মানসিক স্বাস্থ্য নজরে রাখার ফিচারে আগ্রহ অ্যাপলের?

| বৃহস্পতিবার , ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১ at ১১:৪৫ পূর্বাহ্ণ

আইফোন ব্যবহার করেই যাতে বিষণ্নতা ও উদ্বেগের মতো মানসিক অবস্থা শনাক্ত ও নির্ণয় করা যায়, সে রাস্তা তৈরিতে কাজ করছে অ্যাপল। অন্তত তা-ই বলছে সমপ্রতি সামনে আসা তথ্য। গবেষকরা আশা করছেন, চলাচল, ঘুমের গতিপ্রকৃতি এবং কীভাবে মানুষ টাইপ করেন-এ ধরনের ডেটা বিশ্লেষণ করে মানসিক অবস্থার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আচরণ শনাক্ত করা যাবে। খবর বিডিনিউজের।
মানসিক অবস্থা পরিমাপের অন্যান্য মাপকাঠিগুলো হতে পারে মুখের অভিব্যক্তি বিশ্লেষণ, হৃদস্পন্দন ও নিশ্বাসের হার। ডেটা বিশ্লেষণের পুরো প্রক্রিয়াটিই ডিভাইসে হবে এবং কোনো ডেটাই অ্যাপল সার্ভারে যাবে না। সমপ্রতি এ প্রসঙ্গে জানিয়েছে ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদন। জার্নালের দাবি, অ্যাপল এ বিষয়গুলোর গবেষণা প্রকল্প নিয়ে কাজ করছে। পরে এ থেকেই তৈরি করা হতে পারে ফিচার। এ রকমই এক গবেষণা শুরু হবে এ বছর। তিন হাজার স্বেচ্ছাসেবককে অ্যাপল ওয়াচ ও আইফোন ডেটা বিশ্লেষণের মাধ্যমে ট্র্যাক করবে ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়া, লস অ্যাঞ্জেলস (ইউসিএলএ)। গবেষকরা আইফোন ও অ্যাপল ওয়াচের ডেটা মিলিয়ে দেখবেন স্বেচ্ছাসেবকদের পূরণকৃত প্রশ্নোত্তরের সঙ্গে। অন্যদিকে, গত বছরের আগস্টে অ্যাপল ও ইউসিএলএ তিন বছরের গবেষণার ঘোষণা দিয়েছিল। ওই গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের চুলের ফসিল থেকে মানসিক চাপের হরমোন কর্টিসল পরিমাপ করার কথা রয়েছে। জানুয়ারিতে আরও একটি গবেষণার কথা জানিয়েছিল অ্যাপল এবং বায়োজেন। দুই বছরের ওই গবেষণায় ‘কগনিটিভ ফাংশন’ নজরে রাখবেন গবেষকরা। এই গবেষণাগুলোর ডেটা বিষণ্নতা ও উদ্বেগের ডেটার উপসর্গের সঙ্গে মিলে গেলে অ্যাপল হয়তো তা ফিচার তৈরিতে ব্যবহার করতে পারে। ফিচারটির মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা আগেভাগেই সতর্কবার্তা পাবেন, আইফোন হয়তো ব্যবহারকারীদের সাহায্য নেওয়ার ব্যাপারেও বলতে পারে। এখনও অ্যাপল ও অংশীদাররা এ কাজের প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। ফলে এরকম কিছু আসলেও অন্তত কয়েক বছর সময় লাগবে।