সাতকানিয়ায় সড়কের ইট চুরিকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত ৮

সাতকানিয়া প্রতিনিধি | শনিবার , ৪ ডিসেম্বর, ২০২১ at ৮:২৯ অপরাহ্ণ

সাতকানিয়ায় রাতের আঁধারে সড়কের ইট চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ ৮ জন আহত হয়েছে। আজ শনিবার (৪ ডিসেম্বর) দুপুরে উপজেলার খাগরিয়া ইউনিয়নের চর খাগরিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী জানায়, খাগরিয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে জেলা পরিষদের অর্থায়নে চর খাগরিয়া আলী রেজা সড়কের আরসিসি দ্বারা উন্নয়নের কাজ চলছে। ফলে ওই সড়কের পুরাতন ইটগুলো তুলে পাশে স্তূপ করে রাখা হয়েছে। চর খাগরিয়া চেয়ারম্যান পাড়ার বাসিন্দা আবদুস শুক্কুর রাতের আঁধারে সেখান থেকে কিছু ইট চুরি করে নিয়ে যায়। পরে বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর শুক্কুরের বাড়ি থেকে কিছু ইট উদ্ধারও করা হয়।

এদিকে, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে খাগরিয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সাবেক দুই সদস্য নুর হোসেন বচন ও মো. আমিরুজ্জামানের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। সড়কের ইট চুরির ঘটনায় জড়িত আবদুস শুক্কুর নুর হোসেন বচনের অনুসারী।

ফলে আমিরুজ্জামানের অনুসারীরা ইট চুরির বিষয়টি এলাকায় প্রচার এবং প্রতিবাদ করে।

এক পর্যায়ে আজ শনিবার দুপুরে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে গুলিবর্ষণের ঘটনাও ঘটে।

এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ সহ উভয় গ্রুপের ৮ জন আহত হয়।

আহতরা হলো এমরান হোসেন (৩৫), জাহাঙ্গীর আলম (৩৩), উমর আলী (৫২), মো. আবু (৪৭), জসীম উদ্দিন (৩৮), আবদুর রহিম (৪২), নাজিম উদ্দিন সুমন (৪৬) ও মো. মিয়া (২৯)।

আহতদেরকে দোহাজারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সহ স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

তাদের মধ্যে এমরান হোসেন সহ কয়েকজনকে দোহাজারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

এক গ্রুপের নেতৃত্বদানকারী নুর হোসেন বচন বলেন, “মসজিদ নিয়ে বিরোধের জের ধরে সাবেক ইউপি সদস্য আমিরুজ্জামানের লোকজনের সাথে আমাদের দীর্ঘদিনি ধরে বিরোধ চলে আসছে। আমিরুজ্জামানের লোকজন ইতিপূর্বে আমার লোকজনের উপর একাধিকবার হামলা চালিয়েছে। সর্বশেষ গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যার পর আমার পক্ষের আবদুস শুক্কুরকে একা পেয়ে আমিরুজ্জামানের নেতৃত্বে মারধর ও গালিগালাজ করেছে।”

তিনি বলেন, “আজ শনিবার দুপুরে আমার অনুসারী মো. ওসমানকে আটক করে মারধর করেছে এমন খবর ছড়িয়ে পড়লে লোকজন সংগঠিত হয়ে সেখানে যায়। তখন উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে আমার পক্ষের চারজন আহত হয়েছে।”

অপর গ্রুপের নেতৃত্বদানকারী মো. আমিরুজ্জামান বলেন, “আমার এবং বচনের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসার বিষয়টি সত্য কিন্তু আজকের ঘটনার সাথে অতীতের বিরোধের কোনো সম্পর্ক নাই। চর খাগরিয়া আলী রেজা সড়কের উন্নয়ন কাজ চলছে। ফলে সড়কের পুরাতন ইটগুলো তুলে রাখা হয়েছে। আবদুস শুক্কুর নামের একজন সেখান থেকে ইট চুরি করে নিয়ে গেছে। ইট চুরির বিষয়টি জানাজানি হওয়ার এলাকার মানুষ প্রতিবাদ করেছে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বচন মেম্বার ও তার পক্ষের লোকজন প্রতিবাদকারীদের উপর হামলা ও গুলি চালিয়েছে। এতে গুলিবিদ্ধসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে।”

সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন জানান, চর খাগরিয়া এলাকায় একটি সড়কের আরসিসি দ্বারা উন্নয়নের কাজ চলছে। ফলে পুরাতন ইটগুলো তুলে রেখে দেয়া হয়েছে। আবদুস শুক্কুর নামের একজন সেখান থেকে রাতের অন্ধকারে ইট চুরি করে নিয়ে যায়। পরে বিষয়টি জানাজানি হওয়ার স্থানীয় লোকজন প্রতিবাদ করে এবং চুরি হওয়া কিছু ইট উদ্ধার করে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পূর্ব থেকে বিরোধীয় দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে কয়েকজন আহত হয়েছে। তবে এখনো পর্যন্ত থানায় কেউ কোনো ধরনের অভিযোগ দায়ের করেনি।