সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয়ে শাশুড়ির সাথে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় উঠেন তিনি। ওই অটোরিকশায় চালকসহ বসা ছিল আরও ৪ জন। কিছুদূর যেতেই চালকের পাশে বসা ব্যক্তিটি হুট করে একটি মানিব্যাগ ছুঁড়ে ফেলে দেন অটোরিকশার সামনের সড়কে। তখন অটোরিকশাটি থেমে গেলে গাড়িতে বসা কয়েকজন নেমে ব্যাগটি তুলে নেন। তারপর ব্যাগ হাতে নিয়ে ভেতর থেকে বের করেন একটি চিঠি।

চিঠি পেয়ে সবাই সেজে যান অজ্ঞ। কেউ পড়তে পারেন না, কেউ আবার চোখে দেখেন না। পরে ব্যাগটি দেওয়া হয় ওই গৃহবধূকে। তিনি খুলে দেখেন একটি চিঠি। সেটির ভেতরে টিস্যু দিয়ে মোড়ানো রয়েছে স্বর্ণের বার। টিস্যুটি হাতে নিতেই অজ্ঞান হয়ে যান তিনি। কিন্তু মাঝপথে গিয়ে জ্ঞান ফিরলে টের পান তার গলায়, নাকে, কানে পরিহিত স্বর্ণ নেই। গাড়িতে কোনো সাধারণ যাত্রী ছিল না। চালকসহ সবাই ছিল প্রতারক। আর পূর্ব পরিকল্পিতভাবেই তারা গাড়ির সামনে ব্যাগটি ফেলেছিল।

এটা বুঝতে পেরে ওই প্রতারক চক্রের সদস্যদের ঝাপটে ধরেন তিনি। এসময় সবাই পালিয়ে গেলেও রক্ষা পায়নি অটোরিকশা চালক। এক পর্যায়ে ভুক্তভোগীর চিৎকারে জড়ো হয় সাধারণ মানুষ। এসময় ঘটনা জানতে পেরে প্রতারক চক্রের সদস্য অটোরিকশা চালককে ধরে পুলিশে সোপর্দ করে সাধারণ জনগণ।

প্রতারক চক্রের সদস্যদের সাথে একজন মহিলাও ছিলেন বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহবুব মিলকী বলেন, “প্রতারক চক্রের বাকি সদস্যরা পালিয়ে গেলেও সিএনজিচালিত অটোরিকশাসহ একজন ধরা পড়ে। এই ব্যাপারে মামলা নেয়া হয়েছে। তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে। বাকিদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।”