ষড়যন্ত্র দেখছেন পাপন

ক্রিকেটারদের ধর্মঘট

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বুধবার , ২৩ অক্টোবর, ২০১৯ at ৪:৫২ পূর্বাহ্ণ
143

ক্রিকেটারদের ধর্মঘটের পেছনে ষড়যন্ত্র দেখছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। গতকাল মঙ্গলবার ক্রিকেট বোর্ডের জরুরি সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। এ সময় পাপন বলেন, ‘ক্রিকেটারদের এমন কোনো সমস্যা নেই, যা সমাধান করার চেষ্টা করিনি। তারা খেলা বন্ধ করে দেবে-সেটা আমি ভাবতেই পারি না’। ভারত সফরের আগে এ ধরনের সিদ্ধান্ত ভাবার বিষয় জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ওরা আমাদের না জানিয়ে খেলা বন্ধ করে দিয়েছে। এটা ভাবা যায় না। এসবের পেছনে নিশ্চয়ই কোনো ষড়যন্ত্র আছে। বিসিবি নিয়ে কিছু বললে বলুক, কিন্তু খেলা বন্ধ করে দেবে কেন? আমার দৃঢ় বিশ্বাস, বেশিরভাগ খেলোয়াড় জানে না আসল পরিকল্পনা কী? হয়তো দুই-একজন জানে। সবকিছু বের হয়ে আসবে’।
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নানা বিতর্কিত সিদ্ধান্ত ও দেশের ক্রিকেটের চলমান অসংগতিতে অসন্তোষ প্রকাশ করে গত সোমবার অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দেয় ক্রিকেটাররা। তাদের ১১ দফা দাবি না মানা পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেটে খেলবেন না বলেও জানান তারা। এ ব্যাপারে বিসিবি প্রধান বলেন, ‘বাইরে থেকে আমার কাছে ফোন আসছে। আইসিসি, এসিসি আমার কাছে বার বার ঘটনা জানতে চাইছে। ওরা আমাদের না জানিয়ে মিডিয়া ডেকে সংবাদ সম্মেলন করেছে, এটা আমাকে অবাক করেছে। আমরা ওদের দাবি পূরণ না করলে সেটা অন্য জিনিস। কিন্তু খেলা বন্ধ করবে এসব কি?’ ভারত সফরকে সামনে রেখে নতুন বোলিং কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টরি চলে এসেছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আগামী ২৫ অক্টোবর থেকে জাতীয় দলের অনুশীলন শুরু হওয়ার কথা। আসলে বিদেশি কোচের অধীনে তারা খেলতে চায় না। আগেও আমাকে এসব বলেছে। ওরা খেলাটা বন্ধ করে দিলো, যখন আমরা একটা গুরুত্বপূর্ণ সফরে যাচ্ছি’। সাংবাদিকদের উদ্দেশে পাপন বলেন, ‘আপনারাই তো বলেন, ভারত সফরের কোনো শিডিউল করি না কেন? অথচ যখন ভারত সফর চলে আসলো, তখন তারা এই কাণ্ডটা ঘটিয়ে ফেলল। আমি চেষ্টা করে তিনটি টি-টোয়েন্টি আর দুটি টেস্ট ম্যাচ এনেছি। আমি আগে দেখতে চাই, কে খেলতে আসে, আর কে আসে না। তারপর বাকিগুলো দেখব’।
তিনি আরো বলেন, ‘ওরা চেয়েছে আমি দিইনি, এমনটা কখনো হয়নি। শ্রীলংকা সফর থেকে আসার পরেই সাকিব-তামিম আমাকে বলেছে, ভাই বেতন বাড়িয়ে দেন। আমি বললাম, তোমাদের বেতন এখন কত? ওরা বললো, ৫০ হাজার টাকা। আমি পরে চার লাখ টাকা করে দিলাম। এছাড়াও সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছি। ২৪ কোটি টাকা শুধু ওদের বোনাস দিয়েছি। ওরা একটা দাবি করেছে, গ্রাউন্ডসম্যান-আম্পায়ারদের বেতন বাড়ানোর। আমরা কদিন আগেই আম্পায়ারদের বেতন বাড়িয়েছি। তারপরও কী করে এই দাবি করে! ওরা এমন ভাব দেখিয়েছে, যেন আমরা কিছুই করছি না। আমি ওদের পারিবারিক সমস্যার সমাধান করেছি। কারো খালার সমস্যা, কারো জমি উদ্ধার, কি কাজে আমি যাইনি? বিদেশ থেকে ফোন করেও তাদের সমস্যা সমাধান করেছি। পুলিশ একে ধরে নিয়ে গেছে, ওকে ধরে নিয়ে গেছে, আমি সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করেছি’।
পাপন বলেন, ‘এসব পূর্ব পরিকল্পিত। তারা ধর্মঘট ডেকে, ক্যাম্পে যোগ না দিয়ে কী করতে চাচ্ছে-এটা আমাদের কাছে পরিষ্কার। ওরা জানে, ওদের দাবির কথা জানালে আমরা মেনে নেব। এজন্য আমাদের কাছে আসেনি। তারা আপাতত সাকসেস’। কখন থেকে এই ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বিসিবির এক পরিচালক (ক্যাসিনো ইস্যুতে) গ্রেফতার হওয়ার পর থেকে এই ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। আমি এবং আমার বোর্ড সবার টার্গেটে পরিণত হয়েছে। তারা নানাভাবে চেষ্টা করেছে আমাদের ক্ষতি করার কিন্তু সফল হয়নি। এখন সেকেন্ড স্টেপ চলছে। ভারত সফর বাদ দিলে আইসিসির কাছ থেকে চাপ আসবে। সবই ষড়যন্ত্রের অংশ। বাংলাদেশ ক্রিকেটকে ধ্বংস করার চেষ্টা চলছে’।

x