ভোটেই নেতৃত্ব নির্বাচন

সভাপতি সালাম সম্পাদক আতাউর

আজাদী প্রতিবেদন

রবিবার , ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ at ৪:১৮ পূর্বাহ্ণ

উদ্বেগ আর উৎকন্ঠার সাথে ছিল উৎসব মুখর পরিবেশ। তার মধ্যদিয়েই চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে কাউন্সিলরদের সরাসরি ভোটে নির্বাচিত হলেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। কাউন্সিলরদের সরাসরি ভোটে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে বিগত কমিটির সাধারণ সম্পাদক এমএ সালাম সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন, সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন মীরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ আতাউর রহমান। সরাসরি
কাউন্সিলরদের ভোটে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়াকে আওয়ামী লীগের ইতিহাসে ‘মাইলফলক’ বলছেন কেন্দ্রীয় নেতারা। এযাবতকালে কখনো চট্টগ্রামে কাউন্সিলরদের সরাসরি ভোটে নেতৃত্ব নির্বাচন হয়নি।
গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় নগরীর কাজীর দেউড়ির ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে কাউন্সিলরদের অধিবেশন শেষে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের নতুন নেতৃত্বের নাম ঘোষণা করেন দলের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
সম্মেলনে ৩৬৬ জন কাউন্সিলরের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ৩৫৩ জন। তারা ভোট দিয়ে আগামী তিন বছরের জন্য তাদের নেতৃত্ব নির্বাচিত করেন।
সভাপতি পদে এমএ সালাম পেয়েছেন ২২৩ ভোট এবং এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী পেয়েছেন ১২৯ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে শেখ আতাউর রহমান পেয়েছেন ১৯৬ ভোট এবং মো: গিয়াস উদ্দিন পেয়েছেন ১৫৪ ভোট।
নির্বাচিত হওয়ার পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় জেলার নবনির্বাচিত সভাপতি এমএ সালাম বলেন, ‘আজকের সম্মেলনটি একটি ঐতিহাসিক সম্মেলন। কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতে খুবই শান্তিপূর্ন ভাবে সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে। কাউন্সিলর ডেলিগেট ভাইদের প্রতি কৃতজ্ঞতা। যারা ভোট দিয়েছেন বা দেননি সবাইকে নিয়েই কাজ করবো। আমাদের নেতা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের পরামর্শে শিগগির পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে। উত্তর জেলার একটি ঐতিহ্য রয়েছে। নেতাকর্মী সকলের মধ্যে একটি নিবিড় বন্ধন রয়েছে। আমরা উত্তর জেলা একটি পরিবারের মতো।’
এম এ সালাম সর্বপ্রথম ১৯৯২ সালে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিলের মাধ্যমে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এরপর ১৯৯৬ সালে ২য় বার, ২০০৪ সালে ৩য় বার এবং ২০১২ সালের ২৫ ডিসেম্বর ৪র্থ বারের মত চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে সর্বশেষ গতকাল ৭ডিসেম্বর পর্যন্ত সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। গতকালের সম্মেলনের মধ্যদিয়ে তিনি প্রথমবারের মতো উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের আগামী তিন বছরের জন্য সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন।
শেখ আতাউর রহমান তার প্রতিক্রিয়ায় আজাদীকে বলেন, সম্পূর্ণ গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নেতারা নতুন নেতৃত্ব নির্বাচিত করেছেন। আমি উত্তর জেলার সকল কাউন্সিলর এবং ডেলিগেট ভাইদের অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই। আমি মাঠের কর্মী। ১৯৭২-৭৩ সালে বাকলিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সাহিত্য সম্পাদক ছিলাম। সেই থেকে আমার ছাত্ররাজনীতিতে যাত্রা শুরু। এরপর ১৯৭৭-৭৮ সালে নিজামপুর কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক ছিলাম। এরপর নিজামপুর কলেজের সাধারন সম্পাদক, পরবর্তীতে ভিপি, এর পরে মীরসরাই থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক, পরবর্তীতে উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি-সভাপতি, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ সভাপতি এবং উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক ছিলাম। সবমিলে বলতে পারি আমি রাজনীতির বলয়ের মধ্যেই আমার সারা জীবন কেটেছে। তবে এই দীর্ঘ রাজনৈতিক সময়টুকু আমি আমাদের রাজনৈতিক অভিভাবক ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের নিবিড় সান্নিধ্যে থেকে এগিয়ে এসেছি। আগামী দিনগুলোও মোশাররফ ভাইয়ের পরামর্শে দলকে পরিচালনা করবো।

x