ভেদাভেদ ভুলে দেশের শিল্প ও কলকারখানাকে সমৃদ্ধ করুন

পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি দিবসে এডিসি হাবিবুর রহমান

সোমবার , ৩০ এপ্রিল, ২০১৮ at ১১:৫২ পূর্বাহ্ণ
74

বাংলাদেশ এখন টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় রয়েছে। শ্রমিক মালিক একসাথে এই অগ্রযাত্রায় সার্বিকভাবে অবদান রাখতে হবে। দেশের উন্নয়নের স্বার্থে সকল ভেদাভেদ একপাশে সরিয়ে রেখে দেশের শিল্প ও কলকারখানাকে সমৃদ্ধ করতে হবে

গত শনিবার জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি দিবস উদ্‌যাপন উপলক্ষে শিল্পকলা একাডেমিতে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি চট্টগ্রাম এডিসি মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান একথা বলেন।

কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর, চট্টগ্রামের উদ্যেগে এবং সমাজ উন্নয়ন সংস্থা ইপসা সহ চট্টগ্রামে কর্মরত বেসরকারি সংগঠনসমূহের যৌথ উদ্যোগে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর চট্টগ্রামের জেলা মহাপরিদর্শক আব্দুল হাই খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে শ্রম অধিদপ্তরের পরিচালক গিয়াস উদ্দিন, এনজিও শিপ ব্রেকিং প্লাটফর্মের বাংলাদেশ সমন্বয়ক মো: আলী শাহীন, বিজিএমইএ’র পরিচালক আনম সাইফুদ্দিন, জাতীয়তাবাদী শ্রমিকদলের চট্টগ্রাম জেলার সভাপতি এএম নাজিম উদ্দিন, জাতীয় শ্রমিক লীগের কেন্দ্রিয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সফর আলী, পাহাড়তলী শ্রমিক লীগের সভাপতি শফি বাঙালী, ইউনাইটেড গার্মেন্টস ফেডারেশন জাহাঙ্গীর আলমসহ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা বলেন, দেশের বিভিন্ন শিল্প কারখানায় পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা ও আইনী সুরক্ষা পরিস্থিতির উন্নয়ন করতে হবে। কর্মক্ষেত্রে কার্যকর শিল্প সম্পর্ক তৈরী এবং ত্রিপক্ষীয় সহযোগিতা সম্পর্কে শ্রমিকদের সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। শিল্পের শ্রমিকরা আমাদের জাতীয় উন্নয়নে ধারাবাহিকভাবে অবদান রেখে চলেছে। ফলে শিল্পের অগ্রগতি তথা এই শিল্পের কর্মপরিবেশ উন্নয়নসহ শ্রমিকদের পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা বিধান দীর্ঘদিনের দাবী। এই বিষয়ে অতিসত্বর ব্যবস্থা না নিলে রানা প্লাজার চেয়েও বড় দূর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। শিল্প কারখানায় জাতীয় শ্রম আইন ও আন্তর্জাতিক মান প্রতিষ্ঠা হোক, শ্রমিকদের নিরাপত্তা ও ন্যায্য অধিকার নিশ্চিত করা হোক, শ্রমিকমালিক ঐক্য প্রতিষ্ঠা হোক। মতবিনিময় সভার আগে সার্কিট হাউস চত্বর হতে চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমি এলাকা পর্যন্ত এক বর্ণাঢ্য র‌্যালীর আয়োজন করা হয়। ‘সুস্থ শ্রমিক, নিরাপদ জীবন, নিশ্চিত করে টেকসই উন্নয়ন’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে উক্ত কর্মসূচীতে বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি কর্মকর্তা, গণমাধ্যম, বিভিন্ন মিলকারখানার শ্রমিক, ট্রেড ইউনিয়ন সংগঠনে প্রতিনিধিবৃন্দ, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষের স্বতস্ফূর্ত উপস্থিতি ছিলো।

x