শ্রীলঙ্কায় কেন একটি জাদুঘরে হামলা চালাল বিক্ষোভকারীরা?

| শুক্রবার , ১৩ মে, ২০২২ at ৬:৪৯ পূর্বাহ্ণ

শ্রীলঙ্কায় সরকারবিরোধী অস্থিরতায় বেশ কয়েকজনের মৃত্যু ও অসংখ্য মানুষের আহত হওয়ার তুলনায় তাৎপর্য সামান্য হলেও চলতি সপ্তাহে বিক্ষোভকারীদের রুদ্ররোষে একটি জাদুঘরের ধ্বংসস্তুপে পরিণত হওয়ার প্রতীকী গুরুত্বও অনেক। ওই রাজাপাকসে জাদুঘরের অবস্থান দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের হাম্বানটোটায়, যে এলাকাটি ক্ষমতাসীন রাজাপাকসে পরিবারের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত। খবর বিডিনিউজের।

এটি তৈরি হয়েছিল বর্তমান প্রেসিডেন্ট গোটাবায়া রাজাপাকসে ও তার বড় ভাই মাহিন্দা রাজাপাকসের বাবা-মা’র স্মৃতির উদ্দেশ্যে, মাহিন্দা নিজেও এককালে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট ছিলেন। জাদুঘরটিতে প্রয়াত ডন আলভিন রাজাপাকসে ও তার স্ত্রী দারদিনার ছবি, কাপড়চোপড়, গৃহস্থালি জিনিসপত্র ও হাতে লেখা চিঠি প্রদর্শনের জন্য রাখা হয়েছিল বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি। বিক্ষোভকারীরা সোমবার ওই জাদুঘরে হামলা চালিয়ে আলভিন ও দারদিনার মোমের মূর্তি গুড়িয়ে দেয় এবং ভবনটিতে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়।

এর মাধ্যমে সম্ভবত তারা রাজাপাকসে পরিবারের চেয়েও অন্য কিছুর ওপর তাদের ক্ষোভ ঝেড়েছে বলে ধারণা বিশ্লেষকদের। বিবিসি বলছে, মেদা মুলানা গ্রামে অবস্থিত এই জাদুঘরটি কথিত দুর্নীতির প্রতীকে পরিণত হয়েছিল। ২০১৪ সালে এটি খুলে দেওয়ার সময় মাহিন্দা ছিলেন প্রেসিডেন্ট, গোটাবায়া তখন ভাইয়ের প্রশাসনের প্রতিরক্ষা সচিব ছিলেন। গোটাবায়া এই জাদুঘরটি বানিয়েছেন ব্যক্তি মালিকানাধীন জমিতে কিন্তু রাষ্ট্রের অর্থে। জাদুঘরটির নির্মাণ কাজে জনশক্তি সররবাহে শ্রীলঙ্কার নৌবাহিনীকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। গোটাবায়ার দায়িত্বে থাকা প্রতিরক্ষা ও নগর উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ও নকশা প্রস্তুত ও অন্যান্য প্রাথমিক কাজে জড়িত ছিল।