মহেশখালীর জামালের জালে ৪০ লাখ টাকার স্বর্ণালী পোপা!

মহেশখালী প্রতিনিধি

বুধবার , ৬ নভেম্বর, ২০১৯ at ১১:০৮ অপরাহ্ণ
1463

সাগরে জাল ফেলার দীর্ঘ সরকারি নিষেধাজ্ঞা চলছিল। জেলেরা অলস দিন কাটিয়েছে বেশ কিছুদিন। এসময় ট্রলার মালিক জামাল হোসেন ও জেলেরা মন মরা সময় পার করছিল। প্রান্তিক জেলে জামালের লাখ দুয়েক টাকা দেনাও রয়েছে। দেনা পরিশোধের সামর্থও নেই। এমন সময় নিষেধাজ্ঞা উঠে গিয়ে যখন সাগরে মাছ ধরতে যায়, অমনি ভাগ্য যেন ধরা দেয় সৌভাগ্যবান ওই জেলেটির হাতে।

তেমনি এক ঘটনায় সাগরের মহামূল্যবান প্রজাতির বড় সাইজের ৮১টি স্বর্ণালী পোপা মাছ ধরা পড়লো মহেশখালীর মাতারবাড়ি ইউনিয়নের সাইরার ডেইল গ্রামের জামাল উদ্দিন বহদ্দারের জালে যার বর্তমান বাজার মূল্য হবে আনুমানিক এক কোটি টাকা। কাকতালীয়ভাবে এ ভাগ্যের ঘটনাটি ঘটলো গতকাল ৬ নভেম্বর মহেশখালীর মাতারবাড়ীতে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ি ইউনিয়নের সাইরার ডেইল এলাকার মৃত মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে জামাল উদ্দিন বহদ্দারের একটি ফিশিং বোটের জালে ধরা পড়ে ৮১টি বড় সাইজের অতি মূল্যবান স্বর্ণালী পোপা মাছ।

আজ বুধবার (৬ নভেম্বর) সকালে কক্সবাজার উপকূলের খুব কাছাকাছি বঙ্গোপসাগরের দ্বীপ উপজেলা কুতুবদিয়া চ্যানেলে মাছগুলো ধরা পড়ে।

ট্রলার মালিক জামাল উদ্দিন বহদ্দার জানান, মঙ্গলবার রাতে মাতারবাড়ির পশ্চিম পাশে কুতু্বদিয়া চ্যানেলে জেলেরা জাল বসায়। আজ সকালে জাল তুলতে গিয়ে তিনি দেখতে পান, জাল টেনে কূলে তুলে আনা যাচ্ছে না। পরে আরো লোকজনের সহায়তায় জাল তোলা হলে দেখে ৮১টি স্বর্ণালী পোপা মাছ ধরা পড়েছে।

প্রতিটি মাছের ওজন ২০ থেকে ২৫ কেজি হতে পারে। মাছগুলো মাতারবাড়ি উপকূলে আনা হলে শত শত উৎসুক জনতা তা দেখতে ভিড় জমায়।

এসময় ট্রলার মালিক তাৎক্ষণিক ৮০ লাখ টাকা দাম হাঁকালে প্রথমে ৩৯ লাখ টাকা পর্যন্ত দর উঠে। অনেক দরদামের পর কক্সবাজার ফিশারী ঘাটের জনৈক ইসহাক সওদাগর নামের এক ব্যবসায়ী ৪০ লাখ টাকায় মাছগুলো কিনে নেন বলে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছে, মহেশখালী দ্বীপের ইতিহাসে ইতিপূর্বে এক সাইজের এতো বড় স্বর্ণালী পোপা মাছ আর কোনো জেলের জালে ধরা পড়েনি।

তারা জানান, মাছগুলো সময়মতো চট্টগ্রামে নিয়ে বাজারজাত করে বিক্রি করতে পারলে প্রায় কোটি টাকায় বিক্রি হতো বলে তারা মন্তব্য করেন।

x