মুক্তিযুদ্ধের শহীদ জাফর : একটি বিস্মৃত নাম ও একটি আবেদন

বুধবার , ২০ মার্চ, ২০১৯ at ১১:১৬ পূর্বাহ্ণ

ইতিহাসের গৌরবদীপ্ত একটি দেশ আমাদের বাংলাদেশ। অনেক রক্ত, জীবন ও ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার দেশ বাংলাদেশ। বিগত ৬০ দশকের বিভিন্ন আন্দোলনের মাধ্যমে স্বাধীনতা সংগ্রামের জন্য প্রসু্তত হচ্ছিল বাংলাদেশ। পরিণতিতে ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা লাভ ও ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় অর্জন। স্বাধীনতা সংগ্রামের শুরু হতেই বিভিন্ন আন্দোলন ও কার্যক্রমে সক্রিয় ভূমিকা পালন, সহায়তা ও সহযোগিতা দান করেছিল বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত অগুনিত শিক্ষার্থী। তাদের একজন হচ্ছে চট্টগ্রাম মিউনিসিপ্যাল মডেল হাই স্কুলে পাঠরত এক ছাত্র, নাম জাফর। ১৯৬৮/৬৯ এর দিকে এ স্কুলে ছাত্র থাকাকালে ক্রীড়া সহ নানামুখী কর্মতৎপরতার জন্য ছাত্র শিক্ষক মহলে নজর কাড়েন ছাত্র জাফর। এ স্কুলের শিক্ষকগণ স্কুলের বিভিন্ন কার্যক্রমে জাফর সহ কয়েকজনকে কাজে লাগাতেন। মুক্তিযুদ্ধ শুরুর প্রাক্কালে ১৯৭১ সালের মার্চ মাসের ২য় সপ্তাহের কোন এক দিন জামালখান দিয়ে যাওয়ার সময় ছদ্মবেশী পাকিস্তানি বাহিনীর কতিপয় সৈন্য জাফরকে গুলি করে। পথেই জাফর শহীদ হয়ে যান। বাংলাদেশের স্বাধীনতা প্রাপ্তির পর ১৯৭২ সালে মিউনিসিপ্যাল স্কুল হতে প্রকাশিত ম্যাগাজিন ‘কিশলয়’ শহীদ জাফরকে উৎসর্গ করা হয়। স্কুলের প্রবীন শিক্ষক শশাঙ্ক মোহন শীল ম্যাগাজিনে শহীদ জাফরের ছবির নিচে এক স্বরচিত কবিতা তাঁকে উৎসর্গ করেন। বর্তমানে শহীদ জাফর বিস্মৃত একটি নাম। তাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আবেদন করা হচ্ছে শহীদ জাফর সম্পর্কে তথ্য অনুসন্ধানের মাধ্যমে চট্টগ্রাম মডেল হাই স্কুল মিলনায়তনের নাম শহীদ জাফর মিলনায়তন করা হোক। এতে মিউনিসিপ্যাল হাই স্কুলের গৌরব বহুলাংশে বৃদ্ধি পাবে।
কামরুল এ. চৌধুরী
ডি.সি. রোড, চকবাজার, চট্টগ্রাম।

x