লামায় একই এলাকায় ১৬ ডেঙ্গু রোগী

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে : সিভিল সার্জন

লামা প্রতিনিধি

রবিবার , ২৫ আগস্ট, ২০১৯ at ১০:৩৬ পূর্বাহ্ণ
11

লামার একই এলাকায় ১৬ ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। যাদের মধ্যে বর্তমানে ৪ জন চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। অবশিষ্টরা চিকিৎসা শেষে নিজ বাড়িতে ফিরেছে। উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন এবং ১টি পৌরসভার মধ্যে একমাত্র সরই ইউনিয়নের কেয়াজু পাড়া বাজার এবং এর আশ-পাশ এলাকায় বসবাসকারীদের মধ্যে এসকল ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত করা হয় বলে জানা গেছে। বহিরাগত পর্যটকদের মাধ্যমে এলাকায় ডেঙ্গু সংক্রমিত হয়েছে মর্মে ধারণা করছেন স্থানীয়রা। বান্দরবান জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ অং সুই প্রু চৌধুরী বলেছেন, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সকল ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। আতংকিত হওয়ার কিছু নেই। সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।
সূত্র জানায়, উপজেলার সরই ইউনিয়নে অবস্থিত কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের কর্মচারি মো. ইসমাইল নামে একজন রোগী সর্বপ্রথম ডেঙ্গু আক্রান্ত হিসেবে সনাক্ত হয়। এরপর পর্যায়ক্রমে আরো ১৫ জন রোগী ডেঙ্গু আক্রান্ত হলে এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। ডেঙ্গু আক্রান্তরা হলেন ফয়াল হোসেন (১৯), কামরুল হাসান (২৫), মো. ফারুক (২৯), শাহআলম (২৬), মো. সাকিব (২১), চম্পা কর্মকার (২২), জায়েদ হোসেন (১১), মো. সোহেল (২০), কফিল উদ্দিন (৩৫), আমেনা বেগম (৩০), আবুল কালাম (৫০), মহিউদ্দিন (২২), আল-আমিন (৩৮), মো.জসিম উদ্দিন (৩৬) এবং তার পুত্র সাইফুল ইসলাম (১২) । আক্রান্তদের মধ্যে বর্তমানে ৪ জন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ লোহাগাড়া হাসপাতাল এবং পদুয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে। অবশিষ্টরা বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা শেষে নিজ বাড়িতে বিশ্রামে রয়েছেন। আক্রান্তদের বেশির ভাগই সরই কেয়াজু পাড়া বাজার এবং তৎসংলগ্ন বিভিন্ন পাড়ার বাসিন্দা। সরই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. ফরিদুল আলম জানিয়েছেন, গত দু’দিন ধরে নতুন কোন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। তিনি জানান, পবিত্র ঈদ-উল আযহা উপলক্ষে সরই কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনে বেশ কিছু পর্যটক আগমন করেছে। স্থানীয়রা ধারণা করছেন, তাদের কাছ থেকেই ডেঙ্গু এলাকায় সংক্রামত হয়েছে। লামা উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল জানিয়েছেন, সরই ইউনিয়নে ডেঙ্গু শনাক্ত হওয়ার পর থেকে জনমনে আতংক বাড়ছে। এডিস মশার বংশ-বিস্তার ঠেকাতে কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। সরই বাজার ও আশপাশের এলাকায় ডেঙ্গু প্রতিরোধে ফগার মেশিন দিয়ে ওষুধ ছিটানো হয়েছে। এছাড়া সচেতনতা বৃদ্ধিতে সভা করা হয়েছে ও মশারি বিতরণ করা হয়েছে। ডেঙ্গু কবলিত এলাকার মেডিকেল টিমের সদস্য ও লামা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক মিকু বড়ুয়া জানান, সরই ইউনিয়নে ডেঙ্গু শনাক্ত হওয়ার সাথে সাথে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মোহাম্মদুল হক স্বাস্থ্য বিভাগের স্বাস্থ্য পরিদর্শক দিদরুল ইসলাম চৌধুরীকে প্রধান করে ৮ সদস্য বিশিষ্ট মেডিকেল টিম গঠন করেন। নিজেই এ মেডিকেল টিমের তত্ত্বাবধান করেন ও সার্বিক দিক নির্দেশনা দেন। বর্তমানে এলাকায় বিশেষ এ মেডিকেল টিম কর্মরত আছে। লামা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোহামুদুল হক বলেন, প্রচার-প্রচারণায় যেভাবে আতংক ছড়িয়েছে, আসলে সেভাবে আতংকিত হওয়ার কোন কারণ নেই। আক্রান্তদের সকলেই সুস্থ রয়েছে।

x