লিপ সেকেন্ড ‘বাদ হচ্ছে’ সময় গণনা থেকে

| বুধবার , ২৩ নভেম্বর, ২০২২ at ১০:৪৭ পূর্বাহ্ণ

গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারে প্রতি চার বছর পরপর এক দিন যোগ হয়। ২৯ ফেব্রুয়ারির ওই বছরগুলো পরিচিত লিপ ইয়ার হিসেবে। এমন যোগ করার ঘটনা যে কেবল দিনের হিসাবে হয়, তা নয়। সময়ের হিসাব ঠিক রাখতে সামঞ্জস্য আনতে হয় সেকেন্ডের বেলাতেও।

তবে, সময়ের হিসাব রাখা বৈশ্বিক সংস্থা বলছে, ২০৩৫ সালের পর থেকে আর থাকবে না এই লিপ সেকেন্ড যোগের বিষয়টি। ফ্রান্সে অনুষ্ঠিত এক সম্মেলনে ২০৩৫ সাল নাগাদ লিপ সেকেন্ড তুলে নেওয়ার পক্ষে ভোট দিয়েছেন বিভিন্ন বিজ্ঞানী ও সরকারী প্রতিনিধিরা। বৈশ্বিক সময়ের হিসাব রাখার দায়িত্বে থাকা সংস্থা ‘ইন্টারন্যাশনাল বুরো অফ ওয়েইটস অ্যান্ড মেজার্স (বিআইপিএম)’ সম্প্রতি জানিয়েছে এ বিষয়ে। খবর বিডিনিউজের।

অধিবর্ষের (লিপ ইয়ার) মতোই, গত অর্ধ শতাব্দির বেশি সময় ধরে সঠিক পারমাণবিক সময় ও অক্ষের ওপর পৃথিবীর ঘূর্ণন সময়ের তারতম্যের ঘাটতি পূরণে ঘড়িতে পর্যায়ক্রমে লিপ সেকেন্ড যুক্ত হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদপত্র গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, লিপ সেকেন্ড বেশিরভাগ লোকজনের অগোচরে থাকলেও এগুলো বিভিন্ন সিস্টেমে সমস্যা তৈরি করতে পারে, বিশেষ করে যেসব ক্ষেত্রে সঠিক ও নিরবচ্ছিন্ন সময়ের প্রবাহ জরুরি। এর মধ্যে রয়েছে স্যাটেলাইট ন্যাভিগেশন, সফটওয়্যার, টেলিযোগাযোগ, বাণিজ্য এমনকি মহাকাশ ভ্রমণও।

বিষয়টি মাথাব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ‘ইন্টারন্যাশনাল বুরো অফ ওয়েইটস অ্যান্ড মেজার্স (বিআইপিএম)’-এর জন্য। সংস্থাটি সমন্বিত বৈশ্বিক সময় পর্যবেক্ষণের দায়িত্ব পালন করে। ২৭ তম ‘জেনারেল কনফারেন্স অন ওয়েটস অ্যান্ড মেজার্সে’ ২০৩৫ সাল নাগাদ লিপ সেকেন্ড সংযোজন বন্ধের একটি পরিকল্পনা পাশ করেছেন সংস্থাটির সদস্যরা। প্রতি চার বছরে একবার এর সভা বসে প্যারিসের পশ্চিমে অবস্থিত ভার্সাই প্যালেসে।