মদুনাঘাট বিদ্যুৎ বিতরণ উপকেন্দ্রে আগুন

ভয়াবহ বিপর্যয়ের হাত থেকে রক্ষা

রাউজান প্রতিনিধি

মঙ্গলবার , ৩০ এপ্রিল, ২০১৯ at ৬:৪১ পূর্বাহ্ণ

হাটহাজারী উপজেলাধীন মদুনাঘাট ১৩২/৩৩ কেবি বিদ্যুৎ বিতরণ উপকেন্দ্রের অভ্যন্তরে সংঘটিত এক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বড় ধরনের বিপর্যয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে গ্রীড উপকেন্দ্রসহ বিশাল এলাকাজুড়ে থাকা মদুনাঘাট বাজার। সংশ্লিষ্ট সূত্র ও প্রত্যক্ষদর্শীদের দেয়া তথ্যে জানা যায়, কেন্দ্রের অভ্যন্তরে নষ্ট হয়ে থাকা দুটি ট্রান্সফরমার দরপত্রের মাধ্যমে বিক্রি করে দিয়েছে বিদ্যুৎ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। কার্যাদেশ পেয়ে ক্রেতা প্রতিষ্ঠান নামিরা এন্ট্রারপ্রাইজ ট্রান্সফরমার দুটি খুলে নেয়ার কাজ শুরু করে গত মঙ্গলবার থেকে। এরই মধ্যে ঠিকাদারের লোকজন একটি কেটে নিরাপদ অবস্থানে নিয়ে গেলেও অপরটি গতকাল সোমবার পৌনে পাঁচটার দিকে কাটার মেশিন দিয়ে কাটার সময় হঠাৎ আগুন ধরে যায়। এসময় আগুনের শিখা উপরের দিকে না উঠলেও বিশাল ধুয়ার কুণ্ডলি উপর দিকে ছড়িয়ে পড়ে। গোটা এলাকায় অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে যায়। এই অবস্থায় টিকাদারের লোকজনসহ কেন্দ্রের লোকজন অভ্যন্তরীণ অগ্নি নির্বাপন ব্যবস্থায় আগুন নিভানোর চেষ্টার পাশাপাশি কালুঘাট ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিভানোর কাজে যোগ দেয়। রাত পৌনে দশটায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ট্রান্সফরমারের ভিতরের আগুন নিভানো সম্ভব হয়নি। তখনো ধুয়ার কুণ্ডলি আকাশের দিকে উড়ছিল।
এলাকার লোকজন বলেছেন, জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার ভিতর প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি না নিয়ে টিকাদারের লোকজন ইলেক্ট্রিক কাটার দিয়ে ট্রান্সফরমার কাটার কাজ করছেন। তাদের অবসাবধানতায় এই ঘটনাটি ঘটেছে। জানতে চাইলে কালুরঘাট ফায়ার সার্ভিসের ওয়্যারহাউস ইনট্রাক্টর সজিব সরকার রাত পৌনে দশটায় ঘটনাস্থল থেকে আজাদীকে বলেছেন, ধুয়ার কুণ্ডলি কমে এসেছে। যেহেতু ট্রান্সফরমারের অভ্যন্তরে তেল ও কয়েলে আগুন রয়েছে সেহেতু আগুন সম্পূর্ণ ভাবে নিভিয়ে ফেলতে আরো কিছুটা সময় লাগবে। ১৩২/৩৩ কেবি বিদ্যুৎ বিতরণ উপকেন্দ্রের ওই সময়ে দায়িত্ব পালনকারী সহকারী প্রকৌশলী সুদিপ্ত দে এ প্রসঙ্গে বলেন, নষ্ট ট্রান্সফরমার কেটে নেয়ার সময় এই ঘটনা ঘটলেও কেন্দ্রের কোনো রকম ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। কেন্দ্রের অভ্যন্তরীণ অগ্নি নির্বাপন ব্যবস্থা আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছে। এব্যাপারে টিকাদারের বক্তব্য জানার চেষ্টা করা হলেও তাকে ঘটনাস্থলে পাওয়া যায়নি। তাদের লোকজনও কথা বলতে রাজি হয়নি।

x