মনোনীত হয়েও ভর্তি নিশ্চায়ন করেনি প্রায় ১৩ হাজার শিক্ষার্থী

৬ সরকারি কলেজে ৫১৮টি আসন শূন্য

রতন বড়ুয়া

শুক্রবার , ২১ জুন, ২০১৯ at ৬:১১ পূর্বাহ্ণ
241

একাদশে ভর্তিতে প্রথম মেধা তালিকায় মনোনীত হয়েও ভর্তি নিশ্চায়ন করেনি চট্টগ্রামের প্রায় ১৩ হাজার শিক্ষার্থী। গত ৯ জুন রাতে প্রথম মেধা তালিকা প্রকাশিত হয়। এ তালিকায় চট্টগ্রামের কলেজগুলোতে ভর্তির জন্য মনোনীত হয় মোট ১ লাখ ৮ হাজার ৫৭৮ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে গত ১৮ জুন পর্যন্ত ৯৫ হাজার ৭০৮ শিক্ষার্থী তাদের ভর্তি নিশ্চায়ন করেছে। চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর জাহেদুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তথ্য মতে, প্রথম তালিকায় মনোনীত হয়েও আরো ১২ হাজার ৮৭০ জন (প্রায় ১৩ হাজার) শিক্ষার্থী ভর্তি নিশ্চায়ন করেনি। প্রথম মেধা তালিকা প্রকাশের পর গত ১১ জুন থেকে টেলিটক ও মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ ও শিওর ক্যাশে ফি পরিশোধের মাধ্যমে ভর্তি নিশ্চায়নের প্রক্রিয়া শুরু হয়। ১৮ জুন রাত ১২টায় ভর্তির প্রাথমিক নিশ্চায়নের এ সুযোগ শেষ হয়। এর আগে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের অধীন কলেজগুলোতে ভর্তির জন্য মোট ১ লাখ ২২ হাজার ১২৬ জন শিক্ষার্থী অনলাইনে (ওয়েবসাইট ও এসএমএসে) আবেদন করে। এর মধ্যে প্রথম তালিকায় ভর্তির জন্য মনোনীত হয় ১ লাখ ৮ হাজার ৫৭৮ জন। বাকি ১৩ হাজার ৫৪৮ জন শিক্ষার্থীর প্রথম তালিকায় ঠাঁই হয়নি। ঠাঁই না পাওয়াদের মধ্যে জিপিএ-৫ পাওয়া ২৭৭ জন শিক্ষার্থীও ছিল।
প্রথম তালিকায় ঠাঁই না পাওয়া এবং আগে আবেদন না করা শিক্ষার্থীদের নতুন করে আবেদনের সুযোগ ছিল গত ১৯ ও ২০ জুন। একইসাথে প্রথম মেধা তালিকায় মনোনীত হওয়ার পরও ভর্তি নিশ্চায়ন না করা শিক্ষার্থীদেরও এই সময়ে নতুন করে আবেদনের সুযোগ ছিল। এছাড়া ভর্তি নিশ্চায়ন করা অনেকেই নিশ্চায়ন বাতিল করে পুনরায় আবেদনের সুযোগ পেয়েছে। গত কয়েকদিনে প্রায় তিন শতাধিক শিক্ষার্থী নিশ্চায়ন বাতিল করেছে। নিশ্চায়ন বাতিলের পর তারা পুনরায় নতুন করে আবেদনের সুযোগ পেয়েছে। সবমিলিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত ২য় ধাপে এক লাখেরও বেশি (১ লাখ ১৩ হাজার ৭০০টি) আবেদন পড়েছে। প্রায় ১৮ হাজার শিক্ষার্থী এসব আবেদন করেছে। আর বৃহস্পতিবার মধ্যরাত পর্যন্ত আবেদনের সুযোগ থাকায় আবেদন ও আবেদনকারীর সংখ্যা কিছুটা বাড়তে পারে বলেও জানান কলেজ পরিদর্শক।
প্রথম সারির কলেজগুলোতে ৫১৮ আসন শূন্য : নগরীতে ৮টি সরকারি কলেজ রয়েছে। এগুলো হলো, চট্টগ্রাম সরকারি কলেজ, হাজী মুহাম্মদ মহসীন সরকারি কলেজ, সরকারি সিটি কলেজ, সরকারি কমার্স কলেজ, চট্টগ্রাম সরকারি মহিলা কলেজ, বাকলিয়া সরকারি কলেজ, কলেজিয়েট স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং সম্প্রতি সরকারি হওয়া চট্টগ্রাম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ। এই ৮টি কলেজের মধ্যে দুটি স্কুল অ্যান্ড কলেজ (কলেজিয়েট স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং চট্টগ্রাম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ) ছাড়া বাকি ৬টি কলেজে তিন বিভাগে (বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা) মোট ৫১৮টি আসন শূন্য রয়েছে। মাইগ্রেশনের মাধ্যমে প্রথম দফায় প্রাথমিক ভর্তি নিশ্চায়ন করা শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে ৫১৮ জন শিক্ষার্থী এসব আসনে ভর্তির সুযোগ পাবে। আজ ২১ জুন প্রথম দফায় এ মাইগ্রেশনের ফল প্রকাশ করা হবে।
বোর্ডের কলেজ শাখার তথ্য অনুযায়ী, এই ৬টি কলেজের বিজ্ঞান বিভাগে ৯৭ জন, মানবিক বিভাগে ২৭৯ জন এবং ব্যবসায় শিক্ষায় ১৪২ জন শিক্ষার্থী মাইগ্রেশনের মাধ্যমে ভর্তির সুযোগ পাবে। প্রথম তালিকায় মনোনীত হয়েও প্রাথমিক ভর্তি নিশ্চায়ন না করায় এসব আসন শূন্য হয় বলে নিশ্চিত করেছেন বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর জাহেদুল হক।

x