ভাস্কর্য ভাঙার ঘটনায় সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের নিন্দা

আজাদী প্রতিবেদন

রবিবার , ১৪ জানুয়ারি, ২০১৮ at ৪:৪৪ পূর্বাহ্ণ
152

জহুর হকার্স মার্কেটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গবন্ধুর মন্ত্রীসভার শ্রমমন্ত্রী জহুর আহমেদ চৌধুরী ও সাবেক সিটি মেয়র এবিএম মহিউদ্দীন চৌধুরী নির্মাণাধীন ভাস্কর্য ভাঙার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছেন সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতারা। গতকাল গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সাবেক ছাত্রলীগ নেতারা বলেন, বঙ্গবন্ধুসহ তিন নেতার স্মৃতি রক্ষার্থে জহুর হকার্স মার্কেট সমিতির উদ্যোগে জহুর মার্কেটের গেইটে নির্মিত ভাস্কর্য চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ভেঙে দেয়ায় কোটি কোটি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের নেতাকমীরা খুবই মর্মাহত ও ক্ষুব্ধ। ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভাস্কর্য ভাঙচুরের পর ময়লার গাড়িতে করে তা নিয়ে যাওয়া হয়েছে। যেটি বঙ্গবন্ধুর প্রতি অবমাননাকর। ভাস্কর্য করার অনুমতি থাকুক অথবা না থাকুক স্বাধীন দেশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি বা ভাস্কর্য যে কেউ স্থাপন করতে পারে। এটাই বঙ্গবন্ধুর প্রতি ভালোবাসা। তাই বলে অনুমতির দোহাই দিয়ে ভাঙচুর বা উচ্ছেদ করার কারো অধিকার নাই। বঙ্গবন্ধুর বাংলার ইতিহাসে আর বাঙালির হৃদয়ে আছে। একইভাবে চট্টলার জননেতা জহুর আহম্মদ চৌধুরী ও চট্টলবীর এবিএম মহিউদ্দীন চৌধুরী চট্টগ্রামের ইতিহাসে চট্টগ্রামের মাঠি ও মানুষের হ্নদয়ে আছেন। ভাস্কর্য ভাঙচুর করে তাদের অবদান কখনো মুছে ফেলা যাবে না।

বিবৃতিদাতারা হলেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ এর সাবেক সহসম্পাদক হাবিবুর রহমান তারেক, উপপ্রচার সম্পাদক আজিজুর রহমান, উপসমাজ সেবা সম্পাদক ফরহাদুল ইসলাম চৌধুরী রিন্টু, উপশিক্ষা ও পাঠচক্র সম্পাদক মো. ইলিয়াছ উদ্দীন, উপক্রীড়া সম্পাদক হাসান, উপপরিবেশ সম্পাদক আব্দুর রহীম জ্‌ল্িলু , সহসম্পাদক আশিকুন্নবী চৌধুরী, সদস্য মেজবাহ উদ্দীন মোরশেদ, আলী রেজা পিন্টু, গোলাম কিবরিয়া, আবু সাঈদ সুমন, দেবাশীষ আচায্য, রাজিব হাসান রাজন, মাঈনুল হাসান রাজু, নাজমুল সাকিব, শওকত হোসেন ও জিহাদ উদ্দীন প্রমুখ।

x