সোনার দাম কমছে বুধবার

আজাদী অনলাইন

মঙ্গলবার , ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ৯:৪৩ অপরাহ্ণ
1470

বিয়ের মৌসুমে ক্রেতাদের বাজারমুখী করতে টানা কয়েকবার বাড়ানোর পর সব ধরনের সোনার দাম কমানোর ঘোষণা দিয়েছেন স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা।

এ কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির (বাজুস) সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমপার আগরওয়ালা।

আজ মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় বাজারে সব ধরনের সোনার দাম ভরিতে এক হাজার ১৬৬ টাকা কমানোর ঘোষণা দিয়েছে বাজুস। বিডিনিউজ

ঘোষণা অনুযায়ী আগামীকাল বুধবার থেকে প্রতি ভরি সবচেয়ে ভালো মানের (২২ ক্যারেট) সোনা বিক্রি হবে ৫৬ হাজার ৮৬২ টাকায়।

প্রায় তিন মাস পর কমল সোনার দাম। এর আগে ১৭ জুন সোনার দাম কমিয়েছিলেন ব্যবসায়ীরা। সেই সময় ২২ ক্যারেট সোনার দর ভরিতে ১ হাজার ১৬৬ টাকা কমিয়ে ৫০ হাজার ১৫৫ টাকায় নামিয়ে আনা হয়েছিল।

এরপর আর কমেনি। আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বাড়ার অজুহাত দেখিয়ে একের পর এক দাম বাড়িয়েছেন ব্যবসায়ীরা। আগস্ট মাসেই চার দফা বাড়ানো হয় মূল্যবান এই ধাতুর দর।

সর্বশেষ ২৬ আগস্ট দাম বাড়ানোর পর ২২ ক্যারেট সোনার দর বেড়ে ৫৮ হাজার ২৮ টাকায় গিয়ে উঠে।

আজ মঙ্গলবার সোনার দর কমানো প্রসঙ্গে দিলীপ কুমপার আগরওয়ালা বলেন, ‘আন্তর্জাতিক বাজারে সোনার দর কমতির দিকে। তিন দিন আগে প্রতি আউন্স (৩১.১০৩৪৭৬৮ গ্রাম) সোনার দর ছিল ১ হাজার ৫৪০ ডলার। মঙ্গলবার তা ১ হাজার ৫০০ ডলারে নেমে এসেছে।’

তিনি বলেন, ‘কয়েক দফা সোনার দর বাড়ানোর ফলে ক্রেতারা বাজার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন। বিক্রি একেবারেই কমে গিয়েছিল। সামনে বিয়ের মৌসুম। এই মৌসুমেই সবচেয়ে বেশি সোনা বিক্রি হয়। বিয়ের মৌসুমে ক্রেতাদের বাজারমুখি করতেই সোনার দাম কমানো হয়েছে।‘

মঙ্গলবার বাজুসের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আন্তর্জাতিক বাজারে স্বর্ণের মূল্য কিছুটা হ্রাস পাওয়ায় দেশীয় বুলিয়ন মার্কেটেও স্বর্ণের মূল্যও হ্রাস পেয়েছে। আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সমন্বয় করে স্থানীয় বাজারেও সোনার দাম কমানো হয়েছে।

বুধবার থেকে নতুন দর কার্যকর হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে বাজুস।

নতুন দর অনুযায়ী বুধবার থেকে ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) সোনার মূল্য ৫৪ হাজার ৫২৯ টাকা, ১৮ ক্যারেট ৪৯ হাজার ৫১৪ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির সোনার দাম ২৯ হাজার ১৬০ টাকায় বিক্রি হবে।

মঙ্গলবার পর্যন্ত ২২ ক্যারেট প্রতি ভরি সোনা ৫৮ হাজার ২৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে। ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনার মূল্য ছিল ৫৫ হাজার ৬৯৬ টাকা, ১৮ ক্যারেট ৫০ হাজার ৬৮০ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির সোনা ৩০ হাজার ৩২৬ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

জুয়েলারি ব্যবসায়ীরা জানান, প্রতি ভরি ২২ ক্যারেটে ৯১ দশমিক ৬ শতাংশ, ২১ ক্যারেটে ৮৭ দশমিক ৫ শতাংশ, ১৮ ক্যারেটে ৭৫ শতাংশ বিশুদ্ধ সোনা থাকে।

সনাতন পদ্ধতির সোনা পুরনো অলঙ্কার গলিয়ে তৈরি করা হয়। এক্ষেত্রে কত শতাংশ বিশুদ্ধ সোনা মিলবে তার কোনো মানদণ্ড নেই।

অলংকার তৈরিতে সোনার দরের সঙ্গে মজুরি ও মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) যোগ করে দাম ঠিক করা হয়।

তবে রুপার দর অপরিবর্তিত রেয়েছে। আগের ৯৩৩ টাকা ভরিতেই বিক্রি হবে এটি।

x