হাসি-খুশির ঈদ

আরিফ রায়হান

বুধবার , ২৯ মে, ২০১৯ at ১১:০৭ পূর্বাহ্ণ
43

ঈদ আমাদের মহা আনন্দের একটি দিন। দীর্ঘ একমাস সিয়াম সাধনা শেষে আমরা ঈদুল ফিতর উদযাপন করি। আমাদের আরো যতসব ধর্মীয় উৎসব আছে তারমধ্যে ঈদুল ফিতরের আনন্দটা একটু বেশি-ই। ঈদের আনন্দ বড়দের চেয়ে সবচেয়ে বেশি দোলা দেয় ছোটদের মনে। ঈদের দিন নতুন জামা-জুতো পড়ে বড়দের সালাম করা, সালামি নেওয়া, ঘরে তৈরি ফিন্নি-পায়েস, জর্দা-পোলাও খাওয়া, নানার বাড়ি, আর বন্ধুদের বাড়িতে বেড়াতে যাওয়া এ যেন এক মহাআনন্দ।
ঈদে ছোটদের মুখে হাসি ফোটাতে বরাবরই সচেষ্ট থাকেন মা-বাবারা। তাই সবার আগেই কেনা হয়ে থাকে পরিবারের ছোট্ট সোনামণিদের ঈদের পোশাক। কেনাকাটায় তাদের আবদারেরও শেষ নেই। তাদের পোশাকটা আবার যেনতেন হলে চলবে না। হতে হবে রঙিন, চোখ জুড়ানো। ঈদের দিনক্ষণ প্রায় ঘনিয়ে এসেছে। ইতোমধ্যে রোজা তেইশটা শেষ হতে চলেছে। আগামী সপ্তাহের এদিনে অনুষ্ঠিত হতে পারে ঈদুল ফিতর। আর এরই মধ্যে বেশ সরগরম হয়ে উঠেছে ঈদেও কেনাকাটা।
বাবা-মার সঙ্গে মার্র্কেটে গিয়ে ঈদের কেনাকাটা করার মজাই যেন আলাদা। এতে শিশুদের আনন্দঘন উপস্থিতি জমে উঠে বিভিন্ন মার্কেটগুলোয়। শিশুদের ঈদের আনন্দ ভরিয়ে তুলতে চট্টগ্রাম মহানগরের বিভিন্ন বিপণিকেন্দ্র্রে হরেক রকম বাহারি পোশাকের পসরা সাজিয়ে বসেছেন ফ্যাশন হাউসগুলো। নগরীর নিউমার্কেট, রিয়াজউদ্দিন বাজার, তামাকুমন্ডি লেইন, জহুর হকার মার্কেট, টেরিবাজার, আমিন সেন্টার, স্যানমার ওশ্যান সিটি, ইউনেস্কা, সেন্ট্রাল প্লাজা, মিমি সুপার মার্কেট, আফমি প্লাজা, মিয়াবিবি, শপিং কমপ্লেক্স, ফিনলে, মতি টাওয়ার, স্বজন সুপার মার্কেট, ভিআইপি টাওয়ার মার্কেট, এ্যাপোলা শপিং কমপ্লেক্স, আখতারুজ্জামান সেন্টার, লাকী প্লাজা, ঝনক প্লাজাসহ ছোট বড় অনেক মার্কেটে বড়দের পাশাপাশি শিশুদের নানা রকম পোশাক সাজিয়ে রেখেছেন দোকানিরা। এতে প্রতিটি দোকানে শিশুদের জন্য রয়েছে আলাদা কিডস কর্ণার। যেখানে রয়েছে চমৎকার সব স্টাইলিশ পোশাকের বিপুল সমাহার। ছোট্টসোনামণি থেকে শুরু করে শিশুকিশোর ছেলে মেয়ের জন্য রয়েছে শার্ট, প্যান্ট, টি শার্ট, পাঞ্জাবি, জিন্স, ফ্রক, সিঙ্গেল, কামিজ, থ্রি-পিস, স্কার্ট-টপস, প্যান্ট-টপস, ও পাঞ্জাবিসহ অন্যসব পোশাক। ছোটদের পোশাকের রঙে মধ্যে রয়েছে সাদা, লাল, হলুদ, কমলা, সবুজ ও নীল। এছাড়া রয়েছে গোলাপি, টিয়া, বাসন্তী, খয়েরি, ফিরোজা। ফ্যাশনের আরো অনুষঙ্গ হিসেবে রয়েছে হাতঘড়ি ও সানগ্লাস।
শিশুদের পোশাকের ডিজাইনে আনা হয়েছে নানা পরিবর্তন। কাটিং প্যাটার্ন ও লেন্সে পরিবর্তন এনে করা হয়েছে নানা ডিজাইন। এগুলোর কোনটি ছোট হাতা, কোনটি ফুল স্লিভ, আবার গলায় কাটিংয়ের নানা বৈচিত্র্য। বিভিন্ন ডিজাইন ফুটিয়ে তোলা হচ্ছে শিশুদের ঈদের পোশাকে।
এদিকে এবারও ঈদ উদযাপিত হবে গরমের মধ্যে। সাথে থাকতে পারে বৃষ্টিও। তাই ছোটাদের ঈদের পোশাকে ব্যবহার করা হয়েছে উজ্জ্বল রঙ। গাঢ় নীল, লাল, মেরুন, সবুজ, কমলা, আকাশী এসব রঙের ব্যবহার বেশি দেখা গেছে। প্রধানত সুতি কাপড় ব্যবহার করা হলেও সাথে রয়েছে লিলেন, জর্জেট, এন্ডি কটন, সিল্ক ইত্যাদি কাপড়ে তৈরি ছোটদের ঈদের পোশাক।
ঈদ একটি সম্প্রীতির উৎসব। ধনী-গরিব সবাই মিলেমিশে উৎসবটি উৎযাপন করা উচিত। গরিবরাও যেন ঈদে আনন্দে সামিল হতে পারে, হাসিমুখে ঈদ পালন করতে পারে সেদিকেও আমাদের নজর দেওয়া উচিত। সবার মন আনন্দে ভরে উঠলেই ঈদের আনন্দের সার্থকতা।

x