আশাপূর্ণা দেবী : জীবনদ্রষ্টা কথাশিল্পী

মঙ্গলবার , ৮ জানুয়ারি, ২০১৯ at ১০:৩৩ পূর্বাহ্ণ
53

বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের একজন সৃজনশীল কথাশিল্পী আশাপূর্ণা দেবী। অন্যতম শ্রেষ্ঠ বাঙালি ঔপন্যাসিক হিসেবেও খ্যাতিমান তিনি। নারীর শোষণ-বঞ্চনা আর শৃঙ্খল মুক্তির স্বপ্ন প্রত্যাশী আশাপূর্ণা তাঁর সৃষ্টির মাধ্যমে সমাজ পরিবর্তনেও বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন। আজ তাঁর ১১০তম জন্মবার্ষিকী।
আশাপূর্ণা দেবীর জন্ম ১৯০৯ সালের ৮ জানুয়ারি কলকাতায় এক রক্ষণশীল পরিবারে। স্কুল-কলেজে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা নেবার সুযোগ হয়নি তাঁর, কিন্তু ছিলেন স্বশিক্ষায় শিক্ষিত। মধ্যবিত্ত জীবনের সংস্পর্শে থেকে অসাধারণ সূক্ষ্ম দৃষ্টি ও সংবেদনশীল মন দিয়ে চারপাশের জগতকে প্রত্যক্ষ করেছেন। তাঁর অভিজ্ঞতা সঞ্জাত জ্ঞান তাঁকে প্রদীপ্ত করেছিল, মেধা তাঁকে করেছিল উজ্জ্বল। আর এই প্রতিভার স্বাক্ষর চিহ্নিত হয়ে আছে তাঁর সৃষ্টিতে। সাহিত্যে তাঁর অনুরাগ আর অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল শ দেড়েকেরও বেশি উপন্যাস, বেশ কিছু ছোটগল্প এবং শিশুতোষ রচনা। এসবের মধ্যে সর্বাধিক জনপ্রিয় হয়েছে ‘প্রথম প্রতিশ্রুতি’, ‘সুবর্ণলতা’, এবং ‘বকুলকথা’। এই তিনটি উপন্যাস আধুনিক বাংলা সাহিত্যের অন্যতম শ্রেষ্ঠ রচনার মর্যাদা পেয়েছে। আশাপূর্ণা দেবীর সাহিত্যের ভাষা সহজ, সরল কিন্তু গভীর তাৎপর্যময়। জীবনকে তিনি আবিষ্কার করেছেন কর্মের মধ্যে, সংগ্রামের মধ্যে, বিপর্যয়ের মধ্যে, বিপর্যয় থেকে উঠে দাঁড়াবার অদম্য প্রয়াসে – এক কথায় জীবনের নিরন্তর গতিশীলতার মধ্যে। তাঁর রচনা স্বদেশচিন্তা ও সমাজ ভাবনা আশ্রিত, মননশীলতায় ঋদ্ধ। ১৯৯৫ সালের ১৩ জুলাই আশাপূর্ণা দেবী প্রয়াত হন।

x