সাতকানিয়ায় পৃথক অগ্নিকাণ্ডে ৫ দোকান ও ৭ ঘর পুড়ে ছাই

সাতকানিয়া প্রতিনিধি

মঙ্গলবার , ৩ এপ্রিল, ২০১৮ at ১০:৪৪ পূর্বাহ্ণ
66

সাতকানিয়ায় পৃথক দুইটি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ৫টি দোকান, ২টি গোডাউন ও ৭টি বসতঘর সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়েছে। এতে নগদ টাকা, মালামাল, স্বর্ণালংকারসহ প্রায় অর্ধকোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্তরা। গত রবিবার রাতে বাজালিয়া স্টেশনে দোকানগোডাউন এবং গতকাল সকালে নলুয়ার মরফলায় বসতঘরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিস ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে বাজালিয়া নিউ মার্কেট সংলগ্ন নুরুল আমিনের সুপারির দোকানের বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে দ্রুত চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। এসময় নুরুল আমিনের সুপারির দোকান, মুরগির দোকান, খলিলুর রহমানের ক্রোকারিজের দোকান, আবদুল জলিলের মুদির দোকান, হারুনুর রশিদের সিগারেটের গোডাউন ও মাহাবুল আলম চৌধুরী বুলুর হোমিও প্যাথিকের দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ঘটনার খবর পেয়ে সাতকানিয়া ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পানি নিক্ষেপ করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ক্ষতিগ্রস্ত দোকান মালিক খলিলুর রহমান ও আবদুল জলিল জানান, অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তাদের দোকান এবং গোডাউনে নগদ টাকা ও মালামালসহ প্রায় ৩৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে। রাতের ঘটনা হওয়ায় কেউ দোকান থেকে এক টাকার মালামালও বের করতে পারিনি। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আমরা নিঃস্ব হয়ে গেলাম। এদিকে গতকাল সকালে উপজেলার নলুয়া ইউনিয়নের মরফলা শীল পাড়ার সুমন শীলের রান্না ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। এতে পার্শ্ববর্তী নয়ন শীল, অভিজিৎ শীল, প্রবাল শীল, মিলন শীল, প্রিয়বল শীল ও বাবু শীলের বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। মিলন শীল ও নয়ন শীল জানান, অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও মূল্যবান জিনিসপত্র সহ তাদের ১৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বসতঘর হারিয়ে তারা এখন খোলা আকাশের নিচে অবস্থান নিয়েছে। সাতকানিয়া ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইদ্রিচ জানান, রবিবার রাতে বাজালিয়া স্টেশনে অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে দ্রুত ছুঁটে গিয়ে পানি নিক্ষেপ করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হই। তবে ততক্ষণে ৫টি দোকান ও ২টি গোডাউন সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।

x