মানুষের মন জয় করা

রূপম চক্রবর্তী

শুক্রবার , ৮ নভেম্বর, ২০১৯ at ৮:৩৩ পূর্বাহ্ণ
43

শিক্ষক পরিবারের সন্তান হিসেবে ছোট বেলা থেকে বড় জনদের শ্রদ্ধা করার শিক্ষা রপ্ত করেছি। বাবা আমাকে শিখিয়েছেন রাস্তায় শিক্ষক শিক্ষিকা দেখলে শ্রদ্ধা করতে হবে। আমার শৈশবে গ্রামের চায়ের দোকানে বসা নিষিদ্ধ ছিল। এখনো গ্রামে গেলে চায়ের দোকানে খুব একটা বসা হয়না। চায়ের দোকানে মুরব্বিরা বসেন, কাকা, চাচারা বসেন তাই আমার বাবা আমাকে দোকানে বসে চা খাওয়ার অনুমতি দেননি। যতদূর সম্ভব আমি চেষ্টা করেছি ছোট বেলায় পাওয়া নৈতিক শিক্ষাগুলো নিজের জীবনে কাজে লাগানোর। গত কয়েকদিন আগে আন্দরকিল্লা দিয়ে হেঁটে আসছি। হঠাৎ দেখি এক যুবক এক বয়স্ক মানুষকে কথা কাটাকাটির জের ধরে টেনে নিয়ে যাচ্ছে। তেইশ বা চব্বিশ বছরের যুবকটি ফোন করে তার বাহিনীকেও নিয়ে আসার চেষ্টা করছে। যদিও স্থানীয় মানুষের প্রচেষ্টায় বড় ধরনের ঘটনা ঘটেনি। তারপরও এই ঘটনা আমার কাছে কিছু লিখার খোরাক যুগিয়েছে।
এই রকম অহরহ ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটছে। কলেজ লেভেলের কিছু উচ্ছৃঙ্খল ছাত্র শিক্ষকদের অসম্মান করছে। পাবলিক জায়গাগুলোতে প্রকাশ্য ধূমপান করছে। মেয়েদেরকে উত্ত্যক্ত করছে। সম্মানিত ব্যক্তিদের ফেসবুক আইডি হ্যাক দেশের শান্তি নষ্ট করছে। কিশোররা বিভিন্ন গ্রুপে বিভক্তি হয়ে নিজেদের মধ্যে বিবাদে জড়িয়ে পড়ছে। ভাবতে অবাক লাগে যখন একজন ছাত্র আরেকজন ছাত্রকে হত্যা করার জন্য অস্ত্র হাতে নেয়। খবরের কাগজে পড়লাম কিছু ছাত্র তাদের একজন শিক্ষককে পুকুরে নিক্ষেপ করেছে। এই যে ছাত্রগুলো দিনদিন মানবতা হারিয়ে ফেলছে তার জন্য কি আমাদের কিছুই করার নাই? আমাদের কিশোর, আমাদের ছাত্র, আমাদের ছেলেরা যদি ভাল হয়, শ্রদ্ধাশীল হয় তাহলে দেশের জন্য অনেক শুভ হবে, মঙ্গল হবে। আমরা প্রত্যেকে প্রত্যেকের জায়গা থেকে আগামী প্রজন্মকে সুশিক্ষা দেওয়ার চেষ্টা করব। লেখাপড়ার পাশাপাশি সুশিক্ষা না দিলে এর দায়ভার আমাদেরও বহন করতে হবে। আমি আমার ছেলে মেয়েকে লেখাপড়ার পাশাপাশি মহামনীষীদের জীবনের সাথে পরিচয় করিয়ে দেব। আমি আমার সন্তানদের ধর্মীয় বাণীগুলোর সাথে পরিচয় করে দেব। তাকে শেখাব উগ্রতা দিয়ে মানুষের মন জয় করা যাবে না। তাকে শেখাব মানুষকে ভালবাসার মাধ্যমেই মানুষের মন জয় করা যাবে।

x