টেকসই উন্নয়নের জন্য সুশাসন নিশ্চিত করা জরুরি

সিআইইউতে দিনব্যাপী সেমিনারে অধ্যাপক শফিকুল হক

বৃহস্পতিবার , ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ at ৭:২৬ অপরাহ্ণ

সময় পরিবর্তনশীল। আর উন্নয়ন? সেও যেন ঠিক ঘড়ির কাঁটার মতো থেমে থাকে না একমুহূর্ত। তবে তার জন্য চাই প্রশাসনিক দক্ষতা। চাই সবার সমন্বিত অংশগ্রহণ, কার্যকর পরিচালনা পদ্ধতি কিংবা স্বচ্ছতার স্বীকৃতি।

সুশাসনের নানা দিক নিয়ে চিটাগং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটিতে (সিআইইউতে) অনুষ্ঠিত হলো ‘রিংথিনকিং ডেভেলপমেন্ট, গভর্নেন্স অ্যান্ড গ্লোবালাইজেশন’ শীর্ষক দিনব্যাপী সেমিনার।

সম্প্রতি নগরীর জামাল খান ক্যাম্পাসের কনফারেন্স রুমে সিআইইউর ‘ইন্সটিটিউট অভ গভর্নেন্স, ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজ’ সংক্ষেপে আইজিডিআইএস এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পাশাপাশি মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীরাও অংশ নেন।

অনুষ্ঠানে সেমিনার বক্তার বক্তব্যে কানাডার বিশ্ববিখ্যাত ম্যাকমাস্টার ইউনিভার্সিটির রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ও গবেষক আহমেদ শফিকুল হক উন্নয়ন, সুশাসন ও বিশ্বায়নের গুরুত্বের কথা তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, একটি দেশ অর্থনৈতিকভাবে সাবলম্বী হলেই সেখানে সুশাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে তা বলা যাবে না। সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য আমাদের মৌলিক অধিকারের স্বীকৃতি, জবাবদিহিতা, আইনের শাসন, একতা, মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা, তথ্য অধিকার, নিরপেক্ষতাসহ নানান বিষয়গুলো নিয়ে ভাবতে হবে।

সর্বক্ষেত্রে সুশাসনের কোনো বিকল্প নেই উল্লেখ করে অধ্যাপক আহমেদ শফিকুল হক বলেন, টেকসই উন্নয়নের জন্য সুশাসন নিশ্চিত করা জরুরি। কেবল নীতিমালা প্রণয়নের মধ্যেই এই ধারণা সীমাবদ্ধ রাখা ঠিক নয়।
সেমিনারে অধ্যাপক আহমেদ শফিকুল হক উন্নয়নের ধারণা, সিভিক কালচার, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, মডেল তত্ত্ব, দারিদ্র বিমোচন, গুড গভর্নেন্স, বিশ্বায়ন, চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার নানান কৌশল, নেতিবাচক মনোভাব দূর করার উপায়, জনমতসহ একাধিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

সভাপতির বক্তব্যে সিআইইউর উপাচার্য ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী বলেন, উন্নয়ন ও বিশ্বায়ন -দুটোই হবে জনকল্যাণমুখী। তবে সেই কাঙিক্ষত সেবা মানুষের দোরগড়ায় পৌঁছে দিতে চাই গুড গভর্নেন্স বা সুশাসন।

সেমিনার আয়োজনের বিষয়ে সিআইইউর ইন্সটিটিউট অব গভর্নেন্স, ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজ (আইজিডিআইএস) এর পরিচালক ড. সৈয়দ মনজুর কাদের বলেন, এই ধরণের আয়োজনের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষক-কর্মকর্তা-শিক্ষার্থীকে সুশাসনের মাধ্যমে কীভাবে একটি দেশ কিংবা প্রতিষ্ঠান এগিয়ে যায় সেই বিষয়ে ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করেছি। আশা করছি তাদের ভেতর স্বচ্ছতা, দায়িত্বশীলতা ও জবাবদিহিতার বিষয়গুলো নতুনভাবে জন্ম নেবে।

প্রসঙ্গত: সমসাময়িক নানান ইস্যু নিয়ে সেমিনার-কর্মশালা-গোলটেবিল বৈঠক আয়োজনের পাশাপাশি গুণগত শিক্ষা নিশ্চিতকরণ ও গবেষণামূলক কার্যক্রম বৃদ্ধি করতে সিআইইউর ইন্সটিটিউট অব গভর্নেন্স, ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজের বিভিন্ন পদক্ষেপ ইতোমধ্যে শিক্ষামহলে প্রশংসিত হয়েছে।

x