বিশ্বকাপে বুঁদ হয়ে আছেন এমবাপে

স্পোর্টস ডেস্ক | মঙ্গলবার , ৬ ডিসেম্বর, ২০২২ at ২:৫১ পূর্বাহ্ণ

বিশ্ব ফুটবলে নিজেকে জানান দিয়েছিলেন আগেই। মাত্র ১৮ বছর বয়সে বিশ্ব সেরার মঞ্চ রাঙিয়েছেন কিলিয়ান এমবাপে। রাশিয়ায় পেয়েছেন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বাদ। মাঝের চার বছরে তিনি আরও পরিণত হয়েছেন। কাতারের এমবাপে তাই আরও নিখুঁত এবং ভয়ঙ্কর। তার দলও এগিয়ে চলেছে দারুণভাবে। কোয়ার্টার-ফাইনাল নিশ্চিত করার পর তারকা এই ফরোয়ার্ড বললেন, বিশ্বকাপ তার স্বপ্নের প্রতিযোগিতা এবং কাতারে শিরোপা উঁচিয়ে ধরার জন্য নিজেকে শারীরিক ও মানসিকভাবে প্রস্তুত করেছেন তিনি।

২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে ৪ গোল করেছিলেন এমবাপে। ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ৪-২ গোলে জেতা ফাইনালেও জালের দেখা পেয়েছিলেন পিএসজির এই ফুটবলার। আরেকটি বিশ্বকাপ আসতে আসতে তার ক্লাব ও জাতীয় দলের জন্য তিনি হয়ে উঠেছেন আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। সময়ের সেরা ফুটবলারদের একজন এখন এমবাপে। চলতি আসরে চোটের কারণে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকজন খেলোয়াড়কে হারিয়েছে ফ্রান্স। তারপরও বেশ শক্তিশালী দু’বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। দলটির আক্রমণের নেতৃত্বে আছেন এমবাপে।

গ্রুপ পর্বে তিন গোল করার পর শেষ ষোলোয় আরও বেশি আলো ছড়ান তিনি; রোববার পোল্যান্ডের বিপক্ষে ৩-১ ব্যবধানে জয়ে দুটি গোল করেন ২৩ বছর বয়সী তারকা। দর্শনীয় গোল দুটি করার পথে দুটি কীর্তি গড়েন এমবাপে। বয়স ২৪ বছর হওয়ার আগে বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ডে পেলেকে (৭) ছাড়িয়ে এককভাবে চূড়ায় এখন এমবাপে, তার গোল এখন ৯টি। একই সঙ্গে ভেঙে দেন পর্তুগিজ গ্রেট ইউসেবিওর সবচেয়ে কম বয়সে বিশ্বকাপের আট গোলের রেকর্ডও। ২৪ বছর ১৮২ দিন বয়সে ৮টি গোল করেছিলেন ইউসেবিও। এমবাপে তা করে ফেলেছেন ২৩ বছর ৩৪৯ দিন বয়সে।

পোল্যান্ড ম্যাচের পর বিশ্বকাপ নিয়ে নিজের স্বপ্নের কথা শোনান এমবাপে। তিনি বলেন, ব্যক্তিগত অর্জন ছাপিয়ে তার একমাত্র লক্ষ্য ফ্রান্সকে তৃতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ জেতান। ‘আমি এই বিশ্বকাপে বুঁদ হয়ে আছি। এটি আমার স্বপ্নের প্রতিযোগিতা। আমি এই প্রতিযোগিতা ঘিরেই পুরো মৌসুমের পরিকল্পনা সাজিয়েছি।

বিশ্বকাপ জেতার জন্য নিজেকে শারীরিক ও মানসিকভাবে পুরোপুরিভাবে প্রস্তুত করেছি, নিজের জন্য আমি এটাকেই লক্ষ্য নির্ধারণ করেছি, যদিও এটি এখনও অনেক দূরে। আমার একমাত্র লক্ষ্য হলো বিশ্বকাপ জেতা, বাকি সব গৌণ। এ তারকা বলেন, আমি এখানে গোল্ডেন বুট নয়, বিশ্বকাপ জিততে এসেছি। আমি যদি বুট জিতি, তাহলে অবশ্যই খুশি হবো। কিন্তু আমি এখানে ওটার জন্য আসিনি। আমি জাতীয় দলকে সাহায্য করতে এসেছি।’ কোয়ার্টার-ফাইনালে আগামী ১০ ডিসেম্বর এমবাপে-জিরুদদের প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড।