‘২০১২ সালের পর থেকে চট্টগ্রামে ২৫০০ এর অধিক রাজনৈতিক মামলা হয়েছে’

জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সংবাদ সম্মেলনে তথ্য

আজাদী প্রতিবেদন

মঙ্গলবার , ৫ মার্চ, ২০১৯ at ১০:৪৮ পূর্বাহ্ণ
42

জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের উদ্যোগে গতকাল সোমবার সকাল ১১ টায় বিচার বিভাগের স্বাধীনতা, স্বাধীন বিচার ব্যবস্থাপনায় সরকারি হস্তক্ষেপ, বিচার প্রার্থী মানুষের দুর্ভোগ বিষয়ে চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী অডিটরিয়ামে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি ও সাবেক আইনজীবী সমিতির সভাপতি এডভোকেট দেলোয়ার হোসেন, চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এস.এম বদরুল আনোয়ার, আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জহুরুল আলম, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সিনিয়র আইনজীবীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এডভোকেট এস.ইউ.এন নুরুল ইসলাম, এডভোকেট আবদুস সাত্তার, এডভোকেট মফিজুল হক ভূইয়া, এডভোকেট আব্দুস সাত্তার সরোয়ার, এডভোকেট নাজিম উদ্দীন চৌধুরী,্‌ ডেভোকেট এনামুল হক, এডভোকেট সেকান্দর বাদশা, এডভোকেট তারিক আহমেদ, এডভোকেট আজিজুল হক চৌধুরী, এডভোকেট রওশন আরা বেগম, এডভোকেট কাজী মো: সিরাজ, এডভোকেট আবুল হাসান সাহাব উদ্দীন, এডভোকেট আহম্মদ কামরুল ইসলাম সাজ্জাদ, এডভোকেট সাইফুজুর রহমান মিল্লা, এডভোকেট তাজুল ইসলাম, এডভোকেট মোহাম্মদ জসিম উদ্দীন, এডভোকেট মোহাম্মদ ফিরোজ, এডভোকেট মোহাম্মদ রফিকুল আলম, এডভোকেট নুরুল কবির ইরফান, এডভোকেট জালাল উদ্দীন পারভেজ, এডভোকেট আলী ইয়াছিন প্রমুখ।
সংবাদ সম্মেলনে আইনজীবী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জহুরুল আলম লিখিত বক্তব্যে বলেন, “সরকার ২০১২ সালের পর থেকে সারা দেশে মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও গায়েবী মামলার মাধ্যমে বিরোধী তথা ২০ দলীয় ঐক্যজোট তথা বিএনপি’র নেতাকর্মী ও নিরীহ জনগণের বিরুদ্ধে হাজার হাজার ঘটনাবিহীন মামলা রুজু করে। সারা দেশের জেল কারাগারে অসংখ্য নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করে কারাগারে আটক রেখে জনগণকে ভীতিকর পরিবেশে আতংকিত জীবন যাপনে বাধ্য করা হচ্ছে। এককথায় বলতে গেলে সারাদেশ একটি কারাগারে পরিণত হয়েছে।”
তিনি বলেন, “২০১২ সালের পর থেকে আজ অবধি চট্টগ্রামে প্রায় ২৫০০ এর অধিক হয়রানিমূলক রাজনৈতিক মামলা রুজু হয়েছে। আইনের ব্যত্যয় ঘটিয়ে থানা পুলিশকে ব্যবহার করে কোন ধরনের ঘটনা ছাড়াই বিরোধী দল ও জোটের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ১৯৭৪ সনের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫(৩), বিস্ফোরকদ্রব্য আইনের ৩/৪ ধারা, সন্ত্রাস বিরোধী আইনসহ দণ্ড বিধির বিভিন্ন ধারায় উক্ত মামলা সমূহে ২ লক্ষেরও অধিক লোককে আসামী করা হয়েছে। তার মধ্যে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি থেকে ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত এই ধরনের রাজনৈতিক ও গায়েবী মামলা বেশি রুজু হয়েছে।”

x