স্বাস্থ্যসেবায় অনিয়ম ঠেকাতে এবার মাঠে নামছে দুদক

বিশেষ টাস্কফোর্স গঠন ।। ১০৬-এ অভিযোগ দিতে পারবেন ভুক্তভোগীরা

সবুর শুভ

শনিবার , ২১ জুলাই, ২০১৮ at ৪:৪০ পূর্বাহ্ণ
396

এবার স্বাস্থ্যসেবা খাতকে ‘কড়া বার্তা’ দিল দুর্নীতি দমন কমিশন। চিকিৎসকের অবহেলায় রাইফার মৃত্যু নাড়া দিয়েছে সারাদেশের স্বাস্থ্যসেবা খাতকে। এরই প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তরফে ‘সাতদফা কড়া বার্তার’ পর এবার দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) এ ‘কড়া বার্তা ’ দিল এ সেবা খাতকে। এ খাতে চলমান আর্থিক অনিয়মের বিরুদ্ধে এ কড়া বার্তা দিয়ে দুদক যেকোন সময় অভিযান পরিচালনা করবে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামেরই সন্তান দুদকের মহাপরিচালক (প্রশাসন) মুনীর চৌধুরী। এ লক্ষ্যে একটি টাস্কফোর্স গঠন করা হয়েছে। যার নেতৃত্বে থাকা চট্টগ্রাম বন্দরের এক সময়কার আলোচিত ম্যাজিস্ট্রেট মুনীর চৌধুরী বলেন, খুব দ্রুত চট্টগ্রামে আসছি। স্বাস্থ্যসেবা খাতের নানা অনিয়মঅসন্তোষ দূর করতে এ বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ উদ্যোগের অংশ হিসেবে সরকারিবেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোতে ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে অভিযান এবং মনিটরিং। স্বাস্থ্য খাতে রোগীদের নানা অভিযোগের প্রেক্ষিতে দুদক এ উদ্যোগ নেয় বলে জানা যায়।

রাইফার মৃত্যুর ঘটনায় ম্যাক্স হাসপাতালে বিভিন্ন ধরনের প্রশাসনিক অনিয়ম স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নজরে আসার পর বিষয়টি দুদকেরও নজরে আসে। এর প্রেক্ষিতে দুদক স্বাস্থ্যসেবা খাতে আর্থিক অনিয়ম ও দুর্নীতি ঠেকাতে মাঠে নেমেছে। জানা গেছে, স্বাস্থ্যসেবা খাতে বিশৃঙ্খল পরিবেশ, নানা অনিয়ম, রোগীদের খাবার সরবরাহে নয়ছয় এবং সরকারের সরবরাহকৃত ওষুধ রোগীদের না দেওয়াসহ নানা অভিযোগের কারণে সাধারণ রোগীদের মধ্যে অসন্তোষ চরমে পৌঁছেছে। এ অসন্তোষের কোন প্রতিকারও পাওয়া যাচ্ছে না। এমন অবস্থায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর গত ১৬ জুলাই ‘চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়ে অবহেলা ও ভুল চিকিৎসার অভিযোগ নিষ্পত্তিকরণ এবং চিকিৎসা সেবা ও পথ্যের মানোন্নয়ন করণীয় প্রসঙ্গ’ শিরোনামে কড়া বার্তা সম্বলিত একটি বিজ্ঞপ্তি ইস্যু করে হাসপাতালগুলোতে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিক সমূহ) এবং লাইন ডাইক্টের (হসপিটাল সার্ভিসেস ম্যানেজমেন্ট) অধ্যাপক ডা. কাজী জাহাঙ্গীর হোসেন স্বাক্ষরিত এ বিজ্ঞপ্তিতে সাতটি নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছিল।

নির্দেশনা অনুযায়ী, চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়ে অবহেলা ও ভুল চিকিৎসার অভিযোগ নিয়ে অপ্রীতিকর ঘটনা দিন দিন বেড়ে চলছে। এছাড়া বিভিন্ন হাসপাতালে সরবরাহকৃত পথ্যের গুণগতমান এবং পরিমাণ নিয়ে রোগীদের মধ্যে অসন্তোষ রয়েছে। পথ্যের বিষয়ে অভিযোগের প্রেক্ষিতে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) বিভিন্ন হাসপাতালে অভিযান শুরু করেছে। বিভিন্ন সময় পত্র পত্রিকায় এ বিষয়ে প্রতিবেদনও ছাপা হয়েছে।

দুদকের মহাপরিচালক (প্রশাসন) এবং এনফোর্সমেন্ট অভিযানের সমন্বয়কারী মুনীর চৌধুরী বলেন, সরকারি হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা এবং চিকিৎসা সেবা সংক্রান্ত কোনো অনিয়মদুর্নীতির স্পষ্ট প্রমাণ পেলে দুদক তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। এ ব্যাপারে দুদক একটি বিশেষ টাস্কফোর্স গঠন করেছে। এটি নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছে। তাছাড়া ভুক্তভোগী যে কোনো জনগণ দুদকের কল সেন্টার ‘১০৬’ এ সরাসরি অভিযোগ দায়ের করতে পারবেন। স্বাস্থ্যসেবাসহ যে কোনো প্রতিষ্ঠানে দুদকের বিশেষ টাস্কফোর্স নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিক সমূহ) অধ্যাপক ডা. কাজী জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘সরকারি স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী কিছু প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে খাবারের মান এবং পরিমাণ নিয়ে অভিযোগ আসছে। তাই এ ব্যাপারে দুদক সংশ্লিষ্ট কিছু প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করছে।’

উল্লেখ্য, গত ২৯ জুন দিনগত রাতে নগরের বেসরকারি ম্যাঙ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন রাইফা খান। মৃত্যুর পর রাইফার পরিবার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অব্যবস্থাপনা, দায়িত্বরত চিকিৎসকদের ভুল চিকিৎসা ও অবহেলায় তার মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করে। এ ঘটনায় সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ স্বাস্থ্যসেবা খাতে শৃঙ্খলা আনার দাবি তুলে।

x