রেজাউল করিম স্বপন (মৃত্যুর চিন্তা)

বুধবার , ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ at ৬:৩৫ পূর্বাহ্ণ
72

: বেশ কিছুদিন যাবত মৃত্যুর চিন্তা মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে । ভাবি মৃত্যুর কষ্টের কথা। কেউ একজন বলেছিলেন, মৃত্যুর কষ্ট হচ্ছে জীবিত মানুষের শরীর হতে ছুরি দিয়ে চামড়া খুললে যে কষ্ট, তার থেকে অনেক বেশি। ভাবি এতো কষ্ট কিভাবে সহ্য করবো। যদিও প্রতিটি জীবকেই মৃত্যুবরণ করতে হবে। আমাদের শরীরে একটু জ্বর বা সর্দি বা শরীরে একটা সুই ফুটলে সমস্ত শরীর ব্যথা করে আর মৃত্যুর যন্ত্রণা, সেটা জীবিত মানুষের কল্পনার থেকেও বেশি। আমি একবার হাসপাতালে সিসিইউতে হৃদরোগে আক্রান্ত একজন মহিলার মৃত্যুর সময় সামনে ছিলাম। মহিলা বিকট চিৎকার করে একলাফে উঠে বসে আবার শুয়ে পড়ে।এভাবে প্রায় ৩০ মিনিট করার পর মহিলা নিস্তেজ হয়ে যায়। আর একবার একজন বোন্‌্‌ ক্যান্সারের রোগী দেখেছিলাম। যখন ব্যথা উঠতো মাটিতে চিৎকার করে গড়াগড়ি খেতো। বলতো ব্যথার সময় ওনার নাকি কপালের হাড় কেটে ফেলতে ইচ্ছা করতো। আর একজন মহিলা যিনি হেপাটাইটিস ই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। ডাক্তাররা ওনাকে হাসপাতালে হাত পা বেঁধে রেখেছিলেন, যন্ত্রণায় সারাদিন রাত শুধু সন্তানদেরকে চিৎকার করে ডাকতেন। এই যে মৃত্যুর এতো ভয়াবহ কষ্ট, আমরা কি একবারো এই কষ্টের কথা ভেবে দেখি। অথচ আমাদের সবার জন্য মৃত্যু অবধারিত, তবু আমরা এমনভাবে চলাফেরা করি যেন আমরা কখনোই মৃত্যুবরণ করবো না। চলতে ফিরতে অযথা মানুষকে অপমান-অপদস্ত ও তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করি। কারণে অকারণে অন্যের ক্ষতি করি। মানুষকে অযথা কষ্ট দিই। অন্যের নামে গীবত ও নিন্দা ছড়াই। নিজের কাজ না করে অন্যকে উপদেশ দিই। মনে করি অন্য সবার থেকে আমি অনেক বেশি জানি ও বুঝি। শুধু নিজের স্বার্থের জন্য সত্যকে মিথ্যা, মিথ্যাকে সত্য বলে চালিয়ে দিই। কিন্তু কয়দিন এসব অন্যায় করতে পারবো তা চিন্তা করি না। অন্যদিকে ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলি না। ফ্রি স্টাইলে চলা ফেরা করি। এই যে দম্ভোক্তি আল্লাহ তায়ালা কিন্তু এগুলো খুব অপছন্দ করেন। তাই আমাদেরকে বেশি বেশি এবাদত করা দরকার। আল্লাহ তায়ালার কাছে ক্ষমা চাওয়া ও তার সৃষ্টির সাথে ভাল ব্যবহার করা দরকার। তাহলে হয়ত আমরা নাজাত পেতে পারি ও মৃত্যুর যন্ত্রণা থেকে কিছুটা হলেও মুক্তি পেতে পারি।

x