সম্পদ কেন্দ্রীকরণ ভয়াবহ পরিণতি ডেকে আনবে : ড. ইউনূস

এ ওয়ার্ল্ড অব থ্রি জিরোস এর চীনা সংস্করণ প্রকাশ

আজাদী প্রতিবেদন

বুধবার , ২৫ জুলাই, ২০১৮ at ৭:২৭ পূর্বাহ্ণ
62

শান্তিতে নোবেলজয়ী খ্যাতনামা অর্থনীতিবিদ প্রফেসর ড. মুহাম্মদ ইউনূসের আলোচিত বই ‘এ ওয়ার্ল্ড অব থ্রি জিরোস’এর চীনা সংস্করণ প্রকাশিত হয়েছে। বইটির উদ্বোধন এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করতে গিয়ে প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস সম্পদের কেন্দ্রীকরণ ভয়াবহ পরিণতি ডেকে আনবে বলে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, এই প্রক্রিয়া বন্ধ করা খুবই জরুরি। তিনি একমাত্র সামাজিক ব্যবসা ধারণার মাধ্যমেই সম্পদের কেন্দ্রিকরণ সম্ভব বলেও উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, সামাজিকভাবে দায়িত্বশীল অর্থায়নকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে সামাজিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠা করতে হবে। তিনি চীনের পাঁচটি নগরীতে অনুষ্ঠিত ‘সামাজিক ব্যবসা সপ্তাহ’ উপলক্ষে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষনে উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

এসব অনুষ্ঠানে চীনের গণ্যমান্য রাষ্ট্রীয় নেতা, ব্যবসায়ী নেতা, সামাজিক ব্যবসা পরিচালনাকারী, আর্থিক ও ব্যাংকিং খাতের নেতা, ক্ষুদ্রঋণ কর্মী ও ছাত্ররা যোগ দেন। প্রফেসর ইউনূস পিকিং বিশ্ববিদ্যালয় ও হংকং পলিটেকনিক ইউনিভার্সিটির আয়োজনে বেইজিংয়ে অনুষ্ঠিত ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লীডার সামিট’এ মূলবক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন। বেইজিংয়ের নগর সরকারের সহযোগিতায় আয়োজিত এই সম্মেলনে ৫৬টি দেশ থেকে ১৫০ জন তরুণ নেতা অংশ নেন।

চীন সফরকালে প্রফেসর ইউনূস দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক ‘পিপল্‌স ব্যাংক অব চায়না’র ঊর্ধ্বতন নির্বাহীদের সাথে বৈঠক করেন। পিপল্‌স ব্যাংক অব চায়না চীনের আর্থিক নীতি নির্ধারণসহ ও দেশটির আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের নিয়ন্ত্রক হিসেবে কাজ করে। বৈঠকে কেন্দ্রীয় ব্যাংক কর্মকর্তারা চীনে সামাজিক ব্যবসা চালু ও দেশব্যাপী ক্ষুদ্রঋণ কর্মসূচির প্রসারে আগ্রহ প্রকাশ করেন। এছাড়াও প্রফেসর ইউনূস চীন সরকারের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত ও বিশ্বব্যাপী আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন বেসরকারী সংস্থা ‘এশিয়ান ফাইনান্সিয়াল কোঅপারেশন অ্যাসোসিয়েশান’এর সদর দপ্তর পরিদর্শন করেন। তাঁকে অভ্যর্থনা জানান সংস্থাটির সেক্রেটারী জেনারেল ইয়াং জাইপিং। তিনি সংস্থার কর্মকান্ড সম্পর্কে প্রফেসর ইউনূসকে অবহিত করেন। তিনি প্রফেসর ইউনূসকে সংস্থাটির আন্তর্জাতিক উপদেষ্টা কমিটির সদস্য হতে আমন্ত্রণ জানান।

পরে প্রফেসর ইউনূস চায়না অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স আয়োজিত ‘বেইজিং ইনক্লুসিভ ফাইনান্স ফোরাম’এ মূলবক্তা হিসেবে ভাষণ দেন। দুই শতাধিক অংশগ্রহণকারী এই ফোরামে যোগ দেন। তাঁর বক্তৃতায় তিনি সম্পদ কেন্দ্রীকরণ বন্ধ করার উদ্দেশ্যে আরো বেশি সামাজিকভাবে দায়িত্বশীল অর্থায়নকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে সামাজিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠায় আর্থিক সহায়তা নিয়ে এগিয়ে আসতে দেশটির নেতৃস্থানীয় ব্যাংকার ও উদ্যোক্তাদের প্রতি আহ্বান জানান। চায়না কনস্ট্রাকশন ব্যাংকের চেয়ারম্যান প্রফেসর ইউনূসকে চীনে সামাজিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠা ও গ্রামীণ ক্ষুদ্রঋণ চালু করতে সহায়তা করার জন্য একটি জয়েন্ট ভেঞ্চার গঠনের জন্যও আমন্ত্রণ জানান।

প্রফেসর ইউনূস জিয়াংজৌ বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি ইউনূস সোশ্যাল বিজনেস সেন্টার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়টির সাথে একটি সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন। এটি চীনে প্রতিষ্ঠিত ৪র্থ ও পৃথিবীর ২৮টি দেশে প্রতিষ্ঠিত ৫৭তম ইউনূস সোশ্যাল বিজনেস সেন্টার।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচ শতাধিক শিক্ষক ও ছাত্রদের অংশগ্রহণে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে প্রফেসর ইউনূসকে জিয়াংজৌ বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানসূচক অধ্যাপকের পদ প্রদান করা হয়। প্রফেসর ইউনূস এরপর চায়না কনস্ট্রাকশন ব্যাংকের সাথে যৌথভাবে আয়োজিত “শেনচেন ইনক্লুসিভ ফাইনান্স ল্যাব”এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানেও যোগ দেন। এছাড়াও তিনি গুয়ানডং প্রদেশে অবস্থিত চীনের অন্যতম এই শহরটির ঊর্ধ্বতন সরকারী কর্মকর্তাদের সাথে একাধিক বৈঠক করেন যেখানে তিনি শুধুমাত্র অর্থনৈতিক কর্মপন্থার পরিবর্তে সামাজিক ব্যবসার অধীনে সমাজমুখী বিভিন্ন পদ্ধতির মাধ্যমে প্রদেশটির উন্নয়নের উপায় বিষয়ে তাঁর চিন্তাভাবনা তাঁদের সাথে বিনিময় করেন।

x