আত্মশুদ্ধি

শফিকুল আলম

রবিবার , ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ at ৯:০৬ পূর্বাহ্ণ
14

তৎকালীন সময় বর্তমান সময়ের মধ্যে কোন তফাত খুঁজে পাচ্ছি না। যখন হযরত মুহাম্মদ সাঃ জন্মগ্রহণ করলেন, তখন আরবসহ পুরো পৃথিবীতে জুলুম, নির্যাতন, নারীদের অধিকার হরণ, কন্যা সন্তানকে জীবন্ত কবর, নারীরা ছিল নির্যাতিত, নিষ্পেষিত, অবহেলিত, অপদস্থ ইত্যাদি। মদ, জুয়া, দিবালোকে খুন, ধর্ষণ, রাহাজানি, রাজনৈতিক উচ্ছৃঙ্খল, সামাজিক উচ্ছৃঙ্খল, অর্থনৈতিক ধস, সুদ, ঘুষ, কালো বাজার, পারিবারিক দ্বন্দ্ব, সামাজিক অনাচার, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা, ব্যক্তি-ব্যক্তি দলাদলি, বংশ- বংশ যুদ্ধ ইত্যাদি ব্যভিচারে লিপ্ত ছিল মানুষ। সেই মুহূর্তে জন্ম নিলেন বিশ্ব মানবতার মুক্তির দূত হযরত মুহাম্মদ মুস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম। আর তিনি এই কলোষিত সমাজ ব্যবস্থাকে ভেঙে সোনালি দিন আনলেন। আমাদের মধ্যে আজকাল একি অবস্থা বিরাজমান, যা কলুষিত বলতে পারি। সমাজ ব্যবস্থা আজ নাজুক অবস্থা, রাজনৈতিক অবস্থা আজকাল ভয়ানক আকার ধারণ করেছে, যা সত্যি এই সমাজকে ধ্বংসের ধার প্রান্তে পৌঁছে দিয়েছে। এমন কলুষিত অবস্থান থেকে বাঁচতে প্রয়োজন আমাদের আত্মশুদ্ধি, আত্মসমালোচনা, পরিশুদ্ধতা, সঠিক শিক্ষার দীক্ষা ধারণ করা। অথবা এই সমাজ ধ্বংস হয়ে যাবে অচিরেই। মানুষের জন্মের পর হতেই শিখাতে হবে সুন্দর কিছু, অহংকার, হিংসা, রিয়া, জুলুম সম্পর্কে ধারণা দিতে হবে, তবেই শুদ্ধি হবে মানবতা।

“চলো ভাঙি এই কলুষিত সমাজ
ব্যক্তি শুদ্ধতায় গড়ব মোরা দেশ,
তবেই বিশ্বের দরবারে শির উঁচু হবে
পরিচ্ছন্ন হবে সোনার বাংলাদেশ।

মানবতা হোক সবার চিত্ত কর্ম,
সূচনা হবে সুন্দর এটাই সবার ধর্ম।
রাষ্ট্র আমার ব্যক্তিগত রাখব পরিষ্কার
শান্তিই হবে মূল মিশন জয় হবে মানবতার”।

x