রামুতে করোনা রোগীর চিকিৎসায় ৫০ শয্যার আইসোলেশন ইউনিট

রামু প্রতিনিধি

বৃহস্পতিবার , ২৬ মার্চ, ২০২০ at ১১:২৭ অপরাহ্ণ
110

কক্সবাজারের রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রস্তুত করা হয়েছে করোনায় আক্রান্ত রোগীদের সেবাদানের জন্য ৫০ শয্যার আইসোলেশন ইউনিট।

এই ইউনিটে সেবাদানে নিয়োজিত থাকবেন সাত চিকিৎসকসহ ১৫ জনের একটি টিম।

তবে রোগীর সংখ্যা বাড়লে চিকিৎসক-সেবিকার সংখ্যাও বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

আজ বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) বিকালে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৩১ থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীতকরণের জন্য তৈরি নতুন ভবনের উদ্বোধন করেন কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল।

এই নতুন ভবনেই করোনা রোগীদের জন্য প্রস্তুত করা হয় ৫০ শয্যার একটি আইসোলেশন ইউনিট।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি বলেন, ‘রামু হাসপাতালের নতুন এই ভবনেই করোনা রোগীদের চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে। সেই লক্ষে আইসোলেশন ইউনিটে সেবাদানের জন্য চিকিৎসক ও নার্সদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। প্রস্তুত করা হয়েছে ভবনও।’

তিনি আরও বলেন, ‘করোনা মারাত্মক কোনো রোগ নয়। আতংকিত না হয়ে সতর্কতার মাধ্যমে এটাকে প্রতিরোধ করা সম্ভব।’

এ সময় তিনি সামাজিক সচেতনতার মাধ্যমে মানুষবাহিত এই রোগ প্রতিরোধ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘সবাই দয়া করে নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করুন এবং সরকারের নির্দেশনা মেনে চলুন।’

দেশবাসীর কাছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এখন করোনার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ যুদ্ধ করছে। আপনারা ঘরে বসেই সেই যুদ্ধে সামিল হবেন। কোলাহলপূর্ণ বাজার ও সামাজিক অনুষ্ঠানকে বয়কট করুন। সরকার নির্ধারিত সময় পর্যন্ত বাড়িতে অবস্থান করুন। সারাবিশ্ব আজ কোয়ারেন্টিনে আছে, আপনারাও সেভাবে থাকুন।’

রামু উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নোবেল কুমার বড়ুয়া’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কামাল শামশুদ্দিন আহমেদ প্রিন্স, রামু প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি খালেদ শহীদ, রামু উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক নীতিশ বড়ুয়া প্রমুখ।

রামু উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নোবেল কুমার বড়ুয়া বলেন, ‘করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের শনাক্ত হওয়ার পর এই ইউনিটে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে। সেই লক্ষে হাসপাতালের নতুন এই ভবনে ৫০ শয্যার একটি ইউনিট প্রস্তুত করা হয়েছে। সেখানে আপাতত ৭ চিকিৎসক এবং আটজন প্রশিক্ষিত নার্স সেবাদান করবেন। রোগীর সংখ্যানুযায়ী চিকিৎসক-নার্সের সংখ্যাও বাড়ানো হবে।‘

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীতকরণের কাজ শুরু করা হয়। নিয়ম অনুযায়ী ২০০৯ সালের আগস্টে সেই প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ১৩ বছর পর আজ সেই নতুন ভবনের উদ্বোধন করা হলো।