কৌতুক কণিকা

কৌতুক কণিকা

কিরে, আধ ঘন্টা কথা বলেই ফোন রেখে দিলি যে? তুই তো ২ ঘন্টার আগে ফোন ছাড়িস না। ওটা রং নাম্বার ছিল, বাবা।

কৌতুক কণিকা

রোগী: ডাক্তার সাহেব, আপনি বলছিলেন যে চশমা নিলে আমি পড়তে পারবো। ডাক্তার: অবশ্যই, কোন সন্দেহ নেই। রোগী: তাহলেই ভালোই হলো, আমি তো পড়তে জানতাম না।

কৌতুক কণিকা

আপনি স্ত্রীকে তালাক দিতে চান কেন? ও আমার সাথে ৮ মাস কথা বলছে না। এখনও ভেবে দেখুন। এরকম স্ত্রী আর পাবেন না কিন্তু।

কৌতুক কণিকা

কী ব্যাপার! রুটিতে কেমন যেন গন্ধ পাচ্ছি। রুটিটা পুড়ে গিয়েছিল। তাই মাখনের বদলে স্যাভলন ক্রিম লাগিয়ে দিয়েছি।

কৌতুক কণিকা

বাপের বাড়ি গিয়েই আমি তোমাকে ডিভোর্সের কাগজপত্র পাঠিয়ে দেব। এরকম অবাস্তব কথা বলে আমার মাথাটা আর গরম করে দিও না তো।

কৌতুক কণিকা

এক্সরেতে দেখা যাচ্ছে আপনার পেটে অনেকগুলো চামচ। আপনিই তো বলেছিলেন প্রতিদিন দুই চামচ করে খেতে ।

কৌতুক কণিকা

শরীর ঠিক রাখার জন্য প্রতিদিন খেলাধুলা করবেন। আমি প্রতিদিন ফুটবল খেলি। কতক্ষন খেলেন? যতক্ষন মোবাইলে চার্জ থাকে।

কৌতুক কণিকা

কীরে মন খারাপ কেন? দোস্ত যে গাড়িটা ধাক্কা দিয়েছিল তার পিছনে লেথা ছিল আবার দেখা হবে।

কৌতুক কণিকা

স্যার বিশটা টাকা ভিক্ষা দেন, চা খাব। চা তো দশ টাকা, বিশ টাকা চাইছো কেন? বান্ধবীকে নিয়ে খাব তো, তাই। বাহ্, ভিক্ষুক হয়ে আবার বান্ধবীও জুটিয়েছে? না, বান্ধবীই...

কৌতুক কণিকা

তোমার বেতন হবে ৫ হাজার টাকা। ৬ মাস পর হবে ৮ হাজার। তাহলে কখন যোগ দিচ্ছো ? ৬ মাস পরেই যোগ দেবো।

আরো খবর