আলোর তরঙ্গ যখন উচ্চগতির ইন্টারনেট সংযোগের মাধ্যম!

| সোমবার , ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১ at ১০:২৬ পূর্বাহ্ণ

বায়ুমণ্ডলে ছুঁড়ে দেওয়া আলোর তরঙ্গের মধ্য দিয়ে উচ্চগতির ইন্টারনেট সংযোগ স্থাপনে সক্ষম হয়েছেন গবেষকরা। ইন্টারনেট সংযোগ স্থাপনের এই অভিনব মাধ্যমের বদৌলতে সংযুক্ত হয়েছে আফ্রিকার দুই দেশের দুটি শহর–ব্রাজাভিল এবং কিনশাসা। খবর বিডিনিউজের।
বিবিসি জানিয়েছে, ইন্টারনেট সংযোগের এই অভিনব কায়দার প্রয়োগ ঘটানো হয়ে অ্যালফাবেট এঙ-এর ‘প্রজেক্ট তারা’র অধীনে। অ্যালফাবেট এঙ আদতে সার্চ জায়ান্ট গুগলের মূল প্রতিষ্ঠান অ্যালফাবেট ইনকর্পোরেটেডের অধীন গবেষণা ও উদ্ভাবনী সংস্থা। বিভিন্ন উদ্ভাবনী প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করে সংস্থাটি, অনেক ক্ষেত্রেই থাকে কঠোর গোপনীয়তা। নিজেদের সর্বশেষ সাফল্য নিয়ে অ্যালফাবেট এঙ দল এক ব্লগ পোস্টে জানিয়েছে, সর্বশেষ পরীক্ষাটি রিপাবলিক অফ কঙ্গোর শহর ব্রাজাভিল এবং ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অফ কঙ্গোর শহর কিনশাসার মধ্যে বেশ একগুঁয়ে একটি সংযোগ শূন্যতা পূরণ করেছে। উল্লেখ্য, নাম প্রায় একই হলেও রিপাবলিক অফ কঙ্গো এবং ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অফ কঙ্গো আদতে দুটি আলাদা দেশ। ১৯৬০ সালে ইউরোপীয় ঔপনিবেশিক দখলদারিত্ব থেকে প্রায় একই সময়ে স্বাধীনতা পায় দেশ দুটি। ব্রাজাভিল এবং কিনশাসা, দুই শহরের মধ্যকার দূরত্ব কেবল পাঁচ কিলোমিটার হলেও মাঝের নদীর কারণে প্রচলিত পদ্ধতিতে ফাইবার কেবল দিয়ে দুই শহরের মধ্যে ইন্টারনেট সংযোগ স্থাপন করা জটিল ও ব্যয়বহুল ছিলো। ইন্টারনেট কেবল নদীর পাড় ঘুরিয়ে নেওয়ায় ব্রডব্যান্ড সংযোগের খরচ বেড়ে গিয়েছিলো পাঁচ গুণ বেশি। এই সমস্যার আংশিক সমাধান করেছে অ্যালফাবেট এক্স-এর আলোর মাধ্যমে ইন্টারনেট সংযোগ স্থাপনের ব্যবস্থা বা দ্য ওয়্যারলেস অপটিকাল কমিউনিকেশন সিস্টেম।