শীতের সবজির পাঁচটি ভিন্নরকম পদ

রেসিপি দিয়েছেন : তামান্না আহমেদ

রবিবার , ১৩ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৯:০০ পূর্বাহ্ণ
189

আস্ত ফুলকপির রোস্ট

উপকরণ: ফুলকপি ১ টি, পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল চামচ, আদা বাটা ২ চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, বাদাম বাটা ১ টেবিল চামচ, পোস্তদানা বাটা ১ টেবিল চামচ, জায়ফল ও জায়ত্রী গুঁড়া ১/২ চা চামচ, টক দই ১/২ কাপ, গরম মশলার গুঁড়া ১ চা চামচ, ঘি ২ টেবিল চামচ, মালাই ২ টেবিল চামচ, টমেেটা সস ১ টেবিল চামচ, চিনি সামান্য, লবণ পরিমাণমতো, বেরেস্তা ৩ টেবিল চামচ, তেল পরিমাণমতো, কিশমিশ ও কাঁচামরিচ পরিমাণ মতো।
প্রণালি: ফুটন্ত পানিতে ১ চা চামচ লবণ ও ফুলকপি দিয়ে ৮ থেকে ১০ মিনিট সেদ্ধ করতে হবে, ঠাণ্ডা হলে গরম তেলে আস্ত ফুলকপিটি ভেঁজে নিতে হবে। কড়াইতে পরিমাণমতো তেল ও ঘি দিয়ে একে একে সব বাটা ও গুঁড়া মশলা দিয়ে কষাতে হবে, কিছুক্ষণ কষানো হলে এরপর টকদই ফেটে নিয়ে মশলায় মেশান, পুরো মিশ্রণটি নেড়েচেড়ে নিয়ে, তারপর আস্ত ফুলকপিটা দিয়ে কিছুক্ষণ আবারও নেড়ে চেড়ে আধাকাপ গরম পানি দিয়ে ঢেকে দিন, সবশেষে ঘি, চেরা, কাঁচামরিচ, কিশমিশ ও বেরেস্তা দিয়ে ৩ থেকে ৪ মিনিট দমে রেখে নামিয়ে ফেলুন।

ওভেন ফ্রায়েড ক্যারট
উপকরণ: গাজর বড় আকারের ৩ টা, অলিভ অয়েল বা সানফ্লাওয়ার অয়েল ৪ টেবিল চামচ, বালসামিক ভিনেগার (না হলেও সমস্যা নাই, লবণ ও গোলমরিচ গুঁড়া স্বাদমত।
প্রণালি: সবার আগে ওভেনকে ২৫০ ডিগ্রী সেন্টিগ্রেড বা ৪৮২ ডিগ্রী ফারেনহাইট তাপমাত্রায় প্রি হিট করে নিতে হবে। গাজরগুলোকে ফ্রেঞ্চ ফ্রাইর মত করে কেটে নিন, এবার একটা বড় পাত্রে তেল, লবণ, গোলমরিচের গুঁড়ো আর গাজর দিয়ে ভালো করে মেশাতে হবে, একটা বেকিং শিটের উপর তেল আর লবণ মাখানো গাজরের টুকরো ছড়িয়ে সরাসরি ওভেনের তাকের উপর রাখতে হবে। গাজরের টুকরোগুলো যেন ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে সেদিকে লক্ষ রাখুন, ১৫ মিনিট বেক করে নামিয়ে নিয়ে উপরে অল্প করে বালসামিক ভিনেগার ছড়িয়ে পরিবেশন করুন মজাদার ও স্বাস্থ্যকর ওভেন ফ্রায়েড ক্যারট

স্পাইসি মটরশুঁটি ফ্রাই
উপাদান: মটরশুঁটি ৩ কাপ (কচি মটরশুঁটি হলে ভালো হয়), তেল ১ টেবিলচামচ, আস্ত জিরা ৩/৪ চা চামচ, আদা কুচি ২ চা চামচ, কাঁচা মরিচ কুচি ১ চা চামচ, লবণ ১ চা চামচ, গোলমরিচগুঁড়ো ১/৪ চা চামচ, ধনে পাতা কুচি ২ টেবিলচামচ, লেবুর রস ২ চা চামচ।
প্রণালি: মটরশুঁটিগুলোকে পানি ঝরিয়ে টিস্যু পেপারে বা কিচেন টাওয়েল দিয়ে চেপে পানি শুকিয়ে নিন, একটা ফ্রাইং প্যানে মাঝারি আঁচে তেল গরম করে নিন। তেল ঠিকমত গরম হয়েছে কিনা দেখতে একটা জিরা ছেড়ে দেখুন। জিরা তেলে ফুটতে শুরু করলে তেল ঠিকমত গরম হয়েছে বুঝবেন, এরপর তেলে সবটুকু জিরা দিতে হবে। সাথে সাথেই জিরার সাথে মরিচ কুচি আর আদা কুচি দিয়ে অল্প নেড়েচেড়ে মটরশুঁটি আর লবণ দিন, চার থেকে পাঁচ মিনিট মাঝেমধ্যে নেড়েচেড়ে রান্না করুন। মটরশুঁটি নরম হয়ে গেলে গোলমরিচের গুঁড়ো আর ধনেপাতা ছড়িয়ে দিন, নেড়েচেড়ে নামিয়ে নিয়ে লেবুর রস ছিটিয়ে পরিবেশন করুন স্পাইসি মটরশুঁটি ফ্রাই।

ব্রকলি আর পালং শাকের শামি কাবাব
উপকরণ: ব্রকলি ২০০ গ্রাম, পালং শাক ১০০ গ্রাম, লেবুর রস ১ টেবিলচামচ, গরম মশলা গুঁড়ো ১০ গ্রাম, কাঁচা মরিচ ৫ গ্রাম, বেসন ৩০ গ্রাম, লেবুর টুকরো (ওয়েজেস আকারে কাটা) ১/২ চা চামচ, মটরশুঁটি ৫০ গ্রাম, পনির ৭০ গ্রাম, আদা ১০ গ্রাম, লবণ স্বাদমত, ধনেপাতা ৩০ গ্রাম, মাখন ২ টেবিলচামচ।
প্রণালি: সবার আগে সমস্ত সবজি আর পনির মিহি করে কুচি করে নিন, তারপর বড় একটা পাত্রে সমস্ত সবজি, পনির, বেসন, গরম মশলা, লেবুর রস, লবণ দিয়ে ভালো করে মেখে নিতে হবে। মিশ্রণ থেকে মাঝারী আকারের কাবাব গড়ে নিন একটা ফ্রাইং প্যান নিয়ে মাঝারি আঁচে গরম করে নিয়ে এতে মাখন দিন। সবগুলো কাবাব যদি একবারে প্যানে না ধরে তবে যে কয়বার ভাঁজবেন সেই অনুযায়ী মাখন দিন প্রতিবার। মনে রাখা ভালো এই কাবাব ডুবো তেলে ভাঁজা হবে না, শ্যালো ফ্রাই হবে মাখন গলে গেলে কাবাবগুলো প্যানে দিয়ে দুইপাশে বাদামি করে ভেঁজে তুলুন মজাদার ব্রকলি ও পালং শাকের শামি কাবাব।

বাঁধাকপির দোসা
উপকরণ : বাঁধাকপি ১ টা (ছোট), চাল ২ কাপ, লবণ স্বাদমত, লাল শুকনো মরিচ ২ টি, পেঁয়াজ কুচি ১/২ কাপ, আস্ত জিরা ২ চা চামচ, পছন্দমত তেল ৩ টেবিলচামচ, তেঁতুল স্বাদমত, আস্ত ধনিয়া ২ চা চামচ, নারকেল কোরা ১ কাপ।
প্রণালি: চাল সারারাত ভিজিয়ে রাখতে হবে। এরপর চাল ধুয়ে পানি ঝরিয়ে ব্লেন্ডারে গুঁড়ো করে নিন। এরপর ব্লেন্ডারে একে একে জিরা, ধনিয়া, নারকেল কোরা, তেঁতুল মিশিয়ে মিহি করে মিশ্রণ বানিয়ে নিন। মিহি মিশ্রণ পেতে প্রয়োজন মনে করলে পানি মেশাতে পারেন। মিশ্রণটি চাইলে পাটায় বেটেও করা যাবে। মিশ্রণটি ঢেলে নিয়ে মিহি কুচি করে কাটা পেঁয়াজ আর বাঁধাকপি মেশান। মিশ্রণটিতে যেন কোন লাম্প বা দলা না থাকে সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে। চুলায় মাঝারি আঁচে ফ্রাইং প্যান গরম করে তাঁতে ২ থেকে ৩ চা চামচ তেল দিন। চ্যাপ্টা খুন্তি ব্যবহার করে তেল প্যানের চারদিকে ছড়িয়ে দিন। প্রায় এক কাপের মত দোসা মিশ্রণ নিয়ে প্যানের মাঝ বরাবর ঢালুন ও ফ্রাইং প্যানের হাতল ধরে মিশ্রণটি ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে সমস্ত প্যানে ছড়িয়ে দিন। খুন্তি দিয়ে দোসার নীচের দিকে উলটে দেখুন বাদামি হয়েছে কিনা। যদি বাদামি হয়ে যায় তাহলে পুরো দোসাটাই উল্টে নিয়ে অপর পাশও বাদামি করে ভাঁজুন। প্রয়োজন মনে করলে আরও কয়েক ফোঁটা তেল দিন। দোসার দুই দিকেই ভালো মত রান্না হয়ে গেলে দোসাটি ভাঁজ করে তুলে ফেলুন। পুদিনা বা ধনেপাতার চাটনি দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন মজাদার বাঁধাকপির দোসা।

x