শুটকির স্বাদ নিন

রেসিপি দিয়েছেন রুবিনা জাবীন

রবিবার , ৩ নভেম্বর, ২০১৯ at ৪:৫৯ পূর্বাহ্ণ
126

চিংড়ি শুটকি দিয়ে লতি

উপকরণ : মাথা ছাড়ানো চিংড়ি শুটকি আধা কাপ, কচুরলতি ৫০০ গ্রাম, টক আমের আচার আধা কাপ, রসুনবাটা দেড় চা-চামচ, পেঁয়াজকুচি ৯ টেবিল চামচ, তেল ১ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো, হলুদগুঁড়া আধা চা-চামচ, মরিচগুঁড়া ১ চা-চামচ, ধনেয়াপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ।
প্রণালি : চিংড়ি শুঁটকির মাথা ফেলে ধুয়ে রাখুন। কচুরলতির আঁশ ফেলে টুকরা করে নিন। তেলে পেঁয়াজ, রসুন, হলুদ, মরিচগুঁড়া, আচার ও চিংড়ি শুঁটকি দিয়ে দিন। লতি সেদ্ধ হলে ধনিয়াপাতা, মরিচ দিয়ে নামিয়ে নিন।

নোনা ইলিশে বেগুন

উপকরণ : নোনা ইলিশ ৪ টুকরা, বেগুন ৫০০ গ্রাম, হলুদগুঁড়া আধা চা-চামচ, মরিচের গুঁড়া ১ চা-চামচ, তেল ১ চা-চামচ, জিরাগুঁড়া আধা চা-চামচ, কাঁচামরিচ ৪-৫টি, পেঁয়াজকুচি ১ টেবিল চামচ, রসুনবাটা ১ চা-চামচ।
প্রণালি : নোনা ইলিশ পানিতে ভিজিয়ে রেখে ভালোভাবে ধুয়ে নিন। বেগুন টুকরা করে পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। তেলে পেঁয়াজ অল্প ভেজে হলুদগুঁড়া, মরিচগুঁড়া ও রসুনবাটা দিয়ে কষান। ইলিশ ও বেগুন ঢেলে দিয়ে নাড়তে থাকুন। অল্প পানি দিয়ে ঢেকে দিন। বেগুন সেদ্ধ হলে জিরাগুঁড়া ও কাঁচা মরিচ দিন। নোনা ইলিশে পর্যাপ্ত লবণ থাকায় তরকারিতে লবণ দেওয়ার প্রয়োজন নেই।
শুটকি পাতুরি

উপকরণ : চ্যাপা শুটকি ৫০ গ্রাম, আলু কুচি ২ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, রসুন বাটা ২ টেবিল চামচ, মরিচ বাটা ৩ টেবিল চামচ, হলুদ বাটা ১ চা চামচ, আদা বাটা আধা টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচি আধা কাপ, ফিশসস ১ টেবিল চামচ, তেল আধা কাপ, লবণ ১ চা চামচ, লাউ বা কুমড়াপাতা ১৫টি।
প্রণালি : শুঁটকি ধুয়ে বেটে নিতে হবে। কড়াইয়ে তেল দিয়ে পেঁয়াজ কুচি নরম করে ভেজে ধনেপাতা ও লাউপাতা ছাড়া সব উপকরণ দিয়ে ভুনে নিন। এবার ধনেপাতা দিয়ে নেড়েচেড়ে নামিয়ে নিন। ঠাণ্ডা করুন। পাতার মধ্যে পরিমাণমতো শুঁটকির পুর দিয়ে মুড়ে টুথপিক দিয়ে আটকে দিন। ফ্রাইপ্যানে অল্প তেল দিয়ে গরম হলে ভেজে নিন। ২ পিঠ ভালোভাবে ভাজুন।

লইট্টা ভুনা

উপকরণ : লইট্টা শুঁটকি ২০০ গ্রাম, পেঁয়াজ কুচি ২৫০ গ্রাম, রসুন কুচি ১০০ গ্রাম, রসুন বাটা ১ চা চামচ, আদা বাটা আধা চা চামচ, হলুদ বাটা আধা চা চামচ, মরিচ বাটা আধা চা চামচ, কাঁচা মরিচ ফালি ৫টি, লবণ ১ চা চামচ, আস্ত জিরা আধা চা চামচ, পানি আধা কাপ, তেল আধা কাপ।
প্রণালি : আস্ত শুঁটকি আগুনে পুরপুর শব্দ হওয়া পর্যন্ত সেঁকে নিন। এবার শুঁটকি ছোট ছোট টুকরা করে কেটে ধুয়ে পরিষ্কার করে পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। চুলায় কড়াইয়ে তেল দিয়ে গরম হলে অর্ধেক পেঁয়াজ কুচি দিন। পেঁয়াজ বেরেস্তা হলে আস্ত জিরা দিন। জিরা ফুটে উঠলে শুঁটকি দিন। ভালো করে নেড়ে সব বাটা মসলা দিন। রেখে দেওয়া পেঁয়াজ কুচি, রসুন কুচি ও লবণ দিয়ে কষিয়ে পানি দিয়ে ঢেকে আঁচ কমিয়ে দিন। ঢেকে দেওয়া শুঁটকি সিদ্ধ হয়ে মাখামাখা হলে কাঁচা মরিচ ফালি দিয়ে নেড়ে আবারও ঢেকে দিন। ভুনাভুনা হলে নামিয়ে ফেলুন।
দোমাছা

উপকরণ : ছুরি মাছের শুঁটকি ১ কাপ, কোরাল বা চিংড়ি মাছ ১ কাপ, পেঁয়াজকুচি ১ টেবিল চামচ, রসুনবাটা ১ চা-চামচ, গোটা রসুন কোয়া ৭-৮টি, পেঁয়াজবাটা ১ চা-চামচ, টমেটোকুচি ১ টেবিল চামচ, তেল ২ টেবিল চামচ, হলুদগুঁড়া আধা চা-চামচ, মরিচগুঁড়া দেড় চা-চামচ, লবণ পরিমাণমতো, কাঁচা মরিচ ফালি ৫-৬টা, ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ।
প্রণালি : ছুরি মাছের শুঁটকি টুকরা করে গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। নরম হলে ভেতরের কাটা বেছে নিন। চিংড়ি মাছের মাথা ফেলে ধুয়ে রাখুন। অথবা কোরাল মাছ নিলে ছোট ছোট করে কেটে তেলে পেঁয়াজ অল্প ভেজে হলুদগুঁড়া, মরিচগুঁড়া, রসুনবাটা, পেঁয়াজবাটা, লবণ ও টমেটোকুচি দিয়ে কষান। এবার শুঁটকি দিয়ে নাড়ুন। চিংড়ি অথবা কোরাল মাছের টুকরা ঢেলে কষান। অল্প পানি দিয়ে ঢেকে দিন। ১০ মিনিট পর কাঁচা মরিচ ও ধনেপাতা কুচি দিয়ে নামিয়ে নিন।

চ্যাপা রসুন ভুনা

উপকরণ : চ্যাপা শুঁটকি ৫০ গ্রাম, রসুন বাটা ২ টেবিল চামচ, রসুন স্লাইস আধা কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, মরিচ বাটা ২ টেবিল চামচ, হলুদ বাটা ১ চা চামচ, ফিশসস ১ চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, তেল ১/৩ কাপ, কাঁচা মরিচ ৪টি।
প্রণালি : শুঁটকি ভালো করে ধুয়ে বেটে নিন। কড়াইয়ে তেল দিয়ে গরম হলে পেঁয়াজ ও রসুন স্লাইস দিন। পেঁয়াজ ও রসুন নরম হলে হলুদ, মরিচ ও রসুন বাটা দিয়ে ভুনে নিন কোয়ার্টার কাপ পানি দিয়ে। মসলা ভুনাভুনা হলে শুঁটকি, লবণ ও ফিশসস দিয়ে ভুনতে থাকুন। স্বাদ অনুযায়ী লবণ দিন। বেশি ঝাল খেতে চাইলে কাঁচা মরিচ চিরে দিন। ঝাল কম খেতে চাইলে আস্ত মরিচ দিন। তেল চকচকে হয়ে কড়াই থেকে আলগা হলে নামিয়ে নিন।

x