সিঙ্গাপুরে আরো দুই বাংলাদেশি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত

উহানফেরত ৩১২ জন বাড়ি ফিরবেন কাল

শুক্রবার , ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ at ৫:০৪ পূর্বাহ্ণ

কভিড-১৯ রোগী বেড়েই চলেছে সিঙ্গাপুরে। নভেল করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন আরও আটজন, যার মধ্যে দুজন বাংলাদেশি। এর আগে সিঙ্গাপুরে থাকা দুই বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন, এখন এই সংখ্যা বেড়ে চারে দাঁড়াল। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশটিতে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৮। এদিকে চীনের অবরুদ্ধ নগরী উহান থেকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনা ৩১২ জন দুই সপ্তাহের পর্যবেক্ষণ শেষে আগামীকাল শনিবার বাড়ি ফিরতে পারবেন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মো. জাহিদ মালেক। খবর বিডিনিউজের।
সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে উদ্ধৃত করে দি স্ট্রেইটস টাইমস পত্রিকা গতকাল বৃহস্পতিবার আরও আটজনের মধ্যে করোনাভাইরাস সংক্রমণের খবর জানায়। এদের মধ্যে আক্রান্ত দুই বাংলাদেশি শ্রমিকের বয়স ৩০ ও ৩৭ বছর। তারা দুজনই সেলেটার অ্যারোস্পেসের হাইটসের কাজ করেন। এর আগে যে দুই বাংলাদেশি আক্রান্ত হয়েছিলেন, তাদের কর্মস্থলও একই এলাকায়। অর্থাৎ এই এলাকার চারজনের মধ্যে ভাইরাস সংক্রমণ ঘটল। বাংলাদেশি একজন গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে অসুস্থ ছিলেন, পরীক্ষায় বৃহস্পতিবার তার দেহে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। আগে আক্রান্ত দুই ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছিলেন এই বাংলাদেশি। তিনি বলছেন, অসুস্থ হওয়ার পর থেকে তিনি ক্যাম্পবেল লেইনের ভাড়া বাসার মধ্যেই ছিলেন।
সিঙ্গাপুরে নতুন যে আটজন কভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের কারও সামপ্রতিক সময়ে চীনে ভ্রমণের ইতিহাস নেই, যে দেশটির উহান শহর থেকে নভেল করোনাভাইরাস ছড়িয়ে আতঙ্কের জন্ম দিয়েছে বিশ্বব্যাপী। আক্রান্ত আটজনকে সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল সেন্টার ফর ইনফেকশনাল ডিজিজেসে আলাদাভাবে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে দি স্ট্রেইটস টাইমস। এই আটজনের মধ্যে পাঁচজন একটি গির্জায় গিয়ে ভাইরাস সংক্রমণের শিকার হন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তারা সবাই সিঙ্গাপুরী, এর মধ্যে সিঙ্গাপুর ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির একজন অধ্যাপকও রয়েছেন। বাকি তিনজনের মধ্যে বাংলাদেশি দুজন বাদে অন্য সিঙ্গাপুরের পরিবারের একজন আগেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। পূর্ব এশিয়ার দ্বীপ দেশ সিঙ্গাপুরে সব মিলিয়ে ১ লাখ ৩০ হাজার বাংলাদেশি রয়েছেন বলে ধারণা করা হয়। তাদের নতুন এ করোনাভাইরাস থেকে সতর্ক থাকতে এবং প্রয়োজনে হাই কমিশনে যোগাযোগ করার পরামর্শ দিয়েছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা এম জে এইচ জাবেদ। সিঙ্গাপুরে গত ২৩ জানুয়ারি করোনাভাইরাসের প্রথম রোগী ধরা পড়ে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী চীনের বাইরে এ পর্যন্ত ২৫টি দেশে আড়াইশর বেশি মানুষের মধ্যে নতুন করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। এর মধ্যে সিঙ্গাপুরেই আক্রান্তের সংখ্যা সর্বোচ্চ।
উহানফেরত ৩১২ জন বাড়ি ফিরবেন কাল : এদিকে চীনের অবরুদ্ধ নগরী উহান থেকে দেশে ফিরিয়ে আনা ৩১২ বাংলাদেশি দুই সপ্তাহের পর্যবেক্ষণ শেষে শনিবার বাড়ি ফিরতে পারবেন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মো. জাহিদ মালেক। গতকাল ঢাকার বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারে এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, চীন থেকে ফেরা এই বাংলাদেশিরা ‘কোয়ারেন্টিনের শেষ পর্যায়ে’ আছেন। ‘আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি তাদের পর্যবেক্ষণের ১৪ দিন পূর্ণ হবে। সব পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ১৫ তারিখ আমরা তাদের ছেড়ে দেব। এখানে আর কোনো সমস্যা নেই। তাদের সবাই ভালো আছেন।’

x