যানজট নিরসনে ছয় লেন দ্রুত বাস্তবায়ন জরুরি

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক

মাহবুব পলাশ, মীরসরাই

মঙ্গলবার , ১৫ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৭:০৭ পূর্বাহ্ণ
209

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা- দাউদকান্দি এলাকায় গত সপ্তাহে টানা কয়েকদিন ধরে যানজটের কবলে ভোগান্তিতে ছিল হাজার হাজার যাত্রী সাধারণ। মহাসড়কে দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়া বাড়তি যানবাহনের ক্রমাগত চাপ বৃদ্ধির দরুন ফোরলেন বাস্তবায়নের পর ও বিভিন্ন স্থানে সংকুলান হচ্ছে না যানবাহনের স্বাভাবিক চলাচল। স্বাভাবিক গতিতে ও যানবানহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটতে দেখা যাচ্ছে। তার উপর হাটবাজার এলাকার সংকীর্ণ সড়কের জন্যও বৃদ্ধি পাচ্ছে দুর্ভোগের চিত্র। এই চিত্র কুমিল্লা থেকে ঢাকায় যেভাবে বেড়েছে এরপর চট্টগ্রামে ও চট্টগ্রামের শহরতলি সিটিগেট থেকে শুরু করে মীরসরাই এলাকায়ও পৌঁছুবে বলে পর্যবেক্ষক মহল মনে করেন। ইতিমধ্যে সিক্স লেনের অধিগ্রহণ কাজ শুরু হলে কার্যত সিক্স লেন প্রক্রিয়ার ধীরগতির কারণে শীঘ্রই চট্টগ্রাম অংশে ও দূরপাল্লার যাত্রীদের ভোগান্তি শীঘ্রই বৃদ্ধি পাবে বলে জনমতে প্রকাশ। ঢাকা- চট্টগ্রাম মহাসড়কের মহাসড়কের মেঘনা ও গোমতি সেতুতে কোন গাড়ি বিকল হলে আবার অতিরিক্ত গাড়ির চাপে আবার হাটবাজার এলাকায় গত ৯ জানুয়ারি থেকে ১১ জানুয়ারি পর্যন্ত তিনদিন ধরে দিন রাত কম বেশী যানজট অব্যাহত ছিল। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার দাউদকান্দির রায়পুর থেকে গোমতি সেতু পার হয়ে মেঘনার সোনারগাঁও পর্যন্ত দীর্ঘ ৪০ কিলোমিটার যানজট অব্যাহত ছিল দুই দিন ধরে। টানা এই কদিনের যানজটের ফলে স্থবির হয়ে দূরপাল্লার যাত্রীরা প্রচন্ড শীতে আটকে পড়া যাত্রীবাহী ও রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স আটকে পড়ে দুর্ভোগের শিকার হয়েছে। অনেক যাত্রীও এবারের ভোগান্তির কথা গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে উদ্বেগের সাথে জানিয়েছেন।
দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশ ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর আমদানি-রপ্তানি পরিবহন বন্ধ থাকার পর অতিরিক্ত গাড়ির চাপ ও টানা ২ দিন ধরে মহাড়কের মেঘনা ও গোমতী সেতুতে গাড়ি আটকে থাকায় গত মঙ্গলবার থেকে এ যানজটের সৃষ্টি হয়।
ইলিয়টগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের পরিদর্শক মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, মহাসড়কে এমনিতেই অতিরিক্ত গাড়ির চাপ আবার অন্যদিকে কয়েক মাইল যানজট হলেই রাতের বেলায় পণ্যবাহী গাড়ির চালকরা সড়কের মাঝপথে রেখেই ঘুমিয়ে পড়ার কারণেই যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশের ওসি মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর অতিরিক্ত মালবাবোঝাই গাড়ির চাপ অন্যদিকে দুই সেতুতে দফায় দফায় গাড়ি বিকল হওয়ার কারণে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। তবে যানজট স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে হাইওয়ে ও জেলা পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে।
হাইওয়ে পুলিশের জোরারগঞ্জ ফাঁড়ি ইনচার্জ সোহেল সরকার বলেন, ইতিমধ্যে নতুন সরকারের কাছে দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ীরা ও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ককে সিক্স লেনের বিষয়ে জোর দাবি উত্থাপন করেছেন। আশা করছি নতুন সরকার কার্যকর উদ্যোগ নিলে এই সমস্যা অচিরেই সমাধান হবে।
ফোরলেন কর্তৃপক্ষে চট্টগ্রাম অঞ্চলের ব্যবস্থাপক এবং চট্টগ্রামের সড়ক ও জনপথের নির্বাহী প্রকৌশলী জুলফিকার আহমেদ বলেন, সরকার ইতিমধ্যে সিঙ লেনের প্রাথমিক নকশা চূড়ান্ত পর্যায়ে এনেছে। আবার জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়াও শেষের দিকে। আশা করা হচ্ছে শীঘ্রই এই দৃশ্যত কাজ শুরু হবে। তাই মহাসড়কের সিক্স লেনে রুপান্তরিত করার বিষয়টি শুধুমাত্র সময়ের ব্যাপার এখন মাত্র। তবে সাধারন মানুষ বুঝে শীঘ্রই ভোগান্তি লাঘবে কার্যকর উদ্যোগ। তাই নতুন সরকারের কাছে সর্বসাধারনের গণদাবি পূর্বের মতো আবারো সেই দুঃসহ যানজটের দূর্ভোগে যেন পড়তে না হয় মহাসড়কে চলাচলকারীদের।

x