শিপইয়ার্ডে দুর্ঘটনা প্রতিরোধে মালিক-প্রশাসন সমন্বয় জরুরি

শিল্প মন্ত্রণালয় সম্মেলন কক্ষে মতবিনিময় সভা

আজাদী প্রতিবেদন

বৃহস্পতিবার , ১৪ নভেম্বর, ২০১৯ at ৩:২৬ পূর্বাহ্ণ
3

বাংলাদেশ জাহাজ পুনঃপ্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পের দুর্ঘটনা প্রতিরোধ এবং বিরাজিত বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের মাধ্যমে শিল্পের বিকাশের লক্ষ্যে সম্প্রতি এক জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় শিপইয়ার্ডে দুর্ঘটনা প্রতিরোধে মালিক ও প্রশাসনের সমন্বয় জরুরি বলে অভিমত ব্যক্ত করেন বক্তারা। শিল্প সচিব মোহাম্মদ আবদুল হালিমের সভাপতিত্বে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে মতবিনিময় সভায় মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিভাগ, স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বিএসবিআরএ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সভার সভাপতি মোহাম্মদ আবদুল হালিম বলেন, দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে জাহাজ পুনঃপ্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্প গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। এ শিল্পের সার্বিক উন্নয়ন ও বিকাশে শিল্প মন্ত্রণালয় আন্তরিকভাবে কাজ করছে। এর ধারাবাহিকতায় এ শিল্পের বর্তমান অবস্থা, সম্ভাবনা ও সমস্যাগুলো চিহ্নিত করার জন্য আহবান জানান। অতিরিক্ত সচিব (জাহাজ পুনঃপ্রক্রিয়া) এ কে এম শামসুল আরেফীন অর্থনীতিতে এ খাতের প্রভূত অবদান এবং সম্ভাবনার উপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, এ শিল্পের উন্নয়ন ও পরিবেশ সম্মতভাবে বিকাশে শিল্প মন্ত্রণালয় বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। পাশাপাশি দুর্ঘটনা ও সমস্যা থেকে উত্তোরণের জন্য আগামী ২-৩ বছরের মধ্যে ‘দি শিপ ব্রেকিং এন্ড রিসাইক্লিং রুলস-২০১১’ ও হংকং কনভেনশন অনুযায়ী ইয়ার্ডের উন্নয়নের লক্ষ্যে এসআরএফপি বাস্তবায়ন করতে হবে।
ইয়ার্ড মালিকদের পক্ষে বিএসবিআরএর প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আবু তাহের, নির্বাহী সদস্য জহিরুল ইসলাম রিংকু ও সদস্য মাস্টার আবুল কাশেম বক্তব্য রাখেন। বিএসবিআরএ’র পক্ষ থেকে জাহাজ পুনঃপ্রক্রিয়াজাতকরণ বোর্ড গঠনসহ বেশ কিছু সমস্যা তুলে ধরা হয়। বিশেষ করে- পরিবেশ অধিদপ্তর হতে মাটি, পানি পরীক্ষা ৪ মাসের পরিবর্তে ১ বছর করা, ইয়ার্ডের লাইসেন্স নবায়ন ১ বছরের পরিবর্তে ৩ বছর করা, বাহিত পণ্যের উপর দ্বৈত কর পরিহার করা, সহজ শর্তে ও স্বল্প সুদে ব্যাংক ঋণ প্রদান, পোড়া তেলের উপর আরোপিত শুল্ক প্রত্যাহার, ইঞ্জিন রুম সহ হট জোনে কাজ করার জন্য বিস্ফোরক পরিদর্শকের স্পষ্ট সার্টিফিকেট প্রদান, সিকস্তি ভূমি ১ বছরের পরিবর্তে ৫ বছরের জন্য লিজ প্রদান, স্থায়ী প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট স্থাপন, টিএসডিএফ স্থাপন, এসআরএফপি প্রনয়ন ও দাখিলের সময়সীমা ডিসেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত বৃদ্ধিকরণ, রাতে ইয়ার্ডে জাহাজ কাটার অনুমতি প্রদান, বন্ধ ইয়ার্ডগুলোর কার্যক্রম পুনরায় চালুকরণ এবং সীতাকুণ্ড উপকূলে প্রস্তাবিত মেরিন ড্রাইভের ফলে শিপ ইয়ার্ডগুলো যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় ইত্যাদি। মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে উক্ত সমস্যাগুলো সমাধানে পর্যায়ক্রমে পদক্ষেপ নেয়া হবে বলেও আশ্বাস প্রদান করা হয়েছে।

x