পটিয়ায় স্থগিত ভোট কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ ৭ ফেব্রুয়ারি

ভোট কেন্দ্রে অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলা তদন্তের নির্দেশ

পটিয়া প্রতিনিধি | মঙ্গলবার , ২৫ জানুয়ারি, ২০২২ at ৯:৪৭ অপরাহ্ণ

গত ২৬ ডিসেম্বর ৪র্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনে পটিয়া উপজেলার দুই ইউনিয়নের দু’টি ভোট কেন্দ্রে পুনঃভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী মাসের ৭ ফেব্রুয়ারি।

এছাড়াও দু’টি ভোট কেন্দ্রে অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলার বিষয়ে তদন্ত করে ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

আজ মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) পটিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এ তথ্য জানিয়েছেন। স্থগিত কেন্দ্রগুলো হচ্ছে জিরি ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সদস্য এবং ৬নং ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য। কচুয়াই ইউনিয়নের ১নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সদস্য ও ২নং ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য।

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, গত ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত উপজেলার ছনহরা ইউপি নির্বাচনে ২টি ভোট কেন্দ্রে অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলার অভিযোগে ভোটগ্রহণের দিন নির্বাচন স্থগিত করা হয়।

ওই ইউপিতে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুর রশিদ দৌলতী কয়েকটি ভোট কেন্দ্রে পুনঃভোটগ্রহণের জন্য অনিয়মরে প্রমাণ সহ নির্বাচন কমিশনে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এর প্রেক্ষিতে আবেদনটির সত্যতা যাচাই করতে ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত কার্যক্রম সম্পাদন করে প্রতিবেদন প্রেরণের জন্য চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

নির্বাচন কমিশনের সহকারী সচিব মোহাম্মদ আশফাকুর রহমান স্মাক্ষরিত স্মারকমূলে পত্রটিতে তদন্তকারী কর্মকর্তার কার্যপরিধি উল্লেখ করা হয়। তা হলো প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন, সংশ্লিষ্ট প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসারের বক্তব্য গ্রহণ, ভোটকেন্দ্রে নিয়োজিত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সদস্য ও সংশ্লিষ্ট এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটের বক্তব্য গ্রহণ, প্রকৃত দোষী, দায়ী ব্যক্তি, কর্মকর্তাদের চিহ্নিতকরণ এবং অভিযোগ প্রমাণিত ভোটকেন্দ্রে পুনঃভোটগ্রহণ করা হবে কি না সেই বিষয়ক সুপারিশ।

পটিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আরাফাত আল হোসাইনী জানান, গত ২৬ ডিসেম্বর ৪র্থ ধাপে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে স্থগিত হওয়া দুই ইউনিয়নের দুই ভোট কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ ৭ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে।

দুই ইউনিয়নের দুই কেন্দ্রে আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ চলবে।

এছাড়া ছনহরা ইউনিয়নের স্থগিত হওয়া ২টি ভোট কেন্দ্রে অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলা বিষয়ে তদন্তের জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আগামী ৭ কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলেরও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ ডিসেম্বর ৪র্থ দফায় অনুষ্ঠিত পটিয়া ইউপি নির্বাচনে একযোগে ভোটগ্রহণ করা হয়।

তবে, ভোটগ্রহণ চলাকালীন সময়ে ব্যালট ছিনতাই করে তা সিলমারা এবং ব্যালট বাক্সে তা ঢুকিয়ে রাখা, কেন্দ্র দখল করে ভোটকেন্দ্রে পুলিশের উপস্থিতিতে প্রকাশ্যে ব্যালটে সিলমারা ও সহিংসতার কারণে ছনহরা, জিরি ও কচুয়াই ইউপির চার কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন।