মুত্তাকী হয়ে ভাল কাজের মাধ্যমে আল্লাহ ও রাসুলের (দ.) সন্তুষ্টি অর্জন করতে হবে

রাউজানে সুন্নী কনফারেন্সে আল্লামা তাহের শাহ (মাজিআ)

রাউজান প্রতিনিধি

রবিবার , ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ at ৯:৫৮ পূর্বাহ্ণ
68

রাউজান সরকারি কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত রাহমাতুল্লিল আলামীন (দ) কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হযরতুল আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ (মাজিআ) বলেছেন, মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন অল্প সময়ের জন্য মানুষকে পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন। তাই এ সময়কে আখেরাতের জন্য কাজে লাগিয়ে মুত্তাকী বনে সমাজে ভালো কাজ করে মহান আল্লাহ ও তাঁর রাসুল (দ) এর সন্তুষ্টি অর্জন করতে হবে। তিনি আরও বলেন, আমাদের দেহ এবং প্রাণ খুব অল্প সময়ের জন্য একত্রিত আছে। আর এই সংক্ষিপ্ত সময়টিই এবাদত বন্দেগীর একমাত্র সুযোগ। যা কবরে হাশরে আর ফিরে পাওয়া যাবে না। এ জন্য নিজেদেরকে মন্দ লোক থেকে রক্ষা করতে হবে। পাশাপাশি দ্বীনি খেদমত করা অতীব জরুরি। হুজুর কেবলা আরও বলেন, তাওবার মাধ্যমে জীবনের সকল পাপ মোচন হয়ে যায় বটে, কিন্তু জালেম ও অপরের হক্ব ধ্বংসকারী, আত্মসাতকারীরা কোন পার পাবে না। যতক্ষণ না তিনি মজলুমের কাছে ক্ষমা না চাইবে কিংবা হক্ব আদায় না করবে। গতকাল শনিবার রাউজান উপজেলা (উত্তর) গাউছিয়া কমিটি আয়োজিত পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (দ) উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত কনফারেন্সে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শাহজাদা আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ কাসেম শাহ (মাজিআ) ও শাহাজাদা সৈয়দ মুহাম্মদ হামিদ শাহ (মাজিআ)।
সন্ধ্যার পর আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ (মাজিআ) এখানে এসে প্রথমে রাউজান আর আর এসি উচ্চ বিদ্যালয়ে মহিলাদের বাইয়াত কার্যক্রম পরিচালনা করেন। এরপর তিনি যোগ দেন রাউজান কলেজ মাঠে সমাবেশে। বিকাল থেকে হুজুর কেবলার আগমনকে ঘিরে মুন্সিরঘাটা, ফকিরহাটসহ কলেজ মাঠ লোকে লোকারণ্য হয়ে পড়ে। কলেজ মাঠেও হাজার হাজার মানুষ হুজুরের বাইয়াত গ্রহণ করেন। রাউজান উপজেলা (উত্তর) শাখা গাউসিয়া কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা ইলিয়াছ নূরীর সভাপতিত্বে ও মাওলানা ইয়াসিন হোসাইন হায়দরী ও আলহাজ আহসান হাবিব চৌধুরী হাসানের সঞ্চালনায় সমাবেশে অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আনজুমানে রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্টের সিনিয়র সহ সভাপতি মুহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জুনায়দে কবির সোহাগ, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি কাজী আব্দুল ওহাব, জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি আনোয়ার ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক বশির উদ্দিন খান, পৌরসভার প্যানেল মেয়র-২ জমির উদ্দিন পারভেজ, আঞ্জুমানের জয়েন্ট সেক্রেটারি সিরাজুল হক, মোহাম্মদ শামসুদ্দিন, গিয়াস উদ্দিন শাকের, অধ্যাপক কাজী শামসুর রহমান, গাউসিয়া কমিটির কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান পেয়ার মুহাম্মদ কমিশনার, জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার শায়খুল হাদিস আল্লামা মুফতি ওবাইদুল হক নঈমী, আরব আমিরাত গাউছিয়া কমিটির সেক্রেটারি জানে আলম, গাউছিয়া কমিটির যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, শায়খুল হাদিস কাজী মঈনুদ্দিন আশরাফি, মাওলানা জসিম উদ্দিন আজহারি, অধ্যক্ষ রফিক আহমদ ওসমানী, উপাধ্যক্ষ মারেফাতুন নুর, মাওলানা আহমদ উল্লাহ, ফোরকান আল কাদেরী, এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, প্রকৌশলী নুরুল আজিম, তাওহিদুল আলম, ইউপি চেয়ারম্যান বিএম জসিম উদ্দিন হিরু, বাবুল মিয়া মেম্বার, আবদুল্লাহ আল মামুন, কাউন্সিলর জানে আলম জনি, শওকত হোসেন, মাওলানা ইব্রাহিম নঈমী, অধ্যক্ষ আবু জাফর, শাহাজাহান ইকবাল, সৈয়দ হোসেন কোম্পানী, অধ্যক্ষ আবু মোস্তাক আল কাদেরী, কামরুল আহসান চৌধুরী, কমর উদ্দিন সবুর, হাবিব উল্লাহ মাস্টার, আবু ইউচুপ চৌধুরী, সৈয়দ মুহাম্মদ হোসেন, আবু বক্কর সওদাগর, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হানিফ।
এর আগে দুপুরে আল্লামা তাহের শাহ (মাজিআ) দুই শাহজাদাকে নিয়ে উপজেলার নোয়াজিশপুর তৈয়্যবিয়া তাহেরীয়া মিনা আকবর মাদরাসা হেফজ ও এতিমখানার বার্ষিক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। নোয়াজিষপুর ইউপি চেয়ারম্যান লায়ন এম সরোয়ার্দী সিকদারের সভাপতিত্বে এখানে প্রধান আলোচক ছিলেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসার শাইখুল হাদিস মুফতি ওবায়দুল হক নঈমী। মাদরাসা প্রতিষ্ঠাতা প্রবাসী মোহাম্মদ ফরিদুল আলমের ব্যাবস্থাপনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ আলোচক ছিলেন হাটহাজারীর গাউছিয়া আজিজিয়া জামে মসজিদের খতিব মাওলানা সৈয়দ মোহাম্মদ শাহ্‌ মাছরুফ কাদেরী, মিনা আকবর জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মুহাম্মদ আবুল বশর মাইজভান্ডারী। উদ্বোধক ছিলেন ফটিকছড়ির শামসুল উলুম সুন্নিয়া সিনিয়র মাদ্রাসার প্রভাষক মাওলানা মোহাম্মদ হারুন উর রশিদ নক্সবন্দী।

x