দুর্দান্ত মরক্কোর ইতিহাস বিদায় স্পেন

ক্রীড়া প্রতিবেদক | বুধবার , ৭ ডিসেম্বর, ২০২২ at ১০:১০ পূর্বাহ্ণ

গ্রুপ পর্ব থেকেই দুর্দান্ত আফ্রিকার প্রতিনিধি মরক্কো। ক্রোয়েশিয়ার সঙ্গে ড্র, বেলজিয়াম এবং কানাডাকে হারিয়ে শেষ ষোলোতে পদার্পণ। আর গতকাল মঙ্গলবার ১২০ মিনিটের রোমাঞ্চকর তুমুল লড়াই শেষে সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন স্পেনকে টাইব্রেকারে হারিয়ে প্রথমবারের মতো পৌঁছে যায় বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালের মঞ্চে।
দুদলের ১২০ মিনিটের খেলা ছিল গোলশূন্য অমিমাংসিত। ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে খেলতে থাকে মরক্কো ও স্পেন। বেশ কিছু সুযোগ পেলেও গোল করতে ব্যর্থ হয় তারা।

শেষ পর্যন্ত কোনো গোল না হলে গোলশূন্য থেকেই বিরতিতে যায় স্পেন ও মরক্কো। এরপর বিরতি থেকে ফিরেও গোল না হলে অতিরিক্ত সময়ে গড়ায় ম্যাচটি। অতিরিক্ত সময়েও গোলের দেখা না পেলে শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে গড়ায় ম্যাচটি। টাইব্রেকারে দুটি দারুন সেভ দিয়ে মরক্কোর জয়ের নায়ক বনে যান ইয়াসিন বউনো। শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে ৩-০ গোলের ব্যবধানে হেরে বিশ্বকাপ থেকে অপ্রত্যাশিতভাবে বিদায় নেয় শিরোপার অন্যতম দাবিদার স্পেন।

এর আগে নির্ধারিত সময়ের পর অতিরিক্ত সময়ে গোলের আশায় মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে দু’দল। ম্যাচের ৯৪তম মিনিটে বল নিয়ে এগিয়ে যায় ওয়ালিদ চেদ্দারি। তবে গোল করতে ব্যর্থ হন তিনি। ৯৭ মিনিটে সুযোগ আসে স্পেনের সামনে। তবে বাম দিক থেকে ভেসে আসা বলে মাথা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হয় মোরাতা। ম্যাচের ১০০তম মিনিটে আবারও সুযোগ আসে স্পেনের সামনে। এবার মোরাতার বাড়ানো বলে মাথা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হলে গোল পাওয়া হয় না স্পেনের। ম্যাচের ১০৩তম মিনিটে ডি বঙের বাইরে থেকে শট করে রদ্রিগো। তবে তা চলে যায় ক্রসবারের অনেক ওপর দিয়ে। ১০৪তম মিনিটে আক্রমণে যায় মরক্কো।

ওয়ালিদ চেদ্দারির নেওয়া শট দারুণ সেভে দলকে রক্ষা করেন উনাই সিমন। গোল করতে ব্যর্থ হলে গোলশূন্য থেকে অতিরিক্ত সময়ের প্রথমার্ধ্ব শেষ করে স্পেন ও মরক্কো। বিরতি থেকে ফিরে অতিরিক্ত সময়ের ১০৬তম মিনিটে আক্রমণে ওঠে স্পেন। তবে গোল করতে ব্যর্থ হয় তারা। এরপর আরও কিছু আক্রমণ করে দু’দল। তবে গোলের দেখা পায় না কেউ। ম্যাচের ১১৫ মিনিটে কাউন্টার অ্যাটাক থেকে গোলের সুযোগ তৈরি করলেও বল জালে জড়াতে ব্যর্থ হন ওয়ালিদ চেদ্দারি। ১১৭ মিনিটে বল নিয়ে এগিয়ে যায় মোরাতা। গোলের সুযোগ সৃষ্টি করলেও গোল করতে ব্যর্থ হয় স্পেন। শেষ পর্যন্ত গোলের দেখা না পেলে টাইব্রেকারে গড়ায় প্রতিদ্বন্দ্বিতাময় ম্যাচটি।

টাইব্রেকারে মরক্কোর পক্ষে প্রথম শট নিয়ে গোল করেন আব্দেল হামিদ সাবিরি। স্পেনের পক্ষে প্রথম শটে বল সাইড বারে লাগান পাবলো সাবারিয়া। এরপর মরক্কোর পক্ষে দ্বিতীয় শট থেকে গোল করে ব্যবধান বাড়ান হাকিম জিয়েস। স্পেনের দ্বিতীয় শট নিতে আসেন কার্লো সোলের। তার শট ঠেকিয়ে দেন মরক্কোর গোলরক্ষক ইয়াসিন বউনো। এরপর মরক্কোর পক্ষে তৃতীয় শট নিতে আসেন বার্ড বেনেউ।

তার শট ঠেকিয়ে দেন স্পেনের গোলরক্ষক উনাই সিমন। তবে স্পেনের তৃতীয় শট নিতে আসা সার্জিও বুস্কেটের শটও ঠেকিয়ে দেন ইয়াসিন বউনো। এরপর মরক্কোর পক্ষে চতুর্থ শট নিতে আসা আশরাফ হাকিমি গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করলে স্টেডিয়াম জুড়ে উল্লাসে ফেটে পড়ে মরক্কোর খেলোয়াড়, সমর্থকরা।