সাহসী ক্রিকেট খেলতে চান অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বৃহস্পতিবার , ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ at ৬:০৪ পূর্বাহ্ণ
112

অনেকটা অনাকাংখিত ভাবেই বাংলাদেশ দলের অধিনায়কের দায়িত্বটা পেয়েছেন মাহমুদুল্লাহ। কিন্তু যাত্রাটা সফল হলোনা। টেস্ট সিরিজে হারের পর এবার মাহমুদুল্লাহকে দিতে হচ্ছে টিটোয়েন্টি পরীক্ষা। আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে এখনো সফল হতে না পারলেও ঘরোয়া ক্রিকেটে নেতৃত্বের নিজস্ব একটা ঘরানা তৈরি করতে পেরেছেন মাহমুদুল্লাহ। সেটিকে এবার ফুটিয়ে তুলতে চান জাতীয় দলেও। ভারপ্রাপ্ত দায়িত্বে যদিও কাজটা কঠিন। তবু নিজের ছাপটা রাখতে চান অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটার। ইনজুরিতে থাকা সাকিব আল হাসানের বদলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে নেতৃত্ব দিয়েছেন মাহমুদুল্লাহ। নেতৃত্ব দেবেন টিটোয়েন্টিও। ঘরোয়া ক্রিকেটে এই সংস্করণেই নিজেকে আলাদা করে তুলেছেন অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ। এমনিতে অধিনায়ক হিসেবে সফল তিনি সব সংস্করণেই। তবে বেশি নজর কেড়েছেন বিপিএলে। গত কয়েক মৌসুমে বিপিএলে নেতৃত্বে তাকে দেখা গেছে দারুণ আগ্রাসী। মাঠের ভেতরে বাইরে ছিলেন অনুপ্রেরণাদায়ী। দলের ক্রিকেটারদের স্বাধীনতা দিয়েছেন নিজেদের ফুটিয়ে তোলার।

জাতীয় দলের হয়ে টিটোয়েন্টির অধিনায়কত্বে অভিষেকের আগের দিন মাহমুদুল্লাহ জানালেন, একই মন্ত্র থাকবে তার আন্তর্জাতিক আঙিনাতেও। যদিও ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দায়িত্ব পালনে নিয়মিত অধিনায়কের মত কর্তৃত্ব থাকে না, তবু আত্মবিশ্বাসী মাহমুদুল্লাহ। তিনি বলেন যেহেতু আমি দায়িত্বটা পেয়েছি, আমার তরফ থেকে চেষ্টার কমতি থাকবে না। সব সময় যেভাবে চেষ্টা করি সবার ভেতর থেকে সেরাটা বের করে আনার, এবারও সেটিই চেষ্টা করব। আমি সবসময় বিশ্বাস করি, টিটোয়েন্টি ক্রিকেটে সবাইকে অনুপ্রেরণা জোগাতে ও স্বাধীনতা দিতে না পারলে পারফর্ম করা সুযোগটা কম। চেষ্টা করব মাঠের ভেতরে ও বাইরে সেই ব্যাপারগুলো করার। বাংলাদেশের ১৬ সদস্যের দলে একদমই নতুন মুখ ৬টি। এই নবীনদের নির্ভার ক্রিকেট খেলতে দিতে চান অধিনায়ক।

তিনি বলেন আমাদের দলে নতুন মুখ আছে বেশকজন। চাওয়া থাকবে ওদের ওপর যত কম চাপ দেওয়া যায়। ওদেরকে নিজেদের মেলে ধরার সুযোগটা দেব। সেটা ছোট্ট কোনো তথ্য ভাগাভাগির মাধ্যমে হোক, উপস্থিত বুদ্ধির মাধ্যমে হোক বা যে কোনোভাবে। দলে অভিজ্ঞ ক্রিকেটারও বেশকজন আছেন। সবাই মিলে চেষ্টা করব যেন আমরা সেরা ক্রিকেট খেলতে পারি। তিনি বলেন আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলার সামর্থ রয়েছে। আমি চাই আমার সতীর্থরা সাহসী ক্রিকেট খেলুক। তাদের স্বাধীনতা দেওয়া আছে। শুধু নিজের সেরা খেলাটার দিকে নজর দিতে বলা হয়েছে। তিনি বলেন দলে নতুন আর পুরাতন যারাই আছে তারা দেশের সেরা ক্রিকেটার। এখন তাদের দায়িত্ব নিজেদের মেলে ধরা। আর অধিনায়ক হিসেবে আমি আমার সর্বোচ্চ সহযোগিতা দিয়ে যাব। আমি চাই তাদের ভেতর থেকে সেরা ক্রিকেটটা বের হয়ে আসুক। শ্রীলংকার বিপক্ষে দুটি সিরিজ হারলেও টিটোয়েন্টি সিরিজটি জিততে চান মাহমুদুল্লাহ। তিনি বলেন আমরা এক রকম দেওয়ালে পিট ঠেকে যাওয়ার মত অবস্থায় রয়েছি। তবে সে ধরনের অবস্থা থেকে বের হয়ে আসার সামর্থ এবং নজির দুটোই আমাদের রয়েছে। এখন আর দুটি ম্যাচ বাকি। এই দুটি ম্যাচে আমরা চাই নিজেদের সেরাটা দিয়ে সিরিজটা জিততে। আর এখানে নতুনদের একটি ভাল ভূমিকা রাখার সুযোগ রয়েছ্‌ে। তাদের প্রমাণের একটি সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে এই সিরিজে। তবে মাহমুদুল্লার আশা তার দল সাহসী ক্রিকেট খেলে টিটোয়েন্টি সিরিজ জিতবে।

x