হাজারো ভক্তের ঢল

দুই বছর পর রথযাত্রা

আজাদী প্রতিবেদন | শনিবার , ২ জুলাই, ২০২২ at ৫:৩৭ পূর্বাহ্ণ

মহামারি করোনার দুই বছর পর গতকাল শুক্রবার হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা মহাআনন্দে রথযাত্রা উৎসবে মেতে ওঠে। দুপুরের পর রাস্তায় রাস্তায় ভক্তের ঢল নামে রথযাত্রায়। দূরদূরান্ত থেকে ভিড় জমিয়েছেন বহু পুণ্যার্থী। টেনেছেন রথের পুণ্য রশি। ভক্ত ও আয়োজক কমিটির সদস্যদের মাঝে আনন্দ ও উৎসাহ ছিল বাঁধভাঙা। রথযাত্রাকে ঘিরে ছিল বর্ণিল আয়োজন। এছাড়া রথযাত্রা সুষ্ঠু ও নির্বিঘ্নে সম্পন্ন করতে সিএমপির পক্ষ থেকে নেওয়া হয় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। নগরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে মোড়ে ছিল নিরাপত্তা বাহিনীর কঠোর নজরদারী।

প্রতি বছরের মতো এবারও চট্টগ্রামে যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় ও মাঙ্গলিক বর্ণিল আয়োজনে উদযাপিত হয়েছে জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা উৎসব। এ উপলক্ষে দিনব্যাপী আয়োজিন ছিল নগরীর নন্দনকানন রাধামাধব মন্দির ও গৌর নিতাই আশ্রম সম্মুখে ডিসি হিল প্রাঙ্গণে আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইসকন) চট্টগ্রাম, নগরীর প্রবর্তক মোড়ে চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইসকন) এর উদ্যোগে রথযাত্রা, নন্দনকানন তুলসী ধামে।

নন্দনকানন রাধামাধব মন্দির ও গৌর নিতাই আশ্রম : ডিসি হিল প্রাঙ্গণে আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইসকন) চট্টগ্রাম আয়োজিত ২৫তম কেন্দ্রীয় রথযাত্রার রজতজয়ন্তীতে ধর্মীয় মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন, সিটি মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী। তিনি বলেন, জনগণ যার যার ধর্ম পালন করবে। অন্যের ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত দেওয়ার অধিকার কারও নেই। এই দেশের সাম্প্রদায়িক শক্তিকে যারা পৃষ্ঠপোষকতা করবে তাদেরকে শক্ত হাতে মোকাবেলা করা হবে। এই দেশ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ। রথযাত্রায় আশীর্বাদক ছিলেন ভারতের মায়াপুর হতে আগত ইস্‌কনের সন্যাসী অমিয় বিলাস স্বামী মহারাজ, গদাধর গোস্বামী মহারাজ, ভক্তি বিজয় ভাগবত স্বামী মহারাজ। নন্দনকানন ইস্‌কন মন্দিরের অধ্যক্ষ পণ্ডিত গদাধর দাস ব্রহ্মচারীর সভাপতিত্বে ও সুমন চৌধুরীর সঞ্চালনায় উদ্বোধক ছিলেন সহকারী ভারতীয় হাইকমিশনার ডা. রাজীব রঞ্জন। তিনি বলেন, ইসকন প্রতিষ্ঠাতা আচার্য শ্রীল অভয়চরণারবিন্দ ভক্তিবেদান্ত স্বামী প্রভুপাদ এই রথযাত্রার বিশ্বায়ন এক চমৎকার ভূমিকা পালন করেন। ইসকনের বিভিন্ন কার্যক্রম সারাবিশ্বে প্রশংসিত আমি এতে গর্ববোধ করি। নন্দনকানন ইসকন মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক তারণ নিত্যানন্দ দাস ব্রহ্মচারীর স্বাগত বক্তব্য দেন। প্রধান বক্তা ছিলেন, জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি সুকুমার চৌধুরী, চট্টগ্রাম ইস্‌কনের বিভাগীয় সম্পাদক চিন্ময়কৃষ্ণ দাস ব্রহ্মচারী। বিশেষ অতিথি ছিলেন, বিভাগীয় কমিশনার আশরাফ উদ্দিন, সিএমপি কমিশনার সালেহ্‌ মোহাম্মদ তানভীর, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মো. মমিনুর রহমান, জন্মাষ্টমী উদ্‌যাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী প্রবীর সেন, হিন্দু কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি উত্তম শর্মা, নগর ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নিতাই প্রসাদ ঘোষ, জন্মাষ্টমী উদ্‌যাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট চন্দন তালুকদার, সাংবাদিক রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, বাংলাদেশ হিন্দু ফাউন্ডেশনের প্রাক্তন চেয়ারম্যান দিলীপ মজুমদার, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, জেলা পূজা পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অসিম কুমার দেব, মহানগর পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের সভাপতি লায়ন আশিষ ভট্টাচার্য, কাউন্সিলর জহরলাল হাজারী, কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, কাউন্সিলর সলিমুল্লাহ বাচ্চু, কাউন্সিলর পুলক খাস্তগীর, অধ্যাপক পার্থ সারথী চৌধুরী, দেবাশীষ পাল দেবু, কাউন্সিলর নিলু নাগ, কাউন্সিলর রুমকী সেনগুপ্ত, হিল্লোল সেন উজ্জ্বল, অধ্যাপক বনগোপাল চৌধুরী, লিটন শীল, অনিন্দ্য দেব। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন, ইস্‌কন মোহরা মন্দিরের অধ্যক্ষ গৌর দাস ব্রহ্মচারী, অকিঞ্চন গৌর দাস ব্রহ্মচারী, মুকুন্দ ভক্তি দাস ব্রহ্মচারী, বলরাম করুণা দাস, সুবল সখা দাস ব্রহ্মচারী, শেষরুপ দাস ব্রহ্মচারী, অপূর্ব মনোহর দাস ব্রহ্মচারী প্রমুখ। মহাশোভাযাত্রা নন্দনকানস্থ রাধামাধব মন্দির সম্মুখে ডিসি হিল প্রাঙ্গন থেকে শুরু হয়ে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে নন্দনকানন গৌর নিতাই আশ্রমে এসে শেষ হয়। মহাশোভাযাত্রায় চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলা থেকে হাজারো ভক্ত কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ ব্যানার, প্ল্যাকার্ড, ফেস্টুন, পৌরাণিক সাজ ও বাদ্যযন্ত্র নিয়ে যোগদান করে।

আজ শনিবার থেকে ৭ দিনব্যাপী জে এম সেন হলে ভাগবদ সপ্তাহ অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ৮ জুলাই উল্টো রথযাত্রা নন্দনকানন গৌর নিতাই আশ্রম হতে শুরু করে উল্টো পথে নন্দনকানন রাধামাধব মন্দিরে এসে শেষ হবে।

ইসকন প্রবর্তক শ্রীকৃষ্ণ মন্দির : ইসকন প্রবর্তক শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরের উদ্যোগে রথযাত্রা উপলক্ষে দিনব্যাপী বর্ণিল মাঙ্গলিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানামালার আয়োজন করা হয়। সকালে বিশ্বশান্তি ও মঙ্গল কামনায় অগ্নিহোত্র যজ্ঞানুষ্ঠান, দুপুর ১টায় জগন্নাথ লীলা বিষয়ক প্রবচন, দুপুর দেড়টায় মহাপ্রসাদ বিতরণ, দুপুর ২টায় ভাগবতীয় আলোচনা সভা, দুপুর ৩টায় হয় বিগ্রহগণের রথারোহন ও মহাশোভাযাত্রা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও সমপ্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন সিটি মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মো. মমিনুর রহমান, চট্টগ্রামস্থ ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার ডা. রাজীব রঞ্জন, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক এম এ সালাম। পরে গৌর দাস ব্রহ্মচারীর নেতৃত্বে গোলপাহাড় মোড় থেকে রথ পরিক্রমা শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। উল্লেখ্য, আগামী ৮ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে উল্টো রথযাত্রা উৎসব।

তুলসীধাম : তুলসীধাম রথযাত্রা উৎসব উদযাপন কমিটির উদ্যোগে নগরের নন্দনকানন রথের পুকুর পাড় থেকে শুরু হয় রথযাত্রা উৎসব। এতে বিভিন্ন সংগঠনের ভক্তরা ব্যানার, প্ল্যাকার্ড, ফেস্টুন, পৌরাণিক সাজ ও বাদ্যযন্ত্র নিয়ে অংশ নেয়। তুলসীধামের মোহন্ত দেবদীপ পুরী মহারাজের পৌরহিত্যে উৎসব উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম নিযুক্ত ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার ডা. রাজীব রঞ্জন। আশীর্বাদক ছিলেন পাহাড়তলী কৈবল্যধামের মোহন্ত মহারাজ কালীপদ ভট্টাচার্য্য। প্রধান অতিথি ছিলেন সিএমপি কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর।

রথযাত্রা উৎসব উদযাপন কমিটির সভাপতি রঞ্জন প্রসাদ দাশগুপ্তের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শ্যামদাশ ধরের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন, অধ্যাপক প্রণব মিত্র চৌধুরী, কাউন্সিলর জহরলাল হাজারী, কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, কাউন্সিলর পুলক খাস্তগীর ও কাউন্সিলর রুমকী সেনগুপ্ত, অনুপ বিশ্বাস, মো. সাহাবউদ্দিন। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন, বিধান ধর ও হিরন্ময় ধর। অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন ডা. বিনয় পাল। এসময় অতিথিদের রথযাত্রা উদযাপন কমিটির পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক দেওয়া হয়। অতিথিরা তপোবন রথযাত্রা সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন করেন।

রাধাগোবিন্দ ও শান্তনেশ্বরী মাতৃমন্দির : পাথরঘাটাস্থ রাধাগোবিন্দ ও শান্তনেশ্বরী মাতৃমন্দিরের ভক্তদের উদ্যোগে শ্যামনন্দ দাস (শ্যামল সাধু) মোহন্ত মহারাজের পৌরহিত্যে জগন্নাথ দেবের রথযাত্রায় মহাশোভাযাত্রা মন্দির প্রাঙ্গন থেকে যাত্রা শুরু করে। রথটানা উৎসব দর্শন করতে পারা পরম সৌভাগ্যের। জগন্নাথের রথ পরিভ্রমণকালে সড়কে দুপাশে দাড়িয়ে ভক্তবৃন্দ উলুধ্বনি, পুষ্পসহ আকাক্সিক্ষত দ্রব্যাদি নিবেদন করে কৃপা প্রার্থনা করেন। এছাড়া জগন্নাথ দেবের রথ থেকে প্রতিনিয়ত প্রসাদ সামগ্রী ভক্তদের উদ্দেশে বিতরণ করতে থাকে। জগন্নাথ দেবের রথ নগর পরিভ্রমণ করে মাসীর বাড়িতে পৌঁছান সন্ধ্যায়। মাসির বাড়ীতে সপ্তাহকাল অবস্থান করে পুনরায় মূল মন্দিরে উল্টোরথ রথযাত্রার মাত্রার মাত্রার মাধ্যমে ফিরে আসবেন।

পটিয়া : হুইপ সামশুল হক চৌধুরী বলেছেন, আ. লীগ সরকার সকল ধর্মের মানুষের সমান অধিকার নিশ্চিতে কাজ করছেন। গতকাল শুক্রবার পৌর সদরের সুচক্রদন্ডী জগন্নাথ বাড়ি মিলন মন্দিরের উদ্যোগে রথযাত্রা অনুষ্ঠানের উদ্বোধনে তিনি এ কথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন পটিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. তিমির বরণ চৌধুরী, আবদুল খালেক চেয়ারম্যান, দেবব্রত দাশ দেবু, আলমগীর আলম, এম এন এ নাছির, সাংবাদিক শিবু কান্তি দাশ, মিলন মন্দির সেক্রেটারী স্বপন বিশ্বাস, প্রদীপ বিশ্বাস, নাজিম উদ্দিন, দেবশ্রী চক্রবর্তী, শফিকুল ইসলাম প্রমূখ।

রাউজান : রাউজান প্রতিনিধি জানান, সংসদ সদস্য এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী উপজেলা সদরে জগন্নাথ মন্দিরে রথযাত্রা উৎসব ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে উদ্বোধন ঘোষণা করেন। দিলীপ কুমার চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে ও প্রদীপ শীল ও তপন দের সঞ্চালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন, পৌর মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শ্যামল পালিত, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল হারুন, রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম, চেয়ারম্যান পিয়োতোষ চৌধুরী, সুমন দে, ম্যালকম চক্রবর্তী।

বাঁশখালী : বাঁশখালী প্রতিনিধি জানান, উপজেলার সাধনপুরের ঐতিহ্যবাহী জগন্নাথ ধামের উদ্যোগে রথযাত্রা অনুষ্টিত হয়। গতকাল শুক্রবার সাধনপুর ও বাঁশখালীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত ধর্মপ্রাণ সুধীদের অংশগ্রহণে প্রধান সড়ক এবং সাধনপুরের বিভিন্ন সড়কে প্রদক্ষিণ করেন। রথযাত্রা শেষে আলোচনা সভা ডা. স্বপন দের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। উদ্বোধক ছিলেন চন্দন তলাপাত্র, প্রধান অতিথি ছিলেন সাধনপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান কে এম সালাউদ্দিন কামাল, অতিথি ছিলেন লায়ন শেখর দত্ত, বিশেষ অতিথি ছিলেন করুণাাময় ভট্রাচার্য, দীপ্তি দাশ, মো. দেলোয়ার হোসেন, নন্দন দে, শিল্পী দেব, প্রদ্যুৎ মিত্র চৌধুরী প্রমুখ।

বান্দরবান : বান্দরবান প্রতিনিধি জানান, জগন্নাথদেবের রথযাত্রা উৎসব গতকাল শুক্রবার পালিত হয়েছে। বান্দরবান বাজারের আওয়ামী লীগ মোড় থেকে রথযাত্রা উৎসব কমিটির ব্যানারে রথযাত্রা উৎসবের উদ্বোধন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বান্দরবানের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক লুৎফর রহমান, বান্দরবান পুলিশ সুপার জেরীন আখতার, লক্ষ্মী পদ দাস, জনী সুশীল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।