শাহ্‌ আমানত, টেরিবাজার ও লালদীঘির রাস্তাতে প্রতিনিয়ত যানজট, জনসাধারণের দুর্ভোগ চরমে

বৃহস্পতিবার , ৮ আগস্ট, ২০১৯ at ৩:২৫ পূর্বাহ্ণ
76

শাহ্‌্‌ আমানত, টেরিবাজার ও লালদীঘির সড়ক চট্টগ্রাম শহরের সবচেয়ে ব্যস্ততম সড়ক। প্রতিদিন লালদীঘির পূর্ব পাড় হতে ৬,৭,৮ নং সহ বহু ব্যস্ততম সড়কের লোকাল বাস এখানে থামে ও প্রতিনিয়ত এখান হতে ছাড়ে। এতে করে কোন নিয়ম নীতি ছাড়া যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং ও আগে যাবার প্রতিযোগিতায় ৬ নং, ৭ নং একের অধিক এক সাথে যাতায়াত করে এমনকি শাহ আমানত সড়ক এর প্রবেশমুখে গাড়ি রেখে যানজট সৃষ্টি করে। এছাড়া মাইক্রোবাসও যত্রতত্র রাখা হয়।এক লাইন এর অধিক দুই তিন লাইনসহ রাস্তার দুপাশে রাখা হয়। এমনকি পাবলিক টয়লেট মেরামত কাজের সামনের বি.দ্র. লেখা আছে কোন যানবাহন রাখবেন না। তবুও মাঝে মাঝে চোখে পড়ে। এছাড়া লালদীঘির এ সময় ট্রাফিক লাইটের দৃশ্য এখন চোখে পড়ে না। শুধু মাত্র ট্রাফিক নির্দেশনা চোখে পড়ে মাত্র। বহু সমস্যা কিন্তু সমাধান এখন মুখের বাণী। বর্তমান চট্টগ্রাম শহরে যানজট দৃশ্যপট হলেও দ্রুত সমাধান হচ্ছে না শুধুমাত্র জনগণ হয়রানি। টেরিবাজার মুখে ও বঙীরহা্‌ট ফুলের দোকানে যানজট প্রতিনিয়ত। রাত্রে ও সকালে ট্রাক আসার কথা থাকলেও এখন রাতদিন নয়, যখন তখন ট্‌্রাক ঢুকতে পারে আর যানজট কোন সমস্যা নয়। বিশেষ করে খাতুনগঞ্জ, কোরবানীগঞ্জ এর গাড়ি এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করে আর যে সমস্ত ট্রাফিকদের দেখা যায় তারা রাস্তায় দাঁড়িয়ে লাঠি দিয়ে গাড়ি তাড়ায় সত্য কিন্তু যানজট নিরসন করে না শুধুমাত্র ২০/৫০ টাকার আশায়। প্রাইভেট গাড়ি হলে তো কথা নেই। সরেজমিন দেখে টেরিবাজার ব্যবসায়ী সমিতি ও বঙীরহাট খাতুনগঞ্জ সমিতির সম্মিলিত উদ্যোগ গ্রহণ করা প্রয়োজন। সেই সাথে প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী সুনজরে কোরবানীগঞ্জ মুখে ও কায়সার নিলুফার কলেজের তিন রাস্তার মুখে সু-পরিকল্পিতভাবে যানজট নিরসন করতে পারে। সেই সাথে কায়সার নিলুফার কলেজের পার্শ্বে নালা পরিষ্কার ও নালার খালি জায়গাতে সৌন্দর্যবর্ধন গাছ লাগানো ও সেতু মেরামত করতে পারে। এছাড়া শাহ আমানত সড়ক হতে খাতুনগঞ্জ, আছদগঞ্জ ও চাক্তাই এর গাড়ি বা ট্রাক ঢুকে সেই ক্ষেত্রে যানজটের জন্য দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারে। আর লালদীঘি মাইক্রো সমিতি উদ্যোগ ও আইন মেনে মাইক্রোবাস রাখার সুব্যবস্থা হতে পারে। সমস্যা থাকবেই কিন্তু সমাধান আমাদের স্ব-উদ্যোগে ও সচেতনতায় হতে পারে সুন্দর আগামীর চট্টগ্রাম। রাস্তার আশেপাশে যে সমস্ত নর্দমা আছে এতে ময়লা না ফেলা সেই সাথে রাস্তাতে পাথর, মাটি বা রাস্তা সংস্কারে যে সমস্ত ময়লা আছে তা দ্রুত অপসারণ করা। ট্রাফিক আইন বাস্তবায়ন ও আমাদের আইন মেনে চলা। সুন্দর আগামীর জন্য সুন্দর পরিবেশ। শব্দ দুষণ যাতে না হয় সে দিকে গাড়ির চালকরা নজরদারি রেখে বড় হর্ণ হতে বিরত থাকা এবং কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি রাখা। আবার পুরাতন গাড়ি রাস্তায় যাতে না চলে সেদিকে নজর রাখা কর্তৃপক্ষের ও বিআরটিসির সুদৃষ্টিতে যানজট মুক্ত চট্টগ্রাম চাই।
এম. হেলাল বিন ইলিয়াছ, চট্টগ্রাম।

x