সচেতনতা

জান্নাতুল ফেরদৌস সোনিয়া

শনিবার , ৫ অক্টোবর, ২০১৯ at ৮:১০ পূর্বাহ্ণ
29

আমরা বাংলাদেশের নাগরিক। এই নাগরিকত্ব আমরা জন্মসূত্রে পাওয়া তা কেউ চিনিয়ে নিতে পারবে না ঠিক তেমনি আমাদের উপর অর্পিত কিছু দায়িত্ব কর্তব্যও রয়েছে। তবে এটা না বললে নয় যে সরকার আমাদের সব ধরনের সুযোগ সুবিধা সহায়তা দিয়ে থাকলেও আমাদের অসচেতনতার কারণে আমরা সব সময় বিপদগ্রস্ত হই। যেমন ধরুন বাইক চালাচ্ছেন আপনি অথচ মাথায় হেলমেট নাই। গাড়ি চালাচ্ছেন আপনি অথচ ড্রাইভিং লাইসেন্স বাসায় ফেলে আসছেন। ওভারব্রিজ রেখে আপনি রাস্তা এপার ঐপার হচ্ছেন। ট্রাফিক শৃঙ্খলা অমান্য করে রাস্তায় যানজট সৃষ্টি করছেন। কানে হেটফোন বা মোবাইলে কথা বলে বলে রাস্তা পার হচ্ছেন। আপনার বাসা/দোকানের ময়লা আবর্জনা যেখানে সেখানে ফেলে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছেন। যার ফলে ডেঙ্গু জন্ম বিস্তার নিচ্ছে এবং পরিবেশ দূষণ করছেন? কেন এমন করছেন? এই দেশ কি আপনার আমার না? আমাদের কি কোন দায়িত্ব কর্তব্য বলে কিছু নেই। আমরা সচেতন হতে পারি না। সরকার বা সরকারি আমলারা কি আপনাদের সচেতনতা করার দায়িত্ব নিয়েছে? না কি বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে রাষ্ট্রের সব কিছু ভোগ করেই যাবেন। নিজেরা কি কখনো ভাগ করবেন না, আমি সরকারি সাফাই গাইছি না, আমি নিজেও সাধারণত পাবলিক, আমার দেখা অনেক অসচেতনতামূলক কর্মকাণ্ড -আমরা আম জনতা করি বলে- দেখতে দেখতে অভ্যস্ত তা -তাই বলতে বাধ্য হলাম . . . রাস্তায় হেঁটে যাবার সময় কুল ড্রিঙ্কস খেয়ে বোতলটি মোড়ের বক্সে না ফেলে ফেলছেন রাস্তার পাশের নালাতে। সেদিন আমার এলাকায় আশেপাশে কিছু দোকানদার দেখলাম তাদের দোকানের কিছু ময়লা আবর্জনা সাফ করে রাস্তার পাশে ফেলে দিলো এবং লোকজন যাতায়াতের বিঘ্ন ঘটে আমি বললাম এখানে কেন ফেললেন আপনি চাইলে তো ডাস্টবিনে ফেলতে পারতেন? তিনি বলে উঠলেন সবাই ফেলে আমি ফেললে কি? তা ছাড়া সিটি কর্পোরেশনের গাড়ি আসলে নিয়ে যাবে? দেখুন এইবার কেমন শিক্ষিত দোকানদার? এর একটু সামনে এগুতে দেখলাম এক শিক্ষিত ভদ্র মহিলা বাসার ময়লা ডাস্টবিন রেখে ডাস্টবিনের আর একপাশে ময়লা ফেলছে? আমি বললাম আপু ডাস্টবিনে ফেলেন, বাহিরে ফেলে আর একটা ডাস্টবিন কেন গড়ছেন? তিনি বললেন সমস্যা নেই সিটি কর্পোরেশনের গাড়ি এসে নিয়ে যাবে? এই হলো আমাদের জনগণের অবস্থান? আরে ভাই সিটি কর্পোরেশন কি অপরাধ করছে যে আপনারা নিজ দায়িত্ব অবহেলা করে যাবেন, আর কর্পোরেশন তা সাফ করে যাবে? অন্যকোন দেশে এমনটি নাই, যা আমাদের দেশে ঘটে। আমাদের দেশে আইন আছে প্রয়োগ নেই, যার কারণে জনগণ অবহেলার জমিনে চাষ করতে বেশ স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে। বাইরের দেশে এই আইন অমান্য করার সাথে সাথে জরিমানা বা পানিশম্যান্ট দেওয়া হয়;তাই তাদের দেশ অনেকটা এগিয়ে। জনগণ সচেতন হলে অনেক অপকর্ম, অনেক পরিবেশ দূষণরোধ, অনেক রোড এঙিডেন্ট মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পাবে। তাই সরকারের আইনের প্রয়োগের পাশাপাশি জনগণের ইচ্ছে শক্তি সচেতনতা পারে বাংলাদেশকে বদলে দিতে। আসুন না আইন মেনে চলি, নিজের সচেতনতা, ইচ্ছে শক্তি পারে নতুন সুন্দর বাংলাদেশ উপহার দিতে।

x