রোহিঙ্গা গণহত্যা : তদন্তের অনুমোদন দিল আন্তর্জাতিক আদালত

শনিবার , ২৩ নভেম্বর, ২০১৯ at ৪:৫৯ পূর্বাহ্ণ
13

বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ মিয়ানমারের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতন ও গণহত্যার ব্যাপারে তদন্তের অনুমোদন দিয়েছে আন্তর্জাতিক আদালত (আইসিজে)। সামরিক বাহিনী কর্তৃক রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগ উঠে এসেছে তদন্তে। জাতিসংঘের তদন্তকারীরা বলছেন, আন্তর্জাতিক আদালতেই কেবল একটি রাষ্ট্র অন্য রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে মামলা করতে পারে। নির্যাতনের ভয়ে এ পর্যন্ত বাংলাদেশে প্রায় ৭ লাখ ৩০ হাজার রোহিঙ্গা পালিয়ে এসেছে। শান্তিতে নোবেল জয়ী অংসান সু চি জাতিসংঘের শীর্ষ আদালতে একটি প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে ওই মামলার যুক্তি উপস্থাপন করবেন বলে জানিয়েছেন। পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়া মামলা দায়ের করার পর সমর্থন দিয়েছে ইসলামী সহযোগীতা সংস্থার ৫৭ দেশ। সে হিসেবে আন্তর্জাতিক আদালত জানিয়েছে, আগামী ১০-১২ ডিসেম্বর আদালতে এই মামলার শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। আল জাজিরার তথ্যমতে, এই মামলাটি রোহিঙ্গা সঙ্কট নিয়ে মিয়ানমারকে বিচারের আওতায় আনার প্রথম আন্তর্জাতিক আইনী প্রচেষ্টার পদক্ষেপ। একটি দেশের জন্য অন্য একটি দেশের বিরুদ্ধে মামলার এমন উদাহরণ ইতিহাসে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করবে। রোহিঙ্গা জোটের প্রচারণা সমন্বয়কারী সান লুইন আল জাজিরাকে বলেন, রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেওয়া অধিকার ফিরে পাওয়ার প্রথম পদক্ষেপ এই মামলা।
তিনি আরও বলেন, আমরা ১৯৭৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত অগণিতবার গণহত্যার শিকার হয়েছি। সব সময় ন্যায়বিচারের প্রত্যাশা করে আসছি। আমাদেরকে দেশ থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। মৌলিক অধিকার, পূর্ণ নাগরিকত্ব ও মিয়ানমার জুড়ে অন্যান্যদের মতো সমান অধিকার নিয়ে আমরা আমাদের মাতৃভূমি আরাকানে ফিরে যেতে চাই। প্রথমবারের মত এই মামলার শুনানির কথা শুনে আমাদের আনন্দ প্রকাশের ভাষা জানা নেই। তিনি যোগ করেন, হামলা প্রতিরোধে আমাদের সুরক্ষা প্রয়োজন। আন্তর্জাতিক আদালতের মাধ্যমে আমরা মামলাটি জাতিসংঘের সুরক্ষা কাউন্সিলে নিয়ে যাওয়া মাধ্যমে দুষ্কৃতিকারীদের শাস্তির ব্যবস্থা করব।

x