যাত্রী সেজে কেড়ে নিল গৃহবধূর স্বর্ণালঙ্কার

চক্রের এক সদস্য আটক

রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি | সোমবার , ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২ at ১০:১৩ পূর্বাহ্ণ

রাঙ্গুনিয়ায় নকল সোনার বার দেখিয়ে প্রতারণাকালে মোহাম্মদ ইয়াকুব আলী (৩৬) নামে এক প্রতারককে ধরে পুলিশে দিয়েছে জনতা। গতকাল রোববার দুপুরে উপজেলার রোয়াজারহাট থেকে তাকে ধরা হয়। সে উপজেলার বেতাগী ইউনিয়নের চেংখালী এলাকার মীর আহমদের ছেলে। প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত সিএনজি অটোরিকশাটিও জব্দ করা হয়। তার বিরুদ্ধে প্রতারণা মামলা রুজু করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
ভুক্তভোগী গৃহবধূর সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙে চিকিৎসা নিয়ে শাশুড়ির সাথে সিএনজি-অটোরিকশায় উঠেন তিনি। ওই সিএনজিতে চালকসহ বসা ছিলো আরও ৪ জন। কিছুদূর যেতেই চালকের পাশে বসা ব্যক্তিটি হুট করে একটি মানিব্যাগ ছুড়ে ফেলে দেন সিএনজি অটোরিকশার সামনের সড়কে। তখন সিএনজি থেমে গেলে গাড়িতে বসা কয়েকজন নেমে ব্যাগটি তুলে নেন। তারপর ব্যাগ হাতে নিয়ে ভেতর থেকে বের করেন একটি চিঠি। চিঠি পেয়ে সবাই সেজে যান অজ্ঞ। কেউ পড়তে পারেন না, কেউ আবার চোখে দেখেন না। পরে ব্যাগটি দেওয়া হয় ওই গৃহবধুকে। তিনি খুলে দেখেন একটি চিঠি। সেটির ভেতরে টিস্যু দিয়ে মোড়ানো রয়েছে স্বর্ণের বার। টিস্যুটি হাতে নিতেই শাশুড়িসহ সংঙ্গা হারিয়ে ফেলেন দুজন। এ সময় গৃহবধূ নিজের হাতে তার গলায়, নাকে, কানে পরিহিত স্বর্ণ খুলে দিয়ে দেয়। কিন্তু মাঝপথে গিয়ে সংজ্ঞা ফিরে টের পান গাড়িতে কোনো সাধারণ যাত্রী ছিলো না। চালকসহ সবাই ছিলো প্রতারক। আর পূর্ব পরিকল্পিতভাবেই তারা গাড়ির সামনে ব্যাগটি ফেলেছিলো। বুঝতে পেরে ওই প্রতারক চক্রের সদস্যদের ঝাপটিয়ে ধরেন তিনি। এ সময় সবাই পালিয়ে গেলেও রক্ষা পায়নি সিএনজি চালক। একপর্যায়ে ভুক্তভোগীর চিৎকারে জড়ো হয় সাধারণ মানুষ। এ সময় ঘটনা জানতে পেরে প্রতারক চক্রের সদস্য সিএনজি চালককে ধরে পুলিশে সোপর্দ করে সাধারণ জনগণ। প্রতারক চক্রের সদস্যদের সাথে একজন মহিলাও ছিলেন বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী গৃহবধু।
বিষয়টি নিশ্চিত করে রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি মো. মাহবুব মিলকী বলেন, প্রতারক চক্রের বাকি সদস্যরা পালিয়ে গেলেও সিএনজি অটোরিকশাসহ একজন ধরা পড়ে। এই ব্যাপারে মামলা নেয়া হয়েছে। তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে। বাকিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।