ভোটগ্রহণ চলছে চট্টগ্রাম-৮ আসনে

আজাদী অনলাইন

সোমবার , ১৩ জানুয়ারি, ২০২০ at ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ

জাতীয় সংসদের চট্টগ্রাম-৮ আসনটি বাংলাদেশ জাসদের মইন উদ্দিন খান বাদলের মৃত্যুতে শূন্য হওয়ায় ভোটগ্রহণ চলছে আজ সোমবার (১৩ জানুয়ারি)।

সকাল ৯টায় চট্টগ্রাম নগরী ও উপজেলার ১৭০টি কেন্দ্রের এক হাজার ১৯৬টি ভোট কক্ষে একযোগে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।

এ আসনের চার লাখ ৭৪ হাজার ৪৮৫ জন ভোটার সংসদে তাদের নতুন জনপ্রতিনিধি বেছে নিতে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভোট দিতে পারবেন। বিডিনিউজ

এ নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার চট্টগ্রামের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা হাসানুজ্জামান জানান, সুষ্ঠু ভোটের সব প্রস্তুতিই তারা নিয়েছেন। ভোটাররা ভোট দিতে কেন্দ্রে আসবেন এবং সকলের অংশগ্রহণে একটি ‘প্রতিনিধিত্বমূলক নির্বাচন’ হবে বলে আশা প্রকাশ করছেন তারা।

চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলা, মহানগরীর চান্দগাঁও ও বায়েজিদের কিছু অংশ নিয়ে গঠিত চট্টগ্রাম-৮ আসনের ভোটারদের মধ্যে দুই লাখ ৪১ হাজার ১৯৮ জন পুরুষ এবং দুই লাখ ৩৩ হাজার ২৮৭ জন নারী। এর মধ্যে বোয়ালখালী উপজেলায় ভোটার সংখ্যা এক লাখ ৬৪ হাজার ১৩১, বাকি ভোটার চট্টগ্রাম মহানগরীর।

মোট ছয়জন প্রার্থী এ উপ নির্বাচনে অংশ নিলেও আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোছলেম উদ্দিন আহমদের নৌকা এবং বিএনপির প্রার্থী আবু সুফিয়ানের ধানের শীষের মধ্যেই মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে ধারণা করছেন সবাই।

অন্য চার প্রার্থী হলেন বিএনএফ-এর এস এম আবুল কালাম আজাদ (টেলিভিশন), ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের সৈয়দ মোহাম্মদ ফরিদ আহমদ (চেয়ার), ন্যাপের বাপন দাশগুপ্ত (কুঁড়েঘর) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ এমদাদুল হক (আপেল)।

ভোটের প্রচারের শেষ দিনে নৌকার প্রার্থী চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ বলেছিলেন, ‘আগুন সন্ত্রাসীরা’ ভোটকেন্দ্রে অবস্থান নিয়ে প্রভাব বিস্তার করতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে তার।

অন্যদিকে বিএনপির প্রার্থী আবু সুফিয়ান অতীতের অভিজ্ঞতায় সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করলেও প্রশাসনের ওপর আস্থা রাখতে চান বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন।

চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা বলেন, ‘অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের জন্য সার্বত্মক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। এবারের ভোট ইভিএমে হবে এবং আমাদের জানা মতে ফ্রেশ ও ফেয়ার ইলেকশন হবে।’

এ আসনের বোয়ালখালী উপজেলা অংশে যে ৬৯ কেন্দ্রে ভোট হবে সেসব এলাকায় ১২৫০ জন পুলিশ এবং ৮৪০ জন আনসার সদস্য নিয়োজিত রয়েছেন। আর চট্টগ্রাম মহানগরী অংশের ভোট কেন্দ্রগুলোতে নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ।

মহানগর পুলিশের কমিশনার মাহবুবর রহমান বলেন, ‘কোনো গোলমালের শঙ্কা নেই। নিয়মিত পুলিশের পাশাপাশি কয়েকটি কেন্দ্র পরপর টহল পার্টি, স্ট্রাইটিং পার্টি নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছে।’

দশম সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রতীক নৌকা নিয়ে নির্বাচন করে চট্টগ্রাম-৮ আসনের এমপি নির্বাচিত হন জাসদ নেতা মইন উদ্দিন খান বাদল। এরপর জাসদের একটি অংশ আলাদা হয়ে গঠন করে বাংলাদেশ জাসদ। বাদল ওই অংশের কার্যকরী সভাপতির দায়িত্ব পান।

তবে বাংলাদেশ জাসদ নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধন না পাওয়ায় একাদশ সংসদ নির্বাচনেও বাদল আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করেন এবং টানা দ্বিতীয়বারের মতো জয়ী হন।

গত বছরের ৭ নভেম্বর ভারতের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাদলের মৃত্যু হলে নির্বাচন কমিশন উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে।

x