রফতানি সম্প্রসারণের লক্ষ্যে এফটিএকে অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে : বাণিজ্যমন্ত্রী

সোমবার , ২১ অক্টোবর, ২০১৯ at ৩:৪০ পূর্বাহ্ণ
50

রফতানি বাণিজ্য সম্প্রসারণের লক্ষ্যে সরকার মুক্ত বাণিজ্য চুক্তিকে (এফটিএ) সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন, ‘২০২৪ সালে আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হবে তখন আমাদের কিছু বাণিজ্য সুবিধা যেমন কমে আসবে, পাশাপাশি নতুন নতুন প্রতিযোগীদের সাথে লড়াই করতে হবে। ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে তাই আমাদের এখনই এফটিএ করার প্রয়োজন। সরকারও সেটিকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিচ্ছে।’ শনিবার রাজধানীর একটি পাঁচতারকা হোটেলে ‘বৈশ্বিক মুক্ত বাণিজ্য সম্পর্ক জোরদারকরণ’ বিষয়ক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন। কমনওয়েলথ অফ ইন্ডিপেন্ডেড স্টেট-বাংলাদেশ চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (সিআইএস-বিসিসিআই) সেমিনারের আয়োজন করে। খবর বাসসের।
সিআইএস-বিসিসিআই সভাপতি হাবিব উল্লাহ ডনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মূখ্যসচিব মো. নজিবুর রহমান, বাণিজ্য সচিব ড. মো. জাফর উদ্দিন, রফতানিমুখী তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমই-এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফয়সাল সামাদ ও বিকেএমইএর প্রথম সহসভাপতি মো. হাতেম, বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) বিশেষ ফেলো ড. মুস্তাফিজুর রহমান, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শরীফা খান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
সেমিনারে সিআইএস-বিসিসিআই উপদেষ্টা মনজুর আহমেদ ও সংগঠনের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি লোকমান হোসেন আকাশ যৌথভাবে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।
ইউরোশিয়া ও মার্কোসাভুক্ত দেশের সঙ্গে এফটিএ স্বাক্ষর হলে সেখানে বাংলাদেশের রফতানি সম্প্রসারণের অবারিত সুযোগ রয়েছে উল্লেখ করে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ইউরোশিয়ায় বাংলাদেশের পোশাক পণ্যের বড় বাজার রয়েছে। রাশিয়া ও এর পার্শ্ববর্তী দেশগুলোতে কমপক্ষে ৪ থেকে ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের পোশাক রফতানি করা যাবে। এছাড়া মার্কোসাভূক্ত চারটি দেশ ব্রাজিল, আর্জেনটিনা, প্যারাগুয়ে ও উরুগুয়েতে আমরা পোশাক রফতানি করতে পারি। আমরা এসব দেশের সঙ্গে এফটিএ স্বাক্ষর করতে প্রস্তুতি গ্রহণ করছি বলে তিনি জানান।
তিনি বলেন, ব্রাজিল আমাদের কাছ থেকে পোশাক কিনবে, এর বিনিময়ে তারা গরুর মাংশ পাঠাতে চাই। আবার গরুর মাংশ আনার বিষয়ে আমাদের মাংশ ব্যবসায়ীদের আপত্তি রয়েছে। তাই জাতীয় স্বার্থ বিবেচনায় রেখে কোনটিতে আমরা লাভবান হবো, সেই হিসাব করতে হবে।

x